যুগান্তর : নতুন পরীক্ষায় করোনা ভাইরাস আক্রান্ত (কভিড-১৯) আক্রান্ত তিনজনের মধ্যে দুজনের শরীরে এই ভাইরাসের উপস্থিতি ধরা পড়েনি। তারা সুস্থ বলে জানিয়েছে জাতীয় রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর)।

করোনাভাইরাসের সর্বশেষ পরিস্থিতি ও স্বাস্থ্য সতর্কতা বিষয়ে বুধবার দুপুরে আইইডিসিআরের সম্মেলন কক্ষে এক ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান প্রতিষ্ঠানটির পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা।

তিনি বলেন, দেশে যে তিন ব্যক্তি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন, তাদের অবস্থা স্থিতিশীল। তারা একটি হাসপাতালের আইসোলেশন ইউনিটে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। তাদের মধ্যে দুজনের শারীরিক অবস্থা ভালো, একটি পরীক্ষায় তাদের ফলাফল নেগেটিভ এসেছে। ২৪ ঘণ্টা পর পরবর্তী পরীক্ষার ফলও নেগেটিভ আসলে তাদেরকে ছাড়পত্র দেয়া হবে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার প্রটোকল অনুযায়ী তাদের চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে বলেনও জানান আইইডিসিআরের পরিচালক।

ডা. সেব্রিনা ফ্লোরা বলেন, ‌গত ২৪ ঘণ্টায় আটজনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে, তাদের কারও শরীরে করোনাভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া যায়নি।

এ সময় দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে আটজনকে আইসোলেশনে রাখা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

তিনি বলেন, আবারও বলছি– বিদেশে থেকে যারা এসেছেন, তারা বাড়িতে থাকেন। অথবা স্বেচ্ছায় কোয়ারেন্টাইনে যান।

মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা বলেন, যাদের সর্দি-জ্বর ও কাশি আছে, তারা ১৪ দিন বাড়িতে থাকেন। প্রতিষ্ঠানগুলোকে আহ্বান জানাচ্ছি নিজেদের স্বার্থে ছুটির ব্যবস্থা করে এমন রোগীকে সহযোগিতা করুন।

উল্লেখ্য, প্রথমবারের মতো বাংলাদেশে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়েছে। রোববার সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) পরিচালক মীরজাদী সেব্রিনা জানান, ধরা পড়া করোনা রোগী দুজন ইতালিফেরত। তিনজনের মধ্যে দুজন পুরুষ ও একজন নারী। সরকার ও স্বাস্থ্য বিভাগের পক্ষ থেকে করোনা নিয়ে আতঙ্কিত না হয়ে সতর্ক থাকার পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •