বার্তা পরিবেশক :
কক্সবাজার সদরের ঈদগাঁওতে মহিলা মেম্বারের নেতৃত্বে স্কুল শিক্ষক মাহমুদুল হককে পৈশাচিক কায়দায় নির্যাতনের প্রতিবাদে এলাকাবাসী ও বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা মানববন্ধন করেছে। ১০মার্চ সকাল ১১টায় ঘটনাস্থল উত্তর মাইজ পাড়ায় এলাকাবাসী এবং একই সময়ে ঈদগাঁও বাসষ্টেশনে বিদ্যালয়ের শিক্ষক/শিক্ষার্থীরা ঘটনায় জড়িত সন্ত্রাসীদের শাস্থির দাবিতে এই মানববন্ধন ও প্রতিবাদ কর্মসূচি পালন করে। জানা যায়, ৯মার্চ দিবাগত রাতে ঈদগাহ ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান মরহুম হাজি ছৈয়দ আলমের ছেলে ঈদগাহ আদর্শ শিক্ষা নিকেতনের শিক্ষক মাহমুদুল হককে স্থানীয় ইউপি সদস্য বহু অপকর্মের হোতা এবং শিক্ষার্থী অপহরণ মামলার আসামী নুরজাহান ওরফে হ্নীলানি মেম্বার ও তার ছেলে সাইদুল এবং বোরহানের নেতৃত্বে ৫/৬জন সন্ত্রাসী ফিল্ম স্টাইলে তাদের বাড়িতে নিয়ে গিয়ে পৈশাচিক কায়দায় নির্যাতন চালায়। আহতের স্বজনদের মতে,লোহার শিকল দিয়ে হাত-পা বেঁধে দায়ের বাট,সাবাল,লোহার রড ও হাতুড়ি দিয়ে বর্বরোচিত কায়দায় পিটিয়ে তার পুরো শরীর থেঁথলে দেয়। এতে মাহমুদুল হকের ডান হাত,ডান পা ও বুকের পাঁজরের হাঁড় এবং পিঠের মেরুদন্ডের হাড় ভেঙ্গে যায় বলে দাবি স্বজনদের। মহিলা মেম্বারের বাড়ি থেকে ঈদগাহ পুলিশ মাহমুদকে মুমূর্ষ অবস্থায় উদ্বার করে সদর হাসপাতালে প্রেরন করে। ১দিন পর জীবন-মৃত্যুর দোটানায় থাকা মাহমুদের অবস্থার অবনতি হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজে রেফার করেন। এ সংবাদ ছড়িয়ে পড়লে এলাকাবাসী ও বিদ্যালয়ের শিক্ষক/শিক্ষার্থীরা মেম্বার হ্নীলানি ও তার ছেলেসহ অন্যান্য সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার পুর্বক শাস্থির দাবিতে মানববন্ধন করে। এছাড়া দোষীদের শাস্থির দাবিতে মাহমুদুল হকের সহপাঠী আমরা৯৩ কক্সবাজার এর পক্ষ থেকে জেলা প্রশাসক ও পুলিশ সুপার বরাবর স্মারকলিপি দেয়াসহ বিভিন্ন কর্মসূচি হাতে নিয়েছে বলে জানা গেছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •