হারুনর রশিদ,মহেশখালী:

“দূর্যোগ ঝুকি হ্রাস পূর্ব প্রস্তুতি টেকসই উন্নয়নে আনবে গতি,, এপ্রতিপাদ্য বিষয়কে সামনে নিয়ে মহেশখালীতে জাতীয় দুর্যোগ প্রস্তুতি দিবস-২০২০ ইং উদযাপিত হয়েছে। দুর্যোগ প্রস্তুতি দিবস উপলক্ষ্যে মহেশখালী উপজেলা প্রশাসন ও মহেশখালী দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগ কর্তৃক র্যালি,আলোচনা সভা ও সাংবাদিক সম্মেলন ১০ই মার্চ সকাল ১১টার সময় অনুষ্টিত হয়। উপজেলার নির্বাহী অফিসার মোঃ জামিরুল ইসলাম এর সভাপতিত্বে অনুষ্টিত সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আলহাজ্ব আশেক উল্লাহ রফিক এমপি। তিনি বক্তব্য প্রদান কালে বলেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সরকারের রূপকল্প ২০২১ বাস্তবায়নেরর লক্ষ্যে বিগত ১০বছরে বর্তমান সরকারের গৃহিত বিভিন্ন প্রকল্প, সফলতা ও ভবিষ্যৎ বিষদভাবে আলোচনা করেছেন।মহেশখালীতে বিগত ১০বছরে কাবিখা প্রকল্পের আওতায় প্রায় ৫৯০টি মাটির রাস্তা নির্মাণ/সংস্কার,প্রায় ৭০টি প্রতিষ্টানের মাঠ ভরাট/নির্মাণ করা হয়। যার সুফল মহেশখালীববাসী ভোগ করছে।
মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আলোকিত বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্যে কাবিখা /টিআর প্রকল্প হতে প্রায় ১৫৮০টি পয়েন্টে সোলার সিস্টেম স্থাপন করা হয়েছে। যার মাধ্যমে ২,০৫,৫০০ জন প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে সোলার আলোক সুবিধা প্রাপ্ত হয়েছে।
বিগত ১০বছরে মানবিক সহায়তা (ত্রাণ) কর্মসুচীর আওতায় মোট ২০,৭৪০ জন উপকারভোগীর মাঝে শীতবস্ত্র/ কম্বল,৫১৩টি পরিবারের মাঝে ১০৬ বান্ডিল ঢেউটিন ও টিনদ্বারা ঘর নির্মানের জন্য ৩০,৭৮,০০০/- প্রদান করা হয়েছে এবং ভিজিএফ খাদ্যশস্য এর আওতায় বাৎসরিক ধর্মীয় অনুষ্টানের পূর্বে অসহায় দুঃস্থদের মাঝে প্রতিবছর প্রায় ৩৮৬৮০টি পরিবারে খাদ্যশস্য বিতরণ করা হয়েছে।
দুর্যোগ কালিণ সময়ে জরুরী আশ্রয় গ্রহণের জন্য ঘূর্ণিঝড় শ্রয়কেন্দ্র,গবাদীপশু’র আশ্রয় কেন্দ্র নির্মাণ করা হয়েছে।
বিগত ১০বছরে সমগ্র উপজেলা জুড়ে বিভিন্ন দৈর্ঘ্যের প্রায় ৭৯টি ব্রিজ/কালভার্ট নির্মাণ করা হয়েছে যার মাধ্যমে গ্রামীণ রাস্তায় চলাচল ও যোগাযোগ ব্যবস্থার আমুল পরিবর্তন হয়েছে।
গ্রামীর মাটির রাস্তাসমুহ টেকসই করণের লক্ষ্যে প্রায় ১০কিঃমিঃ এইচবিবি রাস্তা নির্মাণ কাজ সমাপ্ত হয়েছে।
বর্তমান সরকার; অসহায় দুঃস্থদের মাথা গোজার স্থায়ী ব্যবস্থা করার লক্ষ্যে যার নিজের জমি আছে কিন্ত বাড়ী করার সামর্থ নেই তাদের জন্য একটি যুগান্তকারী পদক্ষেপ গ্রহণ করেন”দুর্যোগ সহনীয় বাসগৃহ নির্মাণ “প্রকল্পের মাধ্যমে।উক্ত প্রকল্পের মাধ্যমে গরীব অসহায়,বৃদ্ধ,পঙ্গু ও স্বল্প আয়ের পরিবার যার নিজ জমি রয়েছে কিন্তু বাড়ী করার সক্ষমতা নাই তাদেরকে একটি দুইরুম,রান্নাঘর ও টয়লেটসহ বাড়ী তৈরি করে দেবার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দুর্যোগ সহনীয় বাসগৃহ বিনামূল্যে নির্মানের জন্য বরাদ্দ প্রদান করেছেন।”দুর্যোগ সহনীয় বাসগৃহ নির্মান”প্রকল্পের আওতায় অত্র উপজেলায় ৪৭টটি দুর্যোগ সহনীয় বাসগৃহ মুজিব শতবর্ষে উদ্বোধনের জন্য প্রস্তুত করা হয়েছে বলে জানান তিনি।
বিশেষ অতিথিদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব আনোয়ার পাশা চৌধুরী,মহেশখালী থানার পুলিশ পরিদর্শক তদন্ত (ওসি) মোঃবাবুল আজাদ,জেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা ডাঃনুরুল আমিন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান মিনুয়ারা ছৈয়দ,সহকারী কমিশনার ভূমি সুইচিং মং মারমা,মহেশখালী থানার পুলিশ পরিদর্শক ওসি তদন্ত বাবুল আজাদ,
কেয়ার বাংলাদেশ এর পরিচালক কাইছার রিজভী,
উপজেলার প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা রাশেদুল ইসলাম,প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আবু নোমান মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ,হোয়ানকের চেয়ারম্যান মো:মোস্তফা কামাল,ধলঘাটার চেয়ারম্যান কামরুল হাসান,ছোট মহেশখালীর চেয়ারম্যান জিহাদ বিন আলী,সাবেক মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ছালেহ আহমদ, ফায়ার সার্ভিসের ইনচার্জ আল আমিন,বিভিন্ন বিদ্যালয়ের শিক্ষক, ছাত্র-ছাত্রী এবং সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন।
দুপুর ১২টার সময় উপজেলা পরিষদের মাসিক আইন শৃংখলা সভা উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তার কার্যালয়ে অনুষ্টিত হয়। এতে সংশ্লিষ্টারা উপস্থিত ছিলেন।বিকাল ৩টার সময়
দুর্যোগ পূর্ব প্রস্তুতি মহড়া মাল্টিপারপাস সাইক্লোন
সেন্টার ও প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সংস্কার অনুষ্ঠান উপজেলার বড় মহেশখালীর নতুন বাজার সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে কেয়ার বাংলাদেশ এর আয়োজনে অনুষ্টিত হয়। উক্ত অনুষ্টানটি পরিচালনা করেছেন উপজেলার প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা রাশেদুল ইসলাম

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •