সিবিএন ডেস্ক : স্বতন্ত্র মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তর, বকেয়া টাইম স্কেল ও সিলেকশন গ্রেড প্রদান, সিনিয়র শিক্ষকসহ সকল শূণ্যপদে পদোন্নতি, এন্ট্রি পদ ‘সহকারী শিক্ষক’ ৯ম গ্রেডে উন্নীতকরণ, নতুন আত্তীকরণ বিধিমালা প্রণয়ন, উপ-পরিচালকসহ অন্যান্য পদে বেতন গ্রেড উন্নীতকরণ ও নন-ভ্যাকেশন ডিপার্টমেন্ট ঘোষণা এই সাত দফা দাবিতে কক্সবাজারে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন ও জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবরে স্মারকলিপি দিয়েছেন সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক/শিক্ষিকারা।

বাংলাদেশ সরকারি মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতি কক্সবাজার জেলা শাখার উদ্যোগে সোমবার (৯ মার্চ) এসব কর্মসূচি পালন করা হয়।

বেলা সাড়ে ১১ঃ৩০ টা থেকে ১টা পর্যন্ত জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনের সড়কে অনুষ্ঠিত দেড় ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধনে সভাপতিত্ব করেন কক্সবাজার সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক ও বাংলাদেশ সরকারি মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতি কক্সবাজার জেলা শাখার সভাপতি সোহেল ইকবাল , এতে বক্তব্য রাখন কক্সবাজার সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক ও বাংলাদেশ সরকারি মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতি কক্সবাজার জেলা শাখার সাধারণ সম্পাদক জাকারিয়া মোঃ য়্যাঁহয়া হাছান, আবু তৈয়ব, আব্দুর রহিম সিকদার, আবু শোয়েব, জি এম এনামুল হক, মাসুদা মোর্শেদা আইভি, মোক্তার আহমদ প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, অত্যন্ত দুঃখজনক বিষয় হচ্ছে সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকেরা যে পদে যোগদান করেন, সেই পদে থেকেই তাদের অবসরে যেতে হয়। ২৮-৩০ বছর বা এরও বেশি সময় চাকুরি করেও তাদের পদোন্নতি মিলে না।

অথচ সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়গুলোতে অনেক শূণ্যপদ রয়েছে। ফলে শিক্ষকের অভাবে বিদ্যালয়গুলোর শিক্ষা কার্যক্রম ব্যাহত হচ্ছে।

কেবল তাই নয়, ইতোমধ্যে কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমূহের জন্য কারিগরি শিক্ষা অধিদপ্তর, মাদ্রাসা শিক্ষা প্রতিষ্ঠান সমূহের জন্য মাদ্রাসা শিক্ষা অধিদপ্তর প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। ২০১০ সালে প্রণীত জাতীয় শিক্ষানীতিতে স্বতন্ত্র মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তর প্রতিষ্ঠা করার কথা উল্লেখ থাকলেও অদ্যাবধি তা প্রতিষ্ঠা করা হয়নি।

মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর বর্তমানে বিপুল সংখ্যক মাধ্যমিক বিদ্যালয়, বেসরকারি কলেজ, সরকারি কলেজ তদারকিসহ অন্যান্য কার্যক্রম চালাতে হিমশিম খাচ্ছে। তাই মাধ্যমিক শিক্ষা প্রশাসনের কাজের গতি এবং বিদ্যালয় পরিদর্শন ও তদারকি ব্যবস্থা জোরদার ও নিখুঁত করা এবং জাতীয় শিক্ষানীতি-২০১০ এর প্রস্তাবনা অনুযায়ী মানসম্মত আধুনিক, যুগোপযোগী ও বাস্তবমুখী শিক্ষা নিশ্চিত করার জন্য ‘স্বতন্ত্র মাধ্যমিক শিক্ষা অধিদপ্তর’ সৃষ্টি করা একান্ত প্রয়োজন।

মানববন্ধন শেষে নেতৃবৃন্দ জেলা প্রশাসক মো. কামাল হোসেনের কাছে প্রধানমন্ত্রী বরাবরে স্মারকলিপি হস্তান্তর করেন।

নেতৃবৃন্দ জানান, কক্সবাজার জেলার ৬টি বিদ্যালয়ের শিক্ষক/শিক্ষিকারা একযোগে সাত দফা দাবিতে মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান কর্মসূচি পালন করেছেন সরকারি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক/শিক্ষিকারা।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •