মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

কক্সবাজার শহর/পৌর এলকার সরকারি কর্মচারীদেরকে নিজ নিজ বেতন ভাতার অতিরিক্ত ৩০ % (শতকরা ত্রিশ ভাগ) ভাতা প্রদান করা হবে। কক্সবাজার শহর একটি ব্যয়বহুল এলাকা হিসাবে সরকার এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

গত ২৪ ফেব্রুয়ারী অর্থ মন্ত্রণালয়ের অর্থ বিভাগের প্রবিধি অনুবিভাগের প্রবিধি-৩ অধিশাখার ১২-২৩ নাম্বার স্মারক মূলে রাষ্টপতির অনুমোদনক্রমে অতিরিক্ত সচিব মোঃ শাহজাহান স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে এ আদেশ জারি করা হয়েছে।

নিম্নে জারীকৃত আদেশটি হুবহু তুলে ধরা হলো-

“অর্থ বিভাগের ৭১ নং প্রজ্ঞাপনের অনুবৃত্তিক্রমে ব্যয়বহুল স্থান হিসাবে ঢাকা, চট্টগ্রাম, খুলনা, রাজশাহী, বরিশাল, রংপুর, সিলেট, নারায়নগঞ্জ, গাজীপুর শহর এবং সাভার পৌর এলাকার ন্যায় কক্সবাজার শহর/পৌর এলাকার বেসামরিক প্রশাসনে কর্মরত সরকারি কর্মচারীগণের দৈনিক ভাতা সাধারণ হারের চেয়ে অতিরিক্ত ৩০% হারে নির্ধারণ করা হলো।
জনস্বার্থে জারীকৃত এ আদেশ জারির তারিখ হতে কার্যকর হবে।”

প্রসঙ্গত, এর আগে কক্সবাজার শহরকে ব্যয়বহুল শহর হিসাবে ঘোষনা করে গেজেট প্রকাশ করা হয়। দীর্ঘদিন ধরে কক্সবাজার শহরের সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীরা ব্যয়বহুল শহর হিসাবে সরকারের কাছ থেকে ‘পর্যটন ভাতা’ দাবি করে আসছিল। ২০১৭ সালের ২৫ আগস্ট মিয়ানমার থেকে ১১ লক্ষাধিক রোহিঙ্গা শরনার্থী পালিয়ে এসে উখিয়া-টেকনাফে আশ্রয় নেওয়ায় জীবনযাত্রার ব্যয় আরো বেড়ে যায়। সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের স্বাভাবিক বেতন ভাতা দিয়ে জীবনধারণ করতে টানাপোড়েনে পড়তে হয়। ফলে এ দাবির যৌক্তিকতা আরো বেড়ে যায়। শেষপর্যন্ত সরকার উল্লেখিত প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের দীর্ঘদিনের চাওয়া পাওয়া পূরণ করলো।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •