মো. নুরুল করিম আরমান, লামা
পার্বত্যাঞ্চলে গমের জাত গবেষণার ওপর কৃষক মাঠ দিবস বান্দরবানের লামা উপজেলার রুপসীপাড়া ইউনিয়নের তেলিভিটা গ্রামের কৃষক আবদুল হালিম ও উচাইমং মার্মার জমিতে অনুষ্ঠিত হয়েছে। সোমবার বিকালে অনুষ্ঠিত দিবসে প্রধান অতিথি ছিলেন, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সানজিদা বিনতে সালাম। বেসরকারী সংস্থা কারিতাস এগ্রো ইকোলজি প্রকল্পের উদ্যোগে অনুষ্ঠিত দিবসে গম চাষের ওপর বিস্তারিত ধারণা দেন, এগ্রো ইকোলজি প্রকল্পের জুনিয়র প্রোগ্রাম অফিসার উসিনু মার্মা। প্রকল্পের উপজেলা মাঠ কর্মকর্তা মামুন সিকদারের সভাপতিত্বে দিবসে সাংবাদিক মো. নুরুল করিম আরমান, প্রকল্পের মাঠ সহায়ক উজ্জ্বল চাকমা, প্রিয়াংকা ত্রিপুরা, সাইফ উদ্দীন, পিংকু চৌধুরী ও গিরি বিকাশ চাকমাসহ উপজেলার উপকারভোগী প্রদর্শনী প্লটের গম চাষীরা উপস্থিত ছিলেন। এ সময় গম চাষের অনুভূতি প্রকাশ করে বক্তব্য রাখেন কৃষক আবদুল হালিম। তিনি বলেন, গম চাষে খরচ কম। বেশি পরিশ্রমও করতে হয়না। আশা করি এ চাষে তুলনামূলকভাবে তামাকের চেয়ে বেশি লাভবান হওয়া যাবে। প্রকল্পের মাঠ কর্মকর্তা মামুন সিকদার বলেন, উপজেলায় প্রতিজন কৃষককে ১০শতক করে ১৫জন কৃষককে মোট ১৫০শতক জমিতে বিভিন্ন জাতের গম চাষের জন্য পরীক্ষামূলক প্রদর্শর্নী দেয়া হয়। বারি ৩০ ও ৩২ জাতের গম উৎপাদন ভালো হয়েছে। এতে করে লামা উপজেলায় গম উৎপাদনের উজ্জ্বল সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •