মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

কক্সবাজারে করোনা ভাইরাস রোগীর চিকিৎসায় ৫০ শয্য করে ১০০ শয্যার ২ টি হাসপাতাল প্রস্তুত রাখা হয়েছে। সাথে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক ও অন্যান্য সাপোর্টও রাখা হয়েছে। করোনা ভাইরাস নিয়ন্ত্রণ সংক্রান্ত কক্সবাজার জেলা কমিটির এক সভায় কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মোঃ কামাল হোসেন সভাপতির বক্তব্যে এ তথ্য জানান।

সভায় বলা হয়, কক্সবাজার জেলার কোথাও করোনা ভাইরাস রোগী এ পর্যন্ত সনাক্ত হয়নি। ঢাকা থেকে কক্সবাজার বিমানবন্দর হয়ে আসা ৮১১ জন বিমানযাত্রীকে করোনা ভাইরাস পরীক্ষা করা হয়েছে। সেখানে কারো কাছ থেকে করোনা ভাইরাস পাওয়া যায়নি। সভায় কক্সবাজার বিমানবন্দরে আসা সকল যাত্রীকে নিয়মিত করোনা ভাইরাস পরীক্ষা করার প্রস্তাব তুললে সেটি স্বাস্থ্য বিভাগ ও সিভিল এভিয়েশন কর্তৃপক্ষকের সাথে যোগাযোগের মাধ্যমে ব্যবস্থা করা হবে বলে জানানো হয়। করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত যেকোন বিষয়ে জেলা প্রশাসন ও জেলা স্বাস্থ্য বিভাগকে অবহিত করতে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় ও সিভিল সার্জন অফিসে নিয়ন্ত্রণ কক্ষ খোলা হয়েছে। জেলা প্রশাসনের নিয়ন্ত্রণ কক্ষের জরুরি মোবাইল ফোন নম্বর হলো : ০১৭২৮৮৮৯১৯২। সভায় জানানো হয়, করোনা ভাইরাসে আতংকের কোনো কারণ নেই। সারাবিশ্বে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের মধ্যে মাত্র ২’৩% মারা গেছে। বাকীরা সব সুস্থ হয়ে গেছে। যারা মারা গেছে তাদের মধ্যে সকলের বয়স ৪০ বছরের উর্ধ্বে। এছাড়া মায়ানমারের সাথে চীনের সীমান্ত থাকায় টেকনাফ স্থলবন্দরে ২ টি বিশেষজ্ঞ মেডিকেল টিম সেখানে নিয়মিত কাজ করছে। করোনা ভাইরাস জীবানু শরীরে প্রবেশের ন্যুনতম ১৪ দিন পর সেটি সংক্রামিত হয়। ২৩ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রায় করোনা ভাইরাস জীবাণু মরে যায়। বাংলাদেশের সার্বিক তাপমাত্রা ক্রমান্বয়ে বাড়তে থাকায় এদেশের মানুষ করোনা ভাইরাস জীবাণুতে আক্রান্ত হওয়ার আশংকা খুবই কম।

জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের শহীদ এটিএম জাফর আলম সিএসপি সম্মেলন কক্ষে সোমবার ৯ মার্চ সকালে অনুষ্ঠিত উক্ত সভায় অন্যান্যের মধ্যে কক্সবাজার-২ আসনের সংসদ সদস্য আশেক উল্লাহ রফিক, কউক চেয়ারম্যান কর্নেল ফোরকান আহমেদ, পুলিশ সুপার এ.বি.এম মাসুদ হোসেন বিপিএম (বার), কক্সবাজার পৌরসভার মেয়র মুজিবুর রহমান, সিভিল সার্জন মাহবুবুর রহমান, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মোহাঃ শাজাহান আলি, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সা.) মোহাম্মদ মাসুদুর রহমান মোল্লা, কক্সবাজার প্রেস ক্লাবের সভাপতি মাহবুবর রহমান, সাধারণ সম্পাদক আবু তাহের চৌধুরী, বৌদ্ধ ধর্মীয় কল্যাণ ট্রাস্টের ট্রাস্টি ও জেলা হিন্দু বৌদ্ধ খৃষ্টান ঐক্য পরিষদের সভাপতি এডভোকেট দীপংকর বড়ুয়া পিন্টু, সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক প্রিয়তোষ শর্মা চন্দন, জেলা পুজা উদযাপন পরিষদের সভাপতি এডভোকেট রনজিত দাশ, হিন্দু ধর্মীয় কল্যান ট্রাস্টের ট্রাস্টি বাবুল শর্মা, মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ শাহজাহান, কক্সবাজার চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি আবু মোর্শেদ চৌধুরী খোকা, জেলার উপজেলা চেয়ারম্যান ও ইউএনও বৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •