সংবাদদাতা
চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন ১৮ নম্বর পূর্ব বাকলিয়া ওয়ার্ডের বর্তমান কাউন্সিলর হারুন অর রশিদ।

রোববার (৮ মার্চ) তার একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি মনোনীত কাউন্সিলর প্রার্থী আজিজুল হক মাসুম প্রার্থিতা প্রত্যাহারের আবেদন করায় হারুন অর রশিদই এখন ওই ওয়ার্ডের একমাত্র প্রার্থী।

পূর্ব বাকলিয়া ওয়ার্ডে বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী নগর বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মো. তৈয়ব যাচাই বাছাইয়ে ঋণখেলাপির জামিনদার হওয়ায় তার মনোনয়ন বাতিল হয় আগেই। শেষ সময়ে মাসুম প্রার্থিতা প্রত্যাহার করায় হারুনের আর প্রতিদ্বন্দ্বী থাকলো না।

কাউন্সিলর হারুন অর রশিদ এক প্রতিক্রিয়ায় বলেন, ‘আল্লাহর অশেষ মেহেরবানী ও এলাকাবাসীর দোয়ায় আমার বিজয়ের ধারাবাহিকতা রক্ষা হলো। এই নিয়ে আমি পরপর দুইবার এলাকাবাসীর খেদমতের সুযোগ পেলাম। জননেত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখবো ইনশাআল্লাহ।’

এদিকে বিএনপি প্রার্থীর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার নিয়ে দলটির ভেতরে অসন্তোষের সৃষ্টি হয়েছে। বিএনপির মেয়র প্রার্থী ডা. শাহাদাত হোসেন বাকলিয়ার বাসিন্দা। বাকলিয়াকে বিএনপি বরাবরই নিজেদের ভোট ব্যাংক দাবি করে। বাকলিয়ার তিনটি ওয়ার্ডের একটি ওয়ার্ড বিএনপির কাউন্সিলর প্রার্থী শূন্য হওয়ায় জবাবদিহিতার মুখে পড়বেন নেতারা। প্রার্থিতা প্রত্যাহার করা আজিজুল হক মাসুম ডা. শাহাদাত হোসেনের অনুসারী হিসেবে পরিচিত দলে।

ডা. শাহাদাতের আশীর্বাদে মাসুম ছাত্রদল ও যুবদলের দুটি পদে আছেন। নির্বাচনে বিএনপি দলীয় মনোনয়ন বোর্ডের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক সদস্য জানান, তার প্রার্থিতা প্রত্যাহারের বিষয়টি দলের সাথে আলাপ করেনি। এখনতো বহিস্কার ছাড়া কোন পথ খোলা নেই।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •