এম.মনছুর আলম, চকরিয়া :
কক্সবাজারের চকরিয়ায় বদরখালী-মহেশখালী (কেবি জালাল উদ্দিন ) সড়কে শাহওমর মাজারের ওরশ শরীফে যাওয়ার পথে ডাম্প ট্রাকের চাপায় আবুল হোসেন ফকির (৬৫) নামের ইজিবাইক যাত্রী নিহত হয়েছে। এ সময় টমটম (ইজিবাইক) গাড়ির যাত্রী স্বামী-স্ত্রীসহ আরও ৩ যাত্রী গুরুতর আহত হয়েছেন।
বৃহস্পতিবার দুপুর সাড়ে ১১টার দিকে উপজেলার সাহারবিল ইউনিয়ন্থ বদরখালী-মহেশখালী সড়কের চোয়ারফাঁড়ি স্টেশনের অদূরে মর্মান্তিক এ দুর্ঘটনা ঘটে।
আহতদেরকে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করা হয়। সড়ক দূর্ঘটনায় নিহত বৃদ্ধা আবুল হোসেন ফকির পেকুয়া উপজেলার সদর ইউনিয়নের নন্দিরপাড়া এলাকার মৃত আবদুল জব্বার ফকিরের ছেলে।
দূর্ঘটনায় আহত ব্যক্তিরা হলেন, পেকুয়া সদর ইউনিয়নের নন্দিরপাড়া এলাকার মো: মহিউদ্দিন (২৬), তার স্ত্রী বুলবুল জন্নাত ও তাদের আত্বীয় শিশু কন্যা নাহিদা বেগম (৮)।
স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শী ও নিহতের পরিবার সূত্রে জানাগেছে, বৃহস্পতিবার দুপুরের দিকে সাহারবিল ইউনিয়ন্থ বদরখালী-মহেশখালী সড়কে চকরিয়া থেকে বদরখালীগামী বালি ভর্তি একটি ডাম্প ট্রাক চোয়ারফাঁড়ি স্টেশনের অদূরে পৌছলে বিপরীত দিক থেকে আসা যাত্রীবাহি চকরিয়াগামী (ইজিবাইক) টমটমকে চাপা দিলে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এতে টমটমের যাত্রী শিশু, নারী-পুরুষসহ কমবেশি ৫জন আহত হয়। দুর্ঘটনায় পতিত আহত টমটম যাত্রীদের স্থানীয়রা উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে ভর্তি করা হয়। তৎমধ্যে গুরুতর আহত আবুল হোসেন ফকির অবস্থা আশঙ্কাজনক হলে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে চমেক হাসপাতালে প্রেরণ করেন। বৃহস্পতিবার রাতে চমেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আহত বৃদ্ধা আবুল হোসেন ফকির মারা যান। নিহতের ছেলে আবু তাহের তার পিতার মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।
নিহতের ছেলে আবু তাহের জানান, সকালে আমার বাবাসহ স্থানীয় কয়েকজন প্রতিবেশী নিয়ে টমটম গাড়ি যোগে কাকারা শাহওমর মাজারের ওরশ শরীফে যাচ্ছিল। প্রতিমধ্যে টমটম গাড়িটি চোয়ারফাঁড়ি স্টেশনের অদূরে পৌছলে বিপরীত দিক থেকে দ্রুতগামী বালিভর্তি ডাম্প ট্রাক টমটমকে ধাক্কা দেয়। এসময় আমার বাবাসহ (ইজিবাইক) টমটমের ৫ যাত্রী ছটকে পড়লে আমার বৃদ্ধ বাবাকে ডাম্প ট্রাক চাপা দিলে গুরুতর আহত হন। সন্ধ্যায় চমেক হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান।
চকরিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মো: হাবিবুর রহমান সড়ক দুর্ঘটনায় নিহতের ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, দুর্ঘটনার খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছিল। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ডাম্প ট্রাকটি জব্দ করেছে। চালক ও হেলফার ঘটনার পর পরই পালিয়ে যাওয়ায় তাদের আটক করা সম্ভব হয়নি। নিহতের পরিবারের কাছ থেকে অভিযোগ পেলে পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে তিনি জানান।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •