প্রেস বিজ্ঞপ্তি:
বঙ্গীয় বৌদ্ধ সমাজের অবক্ষয়রোধ, বুদ্ধের সদ্ধর্মের শ্রীবৃদ্ধি ও বৌদ্ধদের ধর্মীয় গুরু ভিক্ষুসংঘের সংহতি রক্ষা কল্পে আগামী ১৩ মার্চ থেকে দুই দিনব্যাপী নানা কর্মসূচীর মধ্য দিয়ে ‘মহতি সংঘসম্মেলন-২০২০’ কক্সজারের উখিয়ার শৈলেরডেবা চন্দ্রোদয় বিহারে অনুষ্ঠিত হবে।

‘বিশ্বজ্যোতি মিশন কল্যান ট্রাস্টের’ উদ্যোগে আয়োজিত এ সম্মেলনে সারাদেশের পাশাপাশি ভারতীয় বাংলার ৫ শতাধিক বৌদ্ধ ভিক্ষুসংঘ অংশগ্রহণ করবেন বলে জানিয়েছেন আয়োজক সংশিষ্টরা।

এছাড়া ভারত, শ্রীলংকা, মিয়ানমার ও থাইল্যান্ডসহ বিভিন্ন বৌদ্ধ প্রধান রাষ্ট্রের খ্যাতিসম্পন্ন ভিক্ষুসংঘ, বুদ্ধদর্শনবিদ ও শিক্ষাবিদসহ বিশিষ্ট ধর্মীয় নেতারাও সম্মেলনে অংশগ্রহণ করবেন।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সংঘসম্মেলন উদযাপন কমিটির সাধারণ সম্পাদক শ্রী জ্যোতি:প্রিয় ভিক্ষু স্বাক্ষরিত গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, মহতি সংঘসম্মেলন অনুষ্ঠিত হচ্ছে মূলত: বুদ্ধের ধর্ম ও দর্শনের অবিকৃত রূপের চর্চা ও অনুশীলনের মাধ্যমে আত্মদর্শনের উন্নয়ন সাধন করার প্রচেষ্টা। এছাড়া বঙ্গীয় বৌদ্ধ সমাজের অবক্ষয়রোধের পাশাপাশি বুদ্ধের সদ্ধর্মের শ্রীবৃদ্ধি ও ভিক্ষুসংঘের সংহতি রক্ষা করাই এ সংঘসম্মেলনের মূখ্য উদ্দ্যেশ।

সংঘসম্মেলন উপলক্ষে আগামী ১৩ মার্চ থেকে উখিয়ার শৈলেরডেবা চন্দ্রোদয় বৌদ্ধ বিহারে অনুষ্ঠিত হবে ২ দিনব্যাপী বিভিন্ন কর্মসূচী।

এর মধ্যে রয়েছে, কর্মযোগী জ্ঞানালংকার ও ডক্টর কাচ্চায়ন পাঠাগার উদ্বোধন, ভিক্ষুসংঘের জীবনচর্যা শীর্ষক সেমিনার, অষ্ট-পরিস্কারসহ মহাসংঘদান, আদর্শিক নীতিমালা প্রণয়নের লক্ষ্যে ‘ভিক্ষুসংঘ ও গৃহীসংঘের যৌথ কনভেশন’ এবং ‘থেরবাদী ঐতিহ্য রক্ষায় সাঙ্ঘিক জীবনের করণীয় কর্তব্য ও একতার গুরুত্ব’সহ কয়েকটি সেমিনার আয়োজনের কর্মসূচী।

জ্যোতি:প্রিয় জানান, ইতিমধ্যে বৃহস্পতিবার (০৫ মার্চ) পর্যন্ত বাংলাদেশের পাশাপাশি ভারতীয় বাংলার ৫ শতাধিক বৌদ্ধ ভিক্ষু (ধর্মীয় গুরু) মহতি সংঘসম্মেলনে অংশগ্রহণের জন্য নিবন্ধিত হয়েছেন। সম্মেলন শুরুর আগেরদিন (১২ মার্চ) পর্যন্ত এ নিবন্ধন কার্যক্রম চলবে।

সম্মেলনে বাংলাদেশী বৌদ্ধদের সর্বোচ্চ ধর্মীয় গুরু সংঘরাজ ড. ধর্মসেন মহাথের এবং ভারতীয় বৌদ্ধদের সর্বোচ্চ ধর্মীয় গুরু সংঘরাজ ড. সত্যপাল মহাথের সবক’টি আয়োজনের আচার্য্য এর দায়িত্ব পালন করবেন বলে জানান উদযাপন পরিষদের এ সাধারণ সম্পাদক।

সম্মেলন উপলক্ষ্যে প্রশাসনসহ সংশ্লিষ্ট সকল মহলের সহযোগিতা ও অংশগ্রহণের আমন্ত্রণ জানিয়েছেন শ্রী জ্যোতি:প্রিয় ভিক্ষু।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •