সংবাদ বিজ্ঞপ্তিঃ
আমরা কক্সবাজারবাসীর সমন্বয়ক কক্সবাজার জেলা খেলাঘর আসরের সাধারণ সম্পাদক, তেল-গ্যাস রক্ষা কমিটির সদস্য সচিস এবং জেলা ছাত্র ইউনিয়নের সাবেক সভাপতি কমরেড কলিম উল্লাহর বসতবাড়ি উচ্ছেদের নোটিশ আগামী ৭২ ঘণ্টার মধ্যে প্রত্যাহার দাবি জানিয়েছেন ‘আমরা কক্সবাজারবাসী’ সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।
বৃহস্পতিবার (৫ মার্চ) সন্ধ্যায় অনুষ্ঠিত জরুরি সভায় নেতৃবৃন্দ বলেন, কক্সবাজার জেলা প্রশাসনসহ অন্যান্য দপ্তরের অনিয়মের বিরুদ্ধে আমরা কক্সবাজারবাসীর ধারাবাহিক নিয়মতান্ত্রিক আন্দোলনের ফলে ক্ষুব্ধ হয়ে বৃহস্পতিবার বিকালে আমরা কক্সবাজারবাসী সংগঠনে সমন্বয়ক কলিম উল্লাহর বসতবাড়ি উচ্ছেদের জন্য নোটিশ প্রদান করেছে সদর ইউনিয়ন ভূমি অফিস, নিশ্চিতভাবেই বলা যায় এতে জেলা প্রশাসনের সম্মতি রয়েছে।
বক্তারা আরো বলেন, বুধবার আমরা কক্সবাজারবাসী সংগঠন ও কক্সবাজার সোসাইটির যৌথ উদ্যোগে কক্সবাজার ভূমি অধিগ্রহণ শাখার(এলএ শাখা) ভয়াবহ দূর্নীতির বিরুদ্ধে বিক্ষুব্ধ নাগরিক সমাবেশ করার একদিন পর অর্থাৎ বৃহস্পতিবারই সদর সদর ইউনিয় ভূমি অফিস থেকে কলিম উল্লাহকে তার বসতবাড়ি উচ্ছেদের নোটিশ প্রদান প্রমানিত হলো এটি পরিকল্পিত একটি ষড়যন্ত্র।
বক্তারা বলেন, শুধুমাত্র প্রতিশোধ পরায়ণ হয়ে নিজেদের দূর্নীতিকে ধামাচাপা দেওয়ার জন্যই এ নোটিশ প্রদান করা হয়েছে।
বক্তারা, এমন নোংরা কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে আগামী ৭২ ঘণ্টার মধ্যে উচ্ছেদ নোটিশ প্রত্যাহারের আল্টিমেটাম জানিয়েছেন। অন্যাথায় উদ্ভূত পরিস্থিতির জন্য নোটিশ প্রদানকারী কর্তৃপক্ষ দায়ী থাকবেন।
উল্লেখ্য যে, উচ্ছেদ প্রচেষ্টার বিরুদ্ধে মহামান্য হাইকোর্টের নিষেধাজ্ঞা কার্যকর রয়েছে, এ নোটিশ প্রদানের ফলে উচ্চ আদালতের আদেশ লঙ্ঘিত হয়েছে।
জরুরি সভায় সভাপতিত্ব করেন -সংগঠনের উপদেষ্টা বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলী।
এতে গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য রাখেন -সংগঠনের উপদেষ্টা সাবেক পৌর চেয়ারম্যান নুরুল আবছার, উপদেষ্টা ও কমিউনিস্ট পার্টির সাবেক সাধারণ সম্পাদক সমীর পাল, কক্সবাজার সোসাইটির সভাপতি কমরেড গিয়াস উদ্দিন, কামাল উদ্দিন রহমান পেয়ারো, জেলা খেলাঘরের সভাপতি আবুল কাশেম বাবু, টিইউসি’র আহ্বায়ক অনিল দত্ত, সমন্বয়ক নাজিম উদ্দিন, সমন্বয়ক সাংবাদিক মহসীন শেখ ও এম জসিম উদ্দিন, মমতাজ সফিনা আজিম, জামাল উদ্দিন, ইসমাইল সাজ্জাদ ও মংথেলা রাখাইন প্রমূখ।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •