সিবিএন ডেস্ক:
চীন, সিঙ্গাপুর, দক্ষিণ কোরিয়া, জাপান ও ইতালিসহ অন্যান্য করোনা আক্রান্ত দেশ থেকে আগত যাত্রীদের বাংলাদেশে আগমনের পরবর্তী ১৪ দিন কতিপয় নির্দেশনা মেনে চলার পরামর্শ দিয়েছেন সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা।

বৃহস্পতিবার (৫ মার্চ) দুপুরে আইইডিসিআরের সম্মেলন কক্ষে করোনার সর্বশেষ পরিস্থিতি সম্পর্কিত এক প্রেস ব্রিফিংয়ে তিনি এ পরামর্শ দেন।

আইইডিসিআর পরিচালক বলেছেন, বিমানবন্দর থেকে বাসায় যাওয়ার পথে গাড়িতে মাস্ক পড়বেন। সম্ভব হলে গণপরিবহন ব্যবহার না করে নিজস্ব পরিবহন ব্যবহার করুন এবং পরিবহনের জানালা খোলা রাখুন। আবশ্যিকভাবে বাড়িতেই থাকুন। জনসমাগমে যাওয়া থেকে বিরত থাকুন। বাইরে যাওয়ার দরকার হলে নাক মুখ ঢাকতে মাস্ক ব্যবহার করুন। নিয়মিত হ্যান্ড স্যানিটাইজার অথবা সাবান এবং পানি দিয়ে অন্তত ২০ সেকেন্ড সময় নিয়ে দুই হাত ধুয়ে নিন এবং অপরিষ্কার হাত দিয়ে নাক মুখ চোখ স্পর্শ করবেন না।

করোনাভাইরাসের বিশ্ব পরিস্থিতি তুলে ধরে তিনি বলেন, ‘চীনসহ বিশ্বের ৭৭টি দেশে করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগী পাওয়া গেছে। চীনে সর্বমোট আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ৮০ হাজার ৪২২ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ১২০ জন। সর্বমোট মৃতের সংখ্যা ২ হাজার ৯৮৪ জন। নতুন মৃতের সংখ্যা ৩৮ জন। চীনের বাইরে ৭৬ দেশে মোট রোগীর সংখ্যা ১২ হাজার ৬৬৮ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ২ হাজার ১০৩ জন। সর্বমোট মৃতের সংখ্যা ২১৪ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় মৃতের সংখ্যা ৪৮ জন।’

দক্ষিণ কোরিয়া, ইরান এবং ইতালির সার্বিক অবস্থা এখনও উদ্বেগজনক জানিয়ে ডা. ফ্লোরা বলেন, সেখানকার পরিস্থিতি সার্বক্ষণিক পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। ইতালির মিলানে একজন বাংলাদেশি আক্রান্ত হলেও তিনি সুস্থ রয়েছেন।

তিনি বলেন, পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বাংলাদেশ দূতাবাসের সঙ্গে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রক্ষা করে যাচ্ছে। সিঙ্গাপুরে আক্রান্ত পাঁচজনের মধ্যে দুইজন এখনও হাসপাতালে আছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •