বিশ্বজুড়ে দ্রুত ছড়াচ্ছে করোনাভাইরাস, বাড়ছে আতঙ্ক। বিজ্ঞানীরা উঠেপড়ে লেগেছেন এই মরণব্যাধির প্রতিষেধক বা ওষুধ আবিষ্কারে, ফলাফল এখনও খুব একটা আশাব্যঞ্জক নয়। এর মধ্যেই নিজস্ব পদ্ধতিতে করোনাভাইরাস প্রতিরোধের (!) ঘোষণা দিয়েছে ভারতের ধর্মভিত্তিক রাজনৈতিক দল হিন্দু মহাসভা।

করোনার প্রকোপ ঠেকাতে দিল্লিতে চা-চক্র বা ‘টি পার্টি’র আদলে গোমূত্র পার্টির আয়োজন করবে দলটি। বুধবার এ কর্মসূচি ঘোষণা করেন হিন্দু মহাসভার সভাপতি চক্রপানি মহারাজ। তার মতে, আমিষ খাদকদের ‘শাস্তি’ দিতেই পৃথিবীতে করোনার আবির্ভাব হয়েছে।

হিন্দু মহাসভার দাবি, করোনাভাইরাস ঠেকাতে একমাত্র ‘মহৌষধ’ গোমূত্র ও গোবর। দলটির সভাপতি জানিয়েছেন, দিল্লিতে যেন করোনার প্রকোপ ছড়িয়ে পড়তে না পারে এজন্যই ‘গোমূত্র পার্টি’র আয়োজন করছেন তারা।

চক্রপানি মহারাজ বলেন, ‘আমরা যেমন চা-চক্রের আয়োজন করি, সেভাবেই গোমূত্র পার্টির আয়োজন করছি। সেখানে করোনাভাইরাস কী এবং কীভাবে গরু থেকে পাওয়া উপাদান খেয়ে এই ভাইরাসমুক্ত থাকা যায়— সেসব নিয়ে সচেতনতামূলক প্রচারণা চালানো হবে।’

jagonews24

গোবরে তৈরি কেক

পার্টিতে কী থাকবে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘সেখানে বিশেষ কাউন্টার থাকবে, যেখানে পার্টিতে আসা লোকজনকে গোমূত্র খেতে দেয়া হবে। আমরা গোবরের কেক বা ঘুঁটে, গোবর দিয়ে তৈরি আগরবাতিও রাখব। এগুলো খেলে বা ব্যবহার করলে করোনাভাইরাস সঙ্গে সঙ্গে মারা যাবে।’

ভারতে এ পর্যন্ত ২৯ জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। ভাইরাস আক্রান্ত আশঙ্কায় কোয়ারেন্টাইনে রাখা হয়েছে আরও পাঁচজনকে। এদের মধ্যে বেশিরভাগই বিদেশি বা করোনা সংক্রমিত এলাকা থেকে ফিরেছেন। বিশেষজ্ঞদের ধারণা, তারা বিদেশে থাকতেই কোভিড-১৯ আক্রান্ত হয়েছেন।

হিন্দু মহাসভার সভাপতির দাবি, ‘ভারতে এ ভাইরাস এসেছে, কারণ পশুরা সাহায্যের জন্য কাঁদছিল। যজ্ঞ অনুষ্ঠানের জন্য ভারতে করোনাভাইরাস শান্ত ছিল। কিন্তু তেলঙ্গানার অজ্ঞ ও অহঙ্কারী মন্ত্রীরা প্রাণী হত্যা করে এবং যেভাবে প্রকাশ্যে মাংস খেয়ে করোনাকে উসকে দিয়েছেন, তাতে ভারতেও এর ভয়াল রূপ দেখার আশঙ্কা তৈরি হয়েছে। সময় থাকতে এসব মন্ত্রীর করোনাভাইরাসের কাছে ক্ষমা চাওয়া উচিত। না হলে যে বিপর্যয় আসছে, তা কেউ আটকাতে পারবে না।’

করোনার সংক্রমণ এড়াতে ভিড়ে না যাওয়া, বারবার হাত ধোয়া, পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন থাকার পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। তবে সে পথে হাঁটেননি চক্রপানি মহারাজ। তার কথায়, ‘ভাইরাস নিয়ে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। গোমূত্র পান করুন আর নিরামিষভোজী হয়ে যান, তাহলেই করোনা পালাবে।’

এই নেতার মতে, নিরামিষভোজীদের কোনও চিন্তা নেই। বলেছেন, ‘শাকাহারিদের করোনা সংক্রমণ হবে না। তবুও সাবধানতা হিসেবে তারাও গোমূত্র পান শুরু করতে পারেন।’

আপাতত দিল্লিতে হিন্দু মহাসভার প্রধান কার্যালয়ে এ পার্টির আসর বসবে। পরে ভারতজুড়ে এ কার্যক্রম চালানো হবে।

সূত্র: আনন্দবাজার পত্রিকা

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •