এ কে এম ইকবাল ফারুক, চকরিয়া
চকরিয়ায় ৪০০ গ্রাম গাঁজাসহ মো. গিয়াস উদ্দিন (৪৮) নামে এক বিক্রেতাকে আটক করেছে পুলিশ। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে চকরিয়া থানার অধীন হারবাং পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ইন্সপেক্টর মো. আমিনুল ইসলামের নেতৃত্বে একদল পুলিশ রবিবার (১ মার্চ) ভোররাত সাড়ে ৪টার দিকে বরইতলী ইউনিয়নের বানিয়রছড়া ষ্টেশনের পশ্চিম পার্শ্বে বাজার এলাকায় অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করে। এ সময় তাহার দেহ তল্লাসী করে দুই প্যাকেটে ৪০০ গ্রাম গাঁজা উদ্ধার করা হয়। আটককৃত মো. গিয়াস উদ্দিন একই ইউনিয়নের ৫ নম্বর ওয়ার্ডের চান্দের বাপের পাড়া এলাকার মৃত সোলতান আহামদের ছেলে। পুলিশ জানায় গিয়াস উদ্দিন একজন পেশাদার গাঁজা বিক্রেতা। দীর্ঘদিন ধরে তিনি পুলিশের চোখ ফাঁকি দিয়ে বরইতলী ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় গাঁজা বিক্রি করে আসছিল।

অভিযানের নেতৃত্বে দেয়া হারবাং পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ইন্সপেক্টর মো.আমিনুল ইসলাম বলেন, রবিবার ভোর রাতে হারবাং পুলিশের নিয়মিত অভিযান চলাকালীন সময়ে গোপনসূত্রে খবর আসে বরইতলী ইউনিয়নের বানিয়ারছড়া ষ্টেশনের পশ্চিম পার্শ্বে বাজার এলাকায় বিপুল পরিমান গাঁজাসহ এক বিক্রেতা অবস্থান নিয়েছে। বিষয়টি জানার পর তাৎক্ষনাত ওই এলাকায় অভিযান চালাই। এ সময় মো. গিয়াস উদ্দিন নামে এক গাঁজা বিক্রেতাকে আটক ও পরে তার দেহ তল্লাসী করে দুই প্যাকেটে মোড়ানো অবস্থায় ৪০০ গ্রাম গাঁজা উদ্ধার করা হয়। অভিযানে ফাঁড়ির উপপরিদর্শক (এসআই) পারসিত চাকমা ও এএসআই জামাল উদ্দিনসহ অন্যান্য পুলিশ সদস্যরা অংশ নেয় বলেও জানান তিনি।

চকরিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. হাবিবুর রহমান বলেন, বরইতলী ইউনিয়নের বানিয়ারছড়া ষ্টেশনের পশ্চিম পার্শ্বে বাজার এলাকা থেকে ৪০০ গ্রাম গাঁজাসহ মো. গিয়াস উদ্দিন নামে এক বিক্রেতাকে আটকের ঘটনায় হারবাং পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই জামাল উদ্দিন বাদী হয়ে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে একটি মামলা দায়ের করেছেন। রবিবার দুপুরে গাঁজাসহ আটক ব্যক্তিকে মাদক মামলায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতের কাছে সোপর্দ করা হয়।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •