ইমাম খাইর, সিবিএন
বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবর্ষের অনুষ্ঠানে ভারতের রাষ্ট্রপ্রধান নরেন্দ্র মোদিকে বাংলাদেশে ঢুকতে দিলে তাকে প্রতিহতে লংমার্চ করার ঘোষণা দিয়েছে হেফাজতে ইসলাম। প্রয়োজনে বাংলাদেশের মুসলমানরা মাঠে নেমে পড়বে বলেও হুঁশিয়ারি দেয়া হয়েছে।
দিল্লিতে মুসলিম গণহত্যা, মসজিদে অগ্নি সংযোগের প্রতিবাদে শনিবার (২৯ ফেব্রুয়ারী) বিকালে কক্সবাজারে বিক্ষোভে এমন হুঁশিয়ারী উচ্চারণ করেন সংগঠনটির নায়েবে আমীর মাওলানা হাফেজ ছালামত উল্লাহ।
তিনি বলেন, ভারতের মোদি একজন সন্ত্রাসী রাষ্ট্রপ্রধান। তার হাতে মুসলমানদের স্বাধীনতা ভূলুণ্ঠিত।
কক্সবাজার পৌরসভা গেইটে বিক্ষোভে তিনি সভাপতির সমাপনী বক্তব্য দেন।
বিক্ষোভ সমাবেশে হেফাজতের সাধারণ সম্পদক মাওলানা ইয়াছিন হাবিব বলেন, ভারতে মুসলমানরা গণহত্যার শিকার হবে আর বাংলাদেশ সংখ্যাগরিষ্ঠ মুসলিম দেশ হয়েও সরকারের পক্ষ থেকে ন্যূনতম প্রতিবাদ করা হবে না, তা কোনভাবে মেনে নেয়া যায় না।
তিনি বলেন, বাংলাদেশ সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দেশ। এখানে সব ধর্মের লোকজন স্বাধীনভাবে বসবাস করছে। কিন্তু ভারতে সংখ্যালঘু মুসলমানদের উপর নির্যাতন হবে তা মেনে নেয়া যায় না। ভারতের মুসলমান গণহত্যা ও মসজিদ পুড়িয়ে ধ্বংস করার সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে হবে।
এর আগে বাদে আছর শহরের খুরুস্কুল রাস্তার মাথা থেকে বিশাল বিক্ষোভ মিছিল আরম্ভ হয়ে কক্সবাজার পৌরসভা গেটে সমাবেশে মিলিত হয়। বিক্ষোভে সাধারণ জনতাও স্বতঃস্ফূর্ত অংশ গ্রহণ করে।
জেলা হেফাজতের প্রচার সম্পাদক হাফেজ মুহাম্মদ আবুল মনজুরের সঞ্চালনায় এতে বক্তব্য রাখেন -সংগঠনের অর্থ সম্পাদক মাওলানা হাফেজ মুবিনুল হক, মাওলানা মনজুর ইলাহী, মাওলানা সায়েম হোসেন চৌধুরী, মাওলানা আব্দুর রহমান জিহাদি, মাওলানা হুমায়ুন কবির, মাওলানা এহতেশামুল হক, ক্বারী সাইফুল্লাহ কাসেমী, মাওলানা আবদুর রাজ্জাক, মাহবুবুল্লাহ নোমানী, ক্বারী মাওলানা রফিকউল্লাহ, হাফেজ মাওলানা আবু মুছা, হাফেজ ওমর ফারুক, সাইফুল ইসলাম সাইফি, মাওলানা কেফায়েত উল্লাহ, মাওলানা খালেদ সাইফি, মাওলানা আতা উল্লাহ, ছাত্রনেতা শওকত আলী ও দিদারুল আলম।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •