সিবিএন ডেস্ক

দিল্লির একটি মসজিদে হিন্দুত্ববাদীদের হামলা চালানোর একটি ভিডিও বুধবার সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ে। সাংবাদিক রানা আইয়ুব ওই ভিডিওটি পোস্ট করার পর সমালোচনা শুরু হয়। মুম্বাই থেকে রমেশ সোলাঙ্কি নামে এক ব্যক্তি পুলিশের কাছে অভিযোগ করেন, দুই বছর আগের বিহারের ঘটনার ভিডিও পোস্ট করে সহিংসতায় উসকানি দিচ্ছেন রানা। তবে অনুসন্ধান শেষে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম আনন্দবাজার পত্রিকা জানিয়েছে, ভিডিওটি নকল নয়। এমনকি বৃহস্পতিবার সকালে ঘটনাস্থলে গিয়ে মসজিদটির মাথায় গেরুয়া পতাকা উড়তে দেখা গেছে।

ভারতের প্রখ্যাত সাংবাদিক রানা আইয়ুবের পোস্ট করা ৪৫ সেকেন্ডের ভিডিওতে দেখা যায়, চার পাশে কালো ধোঁয়া ওড়ার মধ্যে মসজিদের মিনার বেয়ে উপরে উঠছে কয়েক জন যুবক। তাদের এক জনের হাতে গেরুয়া পতাকা আর অন্য এক জনের হাতে ভারতের জাতীয় পতাকা। একজন মসজিদের মাইক ভেঙে নিচে ফেলে দিয়ে মিনারের একটা অংশ ভাঙার চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়। পরে ‘জয় শ্রীরাম’ স্লোগান দিতে দিতে পতাকা দুটি সেখানে লাগিয়ে দেওয়া হয়।

 

ওই ভিডিওটি নিয়ে সমালোচনা শুরু হলে নিজের টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে তা সরিয়ে ফেলেন রানা আইয়ুব। পরে তিনি নিশ্চিত হন ঘটনাটি বিহারের নয় দিল্লির অশোক নগরের। সেখানকার পাঁচ নম্বর গলির ওই মসজিদে বৃহস্পতিবারও পতাকা দুটি উড়তে দেখা গেছে। পরে টুইটারে আবারও ভিডিওটি পোস্ট করেন রানা আইয়ুব।

আনন্দবাজার পত্রিকা জানিয়েছে, ভিডিওটি ধারণকারী ব্যক্তিও লিখিতভাবে নিশ্চিত করেছেন সেটি অশোক নগর থেকে তোলা। বৃহস্পতিবার ঘটনাস্থলে যাওয়া সাংবাদিকেরা ছবি ও ভিডিও দিয়ে নিশ্চিত করেছেন সেখানকার বড় মসজিদই হামলার শিকার হয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •