সংবাদ বিজ্ঞপ্তি
২১ শে ফেব্রুয়ারী মহান শহীদ দিবস ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ আওয়ামীগ কক্সবাজার জেলা শাখা দিনব্যাপী ব্যাপক কর্মসূচী পালন করেছেন। কর্মসূচীর মধ্যে রাত ১২.১ মিঃ পবিত্র শহীদ মিনারে পুষ্পস্তপক অর্পন সকাল ৭টায় দলীয় কার্যালয়ে জাতীয় ও দলীয় পতাকা অর্ধনিমত কারণ ও কালো পতাকা উত্তোলন, সকাল ৮টায় কাল ব্যাজ ধারণ, সকাল ১০টায় স্বাধীনতার মহান স্থপতি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের প্রতিকৃতি মাল্যদান এবং বিকাল ৩টায় শহীদ দৌলত ময়দানে এক আলোচনা সভা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি এড. সিরাজুল মোস্তফার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়।
সভায় বক্তব্য রাখেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মেয়র মুজিবুর রহমান, সহ-সভাপতি অধ্যাপক এথিন রাখাইন, রেজাউল করিম, জেলা আওয়ামী লীগ নেতা এডভোকেট রনজিৎ দাশ, মাহবুবুর রহমান চৌধুরী, ইঞ্জিনিয়ার বদিউল আলম, এড. সুলতানুল আলম, ইউনুছ বাঙ্গালী, পৌর আওয়ামী লীগ সভাপতি নজিবুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক বাবু উজ্জ্বল কর, জেলা আওয়ামী লীগ নেতা আবু তাহের আজাদ, ড. নুরুল আবছার, মিজানুর রহমান, জহিরুল ইসলাম সিকদার, সোহেল আহমদ বাহাদুর, তাহমিনা চৌধুরী লুনা, শফিউল্লাহ আনছারী, উসমান গণি, আসিফুল মৌলা, পরিমল কান্তি দাশ, সভা পরিচালনা করেন জেলা আওয়ামী লীগের উপ-প্রচার সম্পাদক এম.এ. মনজুর। পবিত্র কোরান তেলোয়াত করেন মৌলানা রফি উদ্দিন আহমদ। সভায় উপস্থিত ছিলেন-আতিক উল্লাহ কোম্পানী, সাইফুল ইসলাম চৌধুরী, রফিক মাহমুদ, এবি ছিদ্দিক খোকন, জানে আলম পুতু, দেলোয়ার হোসেন জান্নু, নজরুল ইসলাম, জাফর আলম, তাজ উদ্দীন, ওয়াহিদ মুরাদ সুমন, ইয়াহিয়া খান, খোরশেদ আলম রুবেল, আব্দুল্লাহ আল মাসুদ আজাদ, আজিজুল হক, যুবলীগ নেতা ডালিম বড়ুয়া, শাহেদ মোঃ এমরান প্রমুখ। সভায় বক্তরা বলেন- ১৯৫২ সালে, সালাম, বরকত, জব্বরসহ অনেক বাঙালী রক্তে অর্জিত বাংলা ভাষায় রাষ্ট্রীয় স্বীকৃতি আদায় করা ছিল বাঙালীর প্রথম রাজনৈতিক বিজয়, এ বিজয়ের আত্নবিশ্বাসী হয়ে বাঙালী, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে ঐক্যবদ্ধ হয়ে ৫৪ নির্বাচন, ৫৮ আয়ুব বিরোধী আন্দোলন, ৬২ শিক্ষা আন্দোলন, ৬৬ সালের ৬দফা, ৬৯ সালের ঘন অভূত্থান, ৭০ নির্বাচন এবং ৭১ মহান মুক্তিযুদ্ধে, বিজয় নেতৃবৃন্দ বলেন পৃথিবীর ইতিহাসে ভাষার জন্য রক্ত দিতে হয়েছে এমন কোন নজির নেই। একমাত্র বাঙালী জাতীকে রক্ত দিয়ে ভাষার অধিকার অর্জন করতে হয়েছে। পাকিস্তানিরা আন্দোলন ছাড়া বাঙালীর কোন দাবী মেনে কখনো নেয়নি-নেতৃবৃন্দ বলেন দীর্ঘ ২৩ বছর লড়াই, সংগ্রাম ও রক্তাক্ত ইতিহাস পেরিয়ে ৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধে জাতির পিতার নেতৃত্বে স্বাধীনতা অর্জিত হলেও স্বাধীনতার মাত্র ৩ বছরের মধ্যে জাতির পিতাকে স্বপরিবারে হত্যা করা হয়। বিএনপি ও স্বাধীনতা বিরোধীরা বার বার পাকিস্তানী ভাবধারায় এদেশে ধর্ম ভিত্তিক অরাজনীতি করে স্বাধীনতার মূলমন্ত্রে আঘাত আনার চেষ্টা করেছে। তাদের সকল ষড়যন্ত্র ছিন্ন করে বাঙালী জাতির পিতার সুযোগ্য কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়ন ও সমৃদ্ধি প্রতি আস্থা রেখেছে। উন্নয়ন ও সমৃদ্ধির এ ধারা অব্যাহত রাখতে সকল নেতাকর্মীকে ঐক্যবদ্ধ থাকার আহবান জানান।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •