শ্যামল রুদ্র, খাগড়াছড়ি
খাগড়াছড়ির দীঘিনালার রসিক পাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনের মাঠ নেই। অথচ বিদ্যালয় ভবনটির তিনপাশ ঘেঁষে করা হয়েছে তামাক চাষ। মাঠ না থাকার কারণে শিক্ষার্থীদের খেলাধুলা দুরে থাকুক এসেম্বলি করতেই কষ্ট হয়।

সরেজমিনে গিয়ে দেখা গেছে, বিদ্যালয়টির সামনে মাত্র ৮/১০ ফিট জায়গার ছোট্ট মাঠ। সে কারণে শিক্ষার্থীরা এসেম্বলির জন্য বিদ্যালয়মুখি হয়ে জাতীয় পতাকা সামনে রেখে দাড়াতে পারেনা। বিদ্যালয় ভবনটিকে পাশে রেখে লম্বা লাইনে কোনমতে দাঁড়িয়ে এসেম্বলি করা হচ্ছে। অথচ বিদ্যালয়ের তিন পাশেই করা হয়েছে তামাক চাষ। অনেকটা যেন তামাক ক্ষেতের মাঝে অবস্থান করছে শিশু শিক্ষার্থীদের এ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটি।

৫ম শ্রেণীর শিক্ষার্থী শুভতারা চাকমা, ঝিনিকগুলো চাকমা এবং খোকন চাকমা জানায়, বিদ্যালয়ের মাঠ না থাকার কারণে কোন ধরনের খেলাধুলাই করতে পারেনা তারা, সেজন্য তাদের অনেক মন খারাপ থাকে।

বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক উদয়ন চাকমা জানান, মাঠ না থাকার কারণে জাতীয় দিবসের অনুষ্ঠানগুলোও পাশের আবাদি জমিনের মাঠে ছোট পরিসরে কোনমতে দায়সারা গোছের পালন করতে হয়। সে কারণে মুলত শিক্ষার্থীরাই সংস্কৃতি থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।

বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি শচীন বিকাশ চাকমা বলেন, ‘বিদ্যালয়ের পাশের জমির মালিক বিদ্যালয়ের জন্য কোন সহযোগীতা করছেননা। জমিটি বিক্রয় করতে বলা হলেও রাজি হয়নি। এছাড়া বিদ্যালয় ঘেঁষে তামাক চাষ করছেন যা শিশু শিক্ষার্থীদের জন্য ক্ষতিকর’। শচীন আরও বলেন, ‘তামাক পাতা শোকানোর জন্য বিদ্যালয়ের অদুরেই দুইটি তামাক চুল্লি করা হয়েছে যা আরও বেশি ক্ষতিকর।’

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •