বলরাম দাশ অনুপম/তারেকুর রহমান:

কক্সবাজার জেলা ক্রীড়া সংস্থার নতুন গঠিত কমিটির নবনির্বাচিতদের শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান বৃহস্পতিবার (২০ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে জেলা প্রশাসকের কার্যালয় এটিএম জাফর আলম সম্মেলন কক্ষে সম্পন্ন হয়েছে।
নির্বাচন কমিশনার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মাসুদুর রহমান মোল্লার সঞ্চলনায় শপথ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন, জেলা প্রশাসক মো. কামাল হোসেন। বিশেষ অতিথি ছিলেন, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) আশরাফুল আফসার, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (শিক্ষা) মো. আমিন আল পারভেজ, জেলা ক্রীড়া অফিসার মো. আফাজ উদ্দিন প্রমুখ।

ক্রীড়া সংস্থার নতুন কমিটির সকল সদস্যকে শপথ বাক্য পাঠ করান- জেলা প্রশাসক মো. কামাল হোসেন। পরে বক্তব্য রাখেন সহ-সভাপতি অধ্যক্ষ জসিম উদ্দিন, অনুপ বড়–য়া অপু, সাধারণ সম্পাদক- জসিম উদ্দীন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক হেলাল উদ্দিন কবির, অতিরিক্ত সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল করিম মাদু। সদস্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, পরেশ কান্তি দে ও ইশতিয়াক আহমদ জয়।
মো. কামাল হোসেন বলেন, ‘যারা ভোট দিয়ে আপনাদের নির্বাচিত করেছেন, ক্রীড়া উন্নয়নের জন্য আপনাদের উপর আস্থা রেখে যারা রায় দিয়েছেন, তাদের সেই আস্থাকে যথাযথ মূল্যায়ন করে নিজেরা একে অপরের প্রতি আন্তরিক হয়ে কাজ করে যাবেন। খেলোয়াড়দের প্রশিক্ষণের জন্য আমাদের জিমনেশিয়ামের ব্যবস্থা করতে হবে। সরকারিভাবে যে গোল্ডকাপগুলো হয় সেগুলোসহ বিভিন্ন ইভেন্ট অনুযায়ী খেলা চার্ট তৈরী করতে হবে। নান্দনিকভাবে জেলা প্রশাসন গোল্ডকাপ আয়োজনসহ জেলার সকল কৃতি খেলোয়াড়দের নিয়ে মিলাদ অনুষ্ঠানের আয়োজন করতে হবে। ক্রীড়া উন্নয়নের জন্য যেখানে যে সমস্যা দেখা যায় তা সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় সমাধান করতে হবে।’

অনুপ বড়–য়া অপু বলেন, ‘ক্রীড়াঙ্গন উজ্জীবিত রেখেছি, উজ্জীবিত রাখবো’ জেলা ক্রীড়া সংস্থার নতুন কমিটিতে যারা বিজয়ী হয়ে এসেছেন তাদের সকলকে অভিনন্দন জানাই। পাশাপাশি বিজীত প্রার্থীদেরও অভিনন্দন জানাচ্ছি, তাদের স্বতঃস্ফূর্ত অংশগ্রহণ ও সহযোগিতায় এ নির্বাচন প্রাণচাঞ্চল্য ও সুন্দর হয়েছে। আমরা জানি, জেলা ক্রীড়া সংস্থা পুরো কক্সবাজারের ক্রীড়াঙ্গনের মূল স্তম্ভ। ক্রীড়া উন্নয়নে আয়োজন ও প্রশিক্ষণের ক্ষেত্রে জেলা ক্রীড়া সংস্থা খুবই আন্তরিক। মুজিব বর্ষের অঙ্গিকার হিসেবে ক্রীড়াকে সবার মনে লালিত করে ইতিহাস, ঐতিহ্য ও সুনামের ধারাবাহিকতা বজায় রেখে এগিয়ে যাবে কক্সবাজার জেলা ক্রীড়া সংস্থা।’ কক্সবাজারাবসীর দীর্ঘদিনের প্রত্যাশা- ইনডোর জিমনেশিয়ামের কাজসহ, নতুন গ্যালারী নির্মাণ, মাঠ সংস্করণের কাজ শুরু হয়েছে বলে ক্রীড়াঙ্গনকে সুখবরও দেন সাবেক এই সাধারণ সম্পাদক।

নতুন কমিটির সাধারণ সম্পাদক জসিম উদ্দিন বলেন, ‘যাদের সহযোগিতায় সুষ্ঠু নির্বাচন উপহার পেয়েছি তাদের ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করছি। দীর্ঘ ৪০ বছর ক্রীড়ার সাথে যুক্ত থেকে ক্রীড়ার উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছি। জেলা ক্রীড়ার সুখে দুঃখে পাশে ছিলাম এবং পাশে থাকার আরো বেশি অনুপ্রেরণা পেলাম। আমার সর্বোচ্চ গোলের রেকর্ড এখনো কক্সবাজার স্টেডিয়ামে কেউ ভাঙতে পারেনি। ফুটবল আমার হৃদয়ে ওৎপ্রোতভাবে জড়িয়ে আছে। এবার জেলা প্রশাসনের গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের ঝাকজমক আয়োজনের মধ্য দিয়ে আমি আমার কার্যক্রম শুরু করতে চাই। আর্চারি, শুটিং, গল্ফ, বাস্কেটবলের আয়োজনসহ সকলের সম্মিলিত সহযোগিতায় জেলা ক্রীড়া সংস্থাকে আরো সৌন্দর্যমন্ডিত করতে চাই।’
এসময় বিভিন্ন পদে নিবার্চিত প্রার্থী ও সাংবাদিকরা উপস্থিত ছিলেন।

চার বছর মেয়াদি এবারের নতুন কমিটিতে যারা আছেন-
সহ-সভাপতি – আবছার উদ্দিন, অধ্যক্ষ জসিম উদ্দিন, অনুপ বড়–য়া অপু এবং বিজন বড়–য়া।
সাধারণ সম্পাদক- জসিম উদ্দীন, অতিরিক্ত সাধারণ সম্পাদক- মাহমুদুল করিম মাদু, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক- শাহিনুল হক মার্শাল এবং হেলাল উদ্দিন কবির।
কোষাধ্যক্ষ- একেএম রাশেদ হোছাইন নান্নু ।
সদস্য যথাক্রমে- হারুন অর রশিদ, অধ্যাপক মোহাম্মদ জসিম উদ্দিন, শোয়েব ইফতেখার, ওসমান সরওয়ার আলম, মুহাম্মদ জাহেদ উল্লাহ, সাংবাদিক মুহাম্মদ মাহাবুবুর রহমান (এমআর মাহাবুব), ওমর ফারুক ফরহাদ, আমিনুল ইসলাম মুকুল, পরেশ কান্তি দে, রতন দাশ, ইশতিয়াক আহমেদ জয়, আলী রেজা তসলিম, আজমল হুদা, মোহাম্মদ খোরশেদ আলম।
উপজেলা ক্রীড়া সংস্থার প্রতিনিধি নাসির উদ্দিন ও আশরাফুল আজিজ সুজন।
মহিলা ক্রীড়া সংস্থার প্রতিনিধি (সংরক্ষিত আসন)- খালাদা জেসমিন ও আয়েশা সিরাজ।
প্রসঙ্গত, গত ১৫ ফেব্রুয়ারি সকাল ৮ থেকে বেলা ১ টা পর্যন্ত সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে ভোট গ্রহণ চলে, ভোট শেষে সন্ধ্যায় নির্বাচন কমিশনার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মাসুদুর রহমান মোল্লা নির্বাচনের ফলাফল ঘোষণা করেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •