মোঃ জয়নাল আবেদীন টুক্কু :
কক্সবাজারের রামু উপজেলার ফঁতেখার কুল ইউনিয়ন থেকে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে  গোয়েন্দা সংস্থা কর্তৃক ৬ রোহিঙ্গাকে আটক করা হয়েছে। বুধবার (১৯ ফেব্রুয়ারী) বেলা ১২ টার দিকে রামু উপজেলা গেইটের উত্তরে বড়ূয়া পাড়া আদর্শ সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়।

আটককৃতরা হলেন, উখিয়া কুতুপালং শরনার্থী ক্যাম্পের সুলতান আহম্মদের পুত্র রাইহাবুল্লাহ (২২) মোঃ আলীর পুত্র মোঃ রহিম উল্লাহ (১৭) আহাম্মদ হোছাইনের পুত্র আবু বক্কর ছিদ্দিক (২৮) ইউনুছ আহম্মদের পুত্র সব্বির আহম্মদ (১৯) ওসমান আহম্মদের পুত্র মোঃ ফোরকান (২০) আলী আহম্মদের পুত্র মোঃ জাবেদ (১৮)।

আটক রোহিঙ্গা ফোরকান জানান,কুতুপালং টমটম চালকের সাথে প্রতি জন ৪০০ টাকা ভাড়ায় রামু বাইপাস এনে দেওয়া চুক্তি করেন। সেখানে আসার পথে রামুর কিছু ছিন্তাইকারী তাদের টমটম গাড়ীটি জিম্মি করে রামুর বড়ূয়া পাড়া নিয়ে তাদের মারধর করে দুইটি ২৪ হাজার টাকা দামের মোবাইল সেট ও নগদ ২ হাজার টাকা লুট করে পালিয়ে যায়।

রামুর দায়িত্বে থাকা এক বিশেষ সংস্থার সদস্য  জানান,উখিয়া কুতুপালং শরণার্থী ক্যাম্প থেকে তারা পালিয়ে আসার সংবাদের ভিত্তিতে আটক করতে সক্ষম হই।এর পর আটককৃতদেরকে রামু উপজেলা নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট ও নির্বাহী অফিসার প্রনয় চাকমার আদালতে হাজির করা হলে তিনি ভ্রাম্যমান আদালতের দঃবিঃ ১৮৬০ এর ১৮৮ ধারা মোতাবেক তাদেরকে ১ মাসের সাজা প্রদান করেন।

একই দিন বিকাল ৫ টায় পুলিশ সাজা প্রাপ্ত ৬ রোহিঙ্গাকে কারাগারে প্রেরণ করেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার প্রনয় চাকমা জানান,গ্রামে ছড়িয়ে-ছিটিয়ে পড়া রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে ধরপাকড় অব্যাহত থাকবে। কোন রোহিঙ্গাকে রামু এলাকায় পাওয়া গেলে, আইন শৃংখলা বাহিনীকে সোপর্দ্দ করার আহবান জানান তিনি।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •