আলমগীর মানিক,রাঙামাটি:
গ্রুফ থিয়েটার ফেডারেশন এর উদ্যোগে পার্বত্য জেলা রাঙামাটিতে উৎসবমুখর পরিবেশে শুরু হয়েছে তিনদিনব্যাপী জাতীয় নাট্যোৎসব। সোমবার (১৭ফেব্রুয়ারি) সন্ধ্যায় শহরের শিল্পকলা একাডেমী মিলনায়তনে মঙ্গল প্রদীপ প্রজ্জলনের মাধ্যমে এই নাট্যোৎসবের শুভ উদ্বোধন করেন রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বৃষ কেতু চাকমা।
রাঙামাটি পার্বত্য জেলা পরিষদ সদস্য ও শিল্পকলা একাডেমির আহবায়ক মনোয়ারা আক্তার জাহানের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন জেলা শিল্পকলা একাডেমির সহ-সভাপতি প্রবীন সাংবাদিক সুনীল কান্তি দে, গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশনের সদস্য শহীদুল করিম মিন্টু, রাঙামাটির বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যাক্তি কবি সাহিত্যক মোঃ জানে আলম। স্বাগত বক্তব্য রাখেন শিল্পকলা একাডেমির সাধারণ সম্পাদক মুজিবুল হক বুল বুল।
অনুষ্ঠানে বক্তাগণ বলেন, বর্তমান সাংস্কৃতি বান্ধব সরকার নাট্যকর্মীদের সকল দাবীর প্রতি আন্তরিক। নাট্য উৎসবসহ সকল প্রকার নাট্য এবং সাংস্কৃতিক আয়োজনে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় ও বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির মাধ্যমে সহযোগিতা করে যাচ্ছে বর্তমান সরকার। সরকার সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডকে বিশ্বমানের ও সময় উপযোগী করে তোলার প্রয়াসে সারাদেশে উপজেলা পর্যায় পর্যন্ত শিল্পকলা একাডেমির বিস্তার ঘটিয়েছেন। এটি প্রান্তিক মানুষের কাছে সংস্কৃতিকে পৌঁছে দেয়ার এক মহান প্রয়াস।
উদ্বোধনী দিনে চট্টগ্রামের ভিশন প্যান্টামাইন গ্রুপ থিয়েটার সংগঠন মুকাভিনয় ও চট্টগ্রামের সমীরকরণ থিয়েটার মঞ্চায়ন করে নাটক “এই কি স্বাধীনতা”। আগামী ১৮ ফেব্রুয়ারি কুমিল্লার ভিক্টোরিয়া কলেজ থিয়েটার মঞ্চায়ন করবে “যখন বৃত্তের বাইরে” এবং ১৯ ফেব্রুয়ারি রাঙামাটি জুমফুল থিয়েটার “উমাচরণ”মঞ্চায়নের মধ্য দিয়ে শেষ হবে ৩দিন ব্যাপী জাতীয় নাট্যোৎসবের। এরআগে জেলা শিল্পকলা একাডেমির নৃত্যশিল্পীদের পরিবেশনায় পরিবেশিত হয় নৃত্যানুষ্ঠান।

  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •