বিএজেড জাহাঙ্গীর আলম:

শিক্ষা ছাড়া যেমন মনের অজ্ঞতা দূর করা যায় না, তেমনি ভ্রমণ ছাড়াও জিঘাংসা সম্পূর্ণ হয় না। অজানাকে জানতে, পাহাড় -সাগর-প্রকৃতির মিতালীর সম্পর্কে জ্ঞান অর্জনে কক্সবাজার সিটি কলেজের এইচএসএসসি-বিজ্ঞান বিভাগ “শিক্ষার আলোয় ঘুচুক অাঁধার, আগামীর দিন শুধুই সম্ভাবনার….” প্রতিপাদ্যকে ধারণ করে বিজ্ঞান বিভাগ শিক্ষা সফর কমিটি ২০২০ এর আহবায়ক এবং রসায়ন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মো. অাশফাকুর রহমান, কমিটির সদস্য পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক জাহাঙ্গীর আলম এবং কমিটির সদস্য বায়োকেমিস্ট্রি বিভাগের প্রভাষক কামরুন্নাহের সার্বিক ব্যবস্থাপনায় ১৬/২/২০ ইং সকাল ১০.০০ টায় শীপে চড়ে মহেশখালী আদিনাথ মন্দির – সোনাদিয়া দ্বীপ – কলাতলী বীচ – শুটকী পল্লী নাজিরার টেকের উদ্দেশ্যে রাওয়ানা দেন।
সকাল ১১টায় আদিনাথ মন্দির জেটি ঘাটে শীপ পৌছে। শিক্ষার্থীরা সনাতন ধর্মাবলম্বীদের অতিপ্রাচীন মন্দির – অদিনাথ মন্দির দর্শন করে এবং এই মন্দিরের ইতিহাস-ঐতিহ্য সম্পর্কে জানার চেষ্টা করে।তারা দক্ষিণ এশিয়ার অন্যতম মন্দির দর্শন ও তার ইতিহাস-ঐতিহ্য সম্পর্কে জানতে পেরে খুব আনন্দিত। দুপুর ২ টার দিকে ভোজন পর্ব শেষ করে আবার শীপ, বাংলাদেশের অন্যতম সোনালী দ্বীপ সোনাদিয়ার উদ্দেশ্যে যাত্রা শুরু করে। শিক্ষার্থীরা লাল কাঁকড়া, সোনাদিয়ার ম্যানগ্রোভ বন, সামুদ্রিক জলরাশির নির্ঝর খেলা, সাগরের মাঝ থেকে বিশ্বের দীর্ঘতম সমুদ্র সৈকত সংলগ্ন কলাতলী বীচের টোটাল ভিউ দেখে রোমাঞ্চিত।
পরে শুটকী পল্লীখ্যাত নাজিরারটেক দর্শনের মধ্যে দিয়ে শীপ কক্সবাজার শীপ ঘাটে পৌছে।
প্রকৃতি – জলরাশি – ধর্মীয় উপসানালয় – পাহাড় – ম্যানগ্রোভ ফরেস্ট – লাল কাঁকড়া – কলাতলী বীচের টোটাল ভিউ এবং নাজিরারটেকের শুটকি পল্লীর সাথে বিজ্ঞানের অভূতপূর্ব সম্পর্ক, যা শিক্ষার্থীদের জিঘাংসার পরিধিকে সত্যিই বিস্তৃত করে। শিক্ষার্থীরা, আনন্দিত, রোমাঞ্চিত, আপ্লুত এত সুন্দর এবং সুশৃঙ্খল একটি ট্যূর সম্পন্ন করতে পেরে।
বিজ্ঞান বিভাগের ট্যূর কমিটি এবং শিক্ষার্থীরা কক্সবাজার সিটি কলেজের অধ্যক্ষ এবং উপাধ্যক্ষের প্রতি কৃতজ্ঞতা ও ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন এতো সুন্দর একটি শিক্ষা সফরের সুযোগ করে দিয়ে তাদের জ্ঞান ভান্ডারকে সমৃদ্ধ করার সুযোগ করে দেওয়াতে।
উপাধ্যক্ষ মহোদয় স্বয়ং ট্যূরে উপস্থিত থাকায় এবং গণিত বিভাগের সহকারী অধ্যাপক আরিফুল ইসলাম, বাংলা বিভাগের প্রভাষক নাজমা আকতার, পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের প্রভাষক মু. অাজম উদ্দীন কুতুবী, গণিত বিভাগের প্রভাষক আব্দুল্লাহ আল মামুন, রসায়ন বিভাগের প্রভাষক রশিদ আহমেদ, টূরে সার্বিক সহযোগিতা করার জন্য এবং উপস্থিত থেকে আনন্দের মাত্রা দ্বিগুণ-তিন গুণ বাড়িয়ে দেওয়ার জন্য এবং শীপ কতৃপক্ষের অমায়িক সহযোগিতার জন্য ট্যূর কমিটি এবং শিক্ষার্থীরা তাদের প্রতি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •