মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

কক্সবাজারের সার্বিক উন্নয়নের প্রশ্নে দেশের আইনকানুন মেনে, মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনা মতো যেভাবে অগ্রসর হচ্ছি, সেভাবেই অগ্রযাত্রা অব্যাহত থাকবে ইনশাআল্লাহ। বুকে গুলি না আসা পর্যন্ত সেই নীতি, আদর্শ ও নির্দেশনা থেকে বিন্দু পরিমানও বিচ্যুত হবোনা। কারো সাথে আপোষ করবো না। এই লক্ষে পৌঁছাতে সবার সহযোগিতা ও দোয়া চাই।

কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান (যুগ্ন সচিব) লে. কর্নেল (অব.) ফোরকান আহমেদ শহরের দক্ষিণ রুমালিয়ার ছরা কক্স ক্যামব্রিয়ান স্কুলের বার্ষিক ক্রীড়া, সাহিত্য ও সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ কথা বলেন।

কক্স ক্যামব্রিয়ান স্কুলের পরিচালক কমিটির সভাপতি আতাউর রহমান বুলবুলের সভাপতিত্বে গত ১২ ও ১৩ ফেব্রুয়ারি স্কুল ক্যাম্পাসে এসব প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হয়। এতে বিদ্যালয়ের ক্ষুদে শিক্ষার্থীরা মোট ৪৫টি ইভেন্টে ক্রীড়া, সাহিত্য ও সাংষ্কৃতিক প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে নিজ নিজ প্রতিভাকে মেলে ধরে বিজয় লাভ করে।

১ম দিন প্রতিযোগিতার উদ্বোধক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন কক্সবাজার সরকারী কলেজের অধ্যক্ষ প্রফেসর এ.কে.এম ফজলুল করিম চৌধুরী। বিশেষ অতিথি উপস্থিত ছিলেন-কক্সবাজার শেখ রাসেল শিশু প্রশিক্ষণ ও পূণর্বাসন কেন্দ্রের উপ- পরিচালক জেসমিন আক্তার, এডভোকেট মীর মোশাররফ হোসেন, জিএম মোজাহিদ চৌধুরী। ২য় দিনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন-কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের মাননীয় চেয়ারম্যান লে. কর্ণেল (অব:) ফোরকান আহমদ। প্রধান অতিথির বক্তব্যে কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের মাননীয় চেয়ারম্যান লে. কর্ণেল (অব:) ফোরকান আহমদ আরো বলেন, শিশুদেরকে সুনাগরিক হিসেবে গড়ে তোলার জন্য শিক্ষকদের পাশাপাশি মায়েরা অনন্য ভূমিকা পালন করে যাচ্ছে। যা অত্যন্ত প্রশাংসার দাবিদার। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি উপস্থিত ছিলেন, কক্সবাজার সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মোঃ নাছির উদ্দিন, কক্সবাজার সদর উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান রশিদ মিয়া, কক্সবাজার জেলা ও দায়রা জজ আদালতের আইনজীবী মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী। বক্তারা স্কুলের পাঠদান ও ক্রীড়া ও সাহিত্য সাংস্কৃতিক কার্যক্রম সহ সকল কার্যক্রমে অত্যান্ত দক্ষতার পরিচয় দিয়ে যাচ্ছে এবং কক্স ক্যামব্যিয়ান স্কুল অল্প সময়ের মধ্যেই দক্ষতার পরিচয় দেওয়ার কারণে অভিভাবকরা স্কুলের প্রতি যে আগ্রহ দেখাচ্ছে তা অবশ্যই নজিরবিহীন। অভিভাবকরা বিদ্যালয়ের পাঠদান কার্যক্রমের প্রশংসা করে বলেন- অত্র স্কুল দক্ষিণ রুমালিয়ার ছরাকে আলোকিত করতে গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা পালন করে যাচ্ছে। অতিথিদের বক্তব্যের পর পরই বৃত্তি, লেখাপড়া, ফলাফল, ক্রীড়া ও সাহিত্য সংস্কৃতিক প্রতিযোগিতায় সাফল্য অজন্যকারী ক্ষুদে শিক্ষার্থীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেয়া হয়। এতে স্কুলের প্রধান শিক্ষক কফিল উদ্দিন সূচনা বক্তব্য রাখেন। বৃত্তি প্রাপ্তদের পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন ফাওজিয়া হাকিম তানাছ, প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের পক্ষ থেকে বক্তব্য রাখেন কক্সবাজার সরকারী বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের ১০ শ্রেণির বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্রী নাজিফা হাকিম তাইছি। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন সহকারী শিক্ষক জুয়েল রানা ও নুরুল আমিন। অনুষ্ঠানে বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষিকা সাবিহা ইয়াছমিন কাজল, মোনতাহা মোস্তফা, মুমতাহিনা হাসনাত , হামিদুল হক, ছাত্র-ছাত্রী ,অভিভাবক ও এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •