দৌলতদিয়ায় প্রথা ভেঙে যৌনকর্মীর জানাজা পড়ালেন মসজিদের ইমাম

সিবিএন ডেস্ক: বাংলাদেশে যৌনকর্মীদের জন্য গত ৬ই ফেব্রুয়ারি বৃহস্পতিবার ছিল এক মোড় ঘোরানো অধ্যায়।

রাজবাড়ির দৌলতদিয়ায় বহু পুরনো যৌন-পল্লীতে প্রথমবারের মত একজন যৌনকর্মীর পুরোপুরি ইসলামি প্রথা মেনে জানাজা পড়িয়ে দাফন হয়েছে। পরে চেহলামেরও আয়োজন করা হয়।

প্রয়াত যৌনকর্মী হামিদা বেগমের জানাজায় হাজির ছিলেন প্রায় দুশ মানুষ। আর চেহলামের দাওয়াতে সাড়া দিয়েছিলেন চারশোরও বেশি লোক।

যদিও যৌন ব্যবসা বাংলাদেশে বৈধ, কিন্তু যৌনকর্মীরা কার্যত অচ্ছুত। মৃত্যুর পর ধর্ম-মতে তাদের দাফন-কাফনের নজির একেবারেই বিরল।

যৌনকর্মীদের মৃত্যু হলে তাদের জানাজা পড়াতে মৌলভিরা রাজী হননা। সাধারণত মৃত যৌনকর্মীদের গোপনে কবর দেয়া হয়, অথবা মৃতদেহ নদীতে ভাসিয়ে দেওযা হয়।

কিন্তু গত সপ্তাহে দৌলতদিয়া ঘাটে হামিদা বেগমের ক্ষেত্রে যা ঘটেছে, তা সত্যিকার অর্থেই ব্যতিক্রম।

পদ্মাপারের এই যৌন-পল্লীটি বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় এবং শত বছরের পুরনো । এখানকার বাসিন্দাদের মতে, কোনো যৌনকর্মীর জানাজা করে দাফন বা তারপর চেহলামের ঘটনা আগে কখনও হয়নি।

হামিদা বেগমের জানাজা পড়াতে ইমামকে রাজী করাতে ভূমিকা রেখেছিলেন স্থানীয় পুলিশ প্রধান আশিকুর রহমান।

তাকে উদ্ধৃত করে বার্তা সংস্থা এএফপি জানিয়েছে, “ইমাম প্রথমে জানাজা পড়াতে রাজী হচ্ছিলেন না। আমি তাকে বললাম, ইসলামে কি কোথাও নির্দেশ আছে যে যৌনকর্মীর জানাজা পড়ানো নিষেধ। আমার এই প্রশ্নের কোনো উত্তর ইমাম সাহেবের ছিলনা।”

পরে ঐ ইমাম জানাজা পড়াতে রাজী হন।

মি রহমান বলেন, “অভূতপূর্ব দৃশ্যের অবতারণা হয়েছিল সেদিন। জানাজায় অংশ দিতে অনেক মানুষ অনেক রাত পর্যন্ত অপেক্ষা করেছিলেন। যৌনকর্মীদের চোখে পানি টলটল করছিল।”

ঝুমুর বেগম নামে স্থানীয় যৌনকর্মীদের একজন নেত্রী হামিদা বেগমের জানাজা পড়ানোর দাবিতে সোচ্চার হয়েছিলেন।

মৃত্যুর পর যৌনকর্মীদের করুণ পরিণতি সম্পর্কে তিনি বলেন, “আমরা যদি কাউকে দাফন করতে যেতাম, গ্রামবাসীরা লাঠিসোঁটা নিয়ে আমাদের তাড়া করতো।”

প্রয়াত হামিদা বেগমের মেয়ে লক্ষ্মী, যিনি নিজেও একজন যৌনকর্মী, এএফপিকে বলেন, “আমি স্বপ্নেও ভাবিনি যে এত সম্মানের সাথে আমার মায়ের শেষ বিদায় হবে।।”

“আমাকে মাকে মানুষ হিসাবে বিবেচনা করা হয়েছে” – বলেন তিনি।

সর্বশেষ সংবাদ

চকরিয়ায় স্বৈরাচার বিরোধী ছাত্র গণআন্দোলনের অগ্রনায়ক শহীদ দৌলত খাঁন

বাঙালিকেই প্রথম বাংলা ভাষা ও একটি দেশ দিয়েছিলেন বঙ্গবন্ধু: ড. অনুপম সেন

সবার সহযোগিতা আর ব্যবহারে বাংলা ভাষা প্রাণ পাবে: বিভাগীয় কমিশনার

নগরীতে মেশিন বিস্ফোরিত হয়ে ট্রাফিক সার্জেন্ট দগ্ধ

মহিলাটির সন্ধান দিন

মুজিব শতবর্ষে দাঙ্গাবাজ মোদির আগমণ বঙ্গবন্ধুর অসাম্প্রদায়িক চেতনাকে কুঠারাঘাত করবে

জেলা বারের নির্বাচন কাল, লড়াই হবে হাড্ডাহাড্ডি

দিল্লিতে মুসলিম গণহত্যার প্রতিবাদে কক্সবাজারে হেফাজতের বিক্ষোভ শনিবার

এডভোকেট বাবু বিভূতি শর্মার প্রয়াণে শোক

ঈদগাঁও বাজারের নির্বাচন সম্পন্ন

কক্সবাজারের সামুদ্রিক শৈবাল রপ্তানী হচ্ছে কুরিয়া, চীন ও ইন্দোনেশিয়ায়

কাঠের সেতু খোলা-বাঁধায় জীবন চলে লক্ষাধিক মানুষের

রামুর কাউয়ারখোপের সাবেক চেয়ারম্যান হানিফ মাষ্টার আর নেই

নূরুল হুদা চৌধুরীর মৃত্যুতে জেলা বিএনপির শোক

বেগম জিয়া এখন হাঁটতে পারেন না, দাঁড়াতে পারেন না

সত্যপ্রিয়মহাথের’র জাতীয় অন্ত্যেষ্টিক্রিয়া কাল

বেনাপোলে ৪৭ বোতল ভারতীয় ফেন্সিডিল উদ্ধার

নাইক্ষ্যংছড়ি বিজিবি স্কুলের ১৪ শিক্ষার্থীর বৃত্তি লাভ

প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচ. টি. ইমাম কক্সবাজারে

শনিবার জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচন : জয়ের ব্যাপারে সকলে আশাবাদী