সিবিএন ডেস্ক:
দিন দিন প্রাণ-প্রকৃতির জন্য হুমকি হয়ে উঠছে বায়ুদূষণ। হচ্ছে অস্বাভাবিক মৃত্যু। প্রতি বছর বায়ুদূষণের কারণে শুধু বাংলাদেশে মারা যাচ্ছে প্রায় এক লাখ মানুষ। জীবাশ্ম জ্বালানির কারণে যে দূষণ হচ্ছে, তাতে প্রতিদিন বিশ্বজুড়ে আট বিলিয়ন ডলার ক্ষতি হচ্ছে।
বুধবার পরিবেশভিত্তিক গবেষণা সংস্থা সেন্টার ফর রিসার্চ অন এনার্জি অ্যান্ড ক্লিন এয়ার ও গ্রিনপিস সাউথইস্ট এশিয়ার এক প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে এসেছে। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, যুক্তরাষ্ট্র, ভারত ও চীনে জীবাশ্ম জ্বালানির ব্যবহারে সর্বোচ্চ ক্ষতি হচ্ছে, যা যথাক্রমে বছরে ৬০০, ১৫০ ও ৯০০ বিলিয়ন ডলার।
গবেষকরা জানিয়েছেন, জীবাশ্ম জ্বালানির ব্যবহারের ফলে বিশ্বে প্রতি বছর অস্বাভাবিক মৃত্যু ঘটছে প্রায় ৪৫ লাখ মানুষের। যার মধ্যে রয়েছে চীনে ১৮ লাখ এবং ভারতে ১০ লাখ। তবে এ গবেষণার মধ্যেই বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছে, বায়ুদূূষণের প্রভাবে প্রতি বছর বিশ্বে ৪২ লাখ মানুষের মৃত্যু হচ্ছে। তাদের মধ্যে বেশিরভাগ হৃদরোগ, মস্তিস্কে রক্তক্ষরণ, ফুসফুসে ক্যান্সার ও শ্বাসযন্ত্রের অসুস্থতায় ভুগছে। তারা আরও জানান, ভারতের নয়াদিল্লিতে বায়ুদূষণের প্রভাব সবচেয়ে বেশি।
গবেষকরা জানান, প্রতি বছর প্রায় ৪০ হাজার শিশু বায়ুদূষণের কারণে অ্যাজমায় আক্রান্ত হয়ে মারা যাচ্ছে। অস্বাভাবিক মৃত্যুর সংখ্যাও বাড়ছে। ইউরোপীয় ইউনিয়নে প্রায় চার লাখ, যুক্তরাষ্ট্রে দুই লাখ ৩০ হাজার, বাংলাদেশে ৯৬ হাজার এবং ইন্দোনেশিয়ায় ৪৪ হাজার মানুষ প্রতি বছর বায়ুদূষণের কারণে মারা যাচ্ছে। এর প্রভাবে চীন, যুক্তরাষ্ট্র, ভারত, জার্মানি, জাপান, রাশিয়া ও যুক্তরাজ্যের অর্থনীতি প্রতি বছর ধাক্কা খাচ্ছে। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্য অনুযায়ী, বায়ুদূষণের ফলে বিশ্বে ২৯ শতাংশ মানুষ ফুসফুস ক্যান্সারে, ১৭ শতাংশ শ্বাসযন্ত্রের অসুস্থতায় এবং ৭৫ শতাংশ হৃদরোগ ও মস্তিস্কে রক্তক্ষরণে আক্রান্ত হচ্ছে।
গ্রিনপিস সাউথইস্ট এশিয়ার নির্মল বাতাসের পক্ষের প্রচারক মিনয়ু সন বলেন, ‘জীবাশ্ম জ্বালানি থেকে বায়ুদূষণ স্বাস্থ্যের জন্য ক্ষতিকর। এ কারণে কোটি কোটি মানুষের জীবনের নিরাপত্তা দিতে ট্রিলিয়ন ট্রিলিয়ন ডলার ব্যয় করতে হচ্ছে।’ তিনি আরও বলেন, ‘এর সমাধান আমরা জানি। আমাদের নবায়নযোগ্য জ্বালানির দিকে ঝুঁকতে হবে। ডিজেল ও পেট্রোলের ওপর নির্ভরশীলতা কমাতে হবে এবং গণপরিবহনকে ঢেলে সাজাতে হবে।’
সেন্টার ফর রিসার্চ অন এনার্জি অ্যান্ড ক্লিন এয়ার ও গ্রিনপিস সাউথইস্ট এশিয়ার ৪৪ পৃষ্ঠার ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২০১৮ সালে সারাবিশ্বে বায়ুদূষণে ক্ষতির পরিমাণ ছিল ২ দশমিক ৯ ট্রিলিয়ন ডলার। জীবাশ্ম জ্বালানিকে কেন্দ্র করে ক্রমাগত বায়ুদূষণের ফলে বিশ্বের অর্থনীতিতে ব্যয় এবং অস্বাভাবিক মৃত্যুর হার বেড়ে গেছে। সূত্র:এএফপি

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •