ছৈয়দ আলম ও হেলাল উদ্দিনঃ    
সাগরপথে অবৈধভাবে মালয়েশিয়া যাওয়ার পথে বঙ্গোপসাগরের সেন্টমার্টিনের অদূরে ট্রলার ডুবির ঘটনা ঘটেছে।
মঙ্গলবার (১১ ফেব্রুয়ারি) সকাল ১২ টা পর্যন্ত ১৫ জনের লাশ ও ৬৫ জনকে জীবিত উদ্ধার করেছে কোস্টগার্ড ও নৌবাহিনী।
ট্রলার ডুবির ঘটনায় এখনো অনেকে নিখোঁজ রয়েছে। তাদের উদ্ধারে অভিযান চালাচ্ছে কোস্টগার্ড ও নৌবাহিনী।
নিহতের সংখ্যা আরও বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। কোস্ট গার্ড জানিয়েছে, ট্রলারে ১২৫ জন ছিলেন। তারা সবাই রোহিঙ্গা।  তাদেরকে সেন্টমার্টিন জেটিঘাটে নিয়ে আসা হয়েছে।

স্থানীয় সংবাদকর্মী আবদুল মালেক জানান, এ পর্যন্ত ১৩ জনের মৃতদেহ দেখা যাচ্ছে। জীবিত উদ্ধারকারীদের বিভিন্ন সহযোগিতা ও প্রাথমিক চিকিৎসা দিচ্ছে সাধ্যমত সবাই।

জীবিত উদ্ধারকৃত রোহিঙ্গাদের একাংশ

জানা যায়, গতকাল রাতে টেকনাফ উপকূল দিয়ে দুটি ট্রলার মালয়েশিয়ার উদ্দেশে রওনা হয়। মঙ্গলবার সকাল সাতটার দিকে সাগরের পাথরের সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে একটি ট্রলার ডুবে যায়। এতে এই হতাহতের ঘটনা ঘটে।
উদ্ধার করা কয়েকজন রোহিঙ্গা জানায়, দালালদের মাধ্যমে রোহিঙ্গা শরণার্থীশিবির থেকে বের হয়ে তারা মালয়েশিয়া যাচ্ছিলেন।

টেকনাফ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রদীপ কুমার দাস ট্রলারডুবির বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, ডুবে যাওয়া ট্রলারের বেশিরভাগই রোহিঙ্গা বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •