টেকনাফ সংবাদদাতা:
টেকনাফে নির্মাণাধীন সীমান্ত সুরক্ষা সড়ক পরিদর্শন করেছেন পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক। শনিবার (১ ফেব্রুয়ারি) সড়কটি পরিদর্শন এর আগে প্রতিমন্ত্রী বান্দরবান এবং উখিয়া-টেকনাফের সীমান্ত এলাকা ঘুরে দেখেন।

এ সময় প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘দেশের সুরক্ষা বাড়ানোর লক্ষ্যেই বাংলাদেশ-মিয়ানমার সীমান্তে সুরক্ষা বাঁধ তথা সড়কের কাজ দ্রুতগতিতে এগিয়ে চলছে। যেভাবে কাজ হচ্ছে তাতে আশা করি, ২০২১ সালের মধ্যে এটির নির্মাণ সম্পন্ন হবে। এতে সীমান্তরক্ষী বিজিবির সদস্যরা জোরালো ভূমিকা রাখতে পারবে। দেশের সীমান্তের সুরক্ষা নিশ্চিত করার জন্য এই সড়ক নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছে সরকার। পাশাপাশি সড়কটি নির্মিত হলে মাদক-চোরাচালান, রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশসহ সীমান্তের সব অপরাধ রোধ করা সম্ভব হবে।’

এ সময় উপস্থিত ছিলেন– পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মাহমুদুল হাসান, অতিরিক্ত মহাপরিচালক এএম আমিনুল হক, পানি উন্নয়ন বোর্ড চট্টগ্রাম জোনের প্রধান প্রকৌশলী মীর মোশারফ হোসেন, কক্সবাজারের নির্বাহী প্রকৌশলী প্রবীর কুমার গোস্বামী ও টেকনাফ ২ বিজিবি ব্যাটালিয়ন অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মোহাম্মদ ফয়সল হাসান খান (পিএসসি) প্রমুখ।

এদিকে পানি উন্নয়ন বোর্ড কক্সবাজার কার্যালয়ের তথ্যমতে, বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি ঘুমধুম এলাকা থেকে শুরু করে উখিয়ার পালংখালী হয়ে টেকনাফের নাফনদীর কূলঘেঁষে শাহপরীর দ্বীপ পর্যন্ত ৬১ কিলোমিটার সীমান্ত সুরক্ষা বাঁধ তথা সড়ক নির্মাণ করা হচ্ছে। এটির নির্মাণ ব্যয় ধরা হয়েছে ১৪১ কোটি টাকা। এছাড়া ১২১ কোটি ৪২ লাখ টাকা ব্যয়ে শাহপরীর দ্বীপে ৩.৩৫ কিলোমিটার টেকসই বেড়িবাঁধ নির্মাণ কাজ চলতি বছরের জুন মাসে শেষ হওয়ার কথা রয়েছে। এতে দ্বীপের মানুষ দীর্ঘদিনের দুঃখ-দুর্দশা থেকে মুক্ত হবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •