বার্তা পরিবেশক
হোটেল ভাড়াটিয়া চুক্তিনামা অস্বীকার এবং কক্সবাজার সিনিয়র সহকারী জজ আদালতের দেয়া স্থিতিবস্থা আদেশ অমান্য করে ভাড়াটিয়াকে হোটেল জামান সী-হাইটস থেকে উচ্ছেদ করার অব্যাহত অপচেষ্টা চালাচ্ছেন মালিক নামধারী ওয়াহিদুজ্জামান বাবু। শুধু তাই নয়- ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে ভাড়াটিয়ার বাবা, স্ত্রী, ভাই, ফ্ল্যাট মালিক ও হোটেল পরিচালনায় দায়িত্বরত কর্মকর্তা- কর্মচারীদের বিরুদ্ধে কক্সবাজার সদর থানায় মিথ্যা ও সাজানো মামলা দায়ের করেছেন। এই অভিযোগ- হোটেলটির ভাড়াটিয়া মালিক শাহজাহান আনসারীর বয়োবৃদ্ধ পিতা নুর মোহাম্মদ আনসারীর। নুর মোহাম্মদ আনসারী জানান- জামান প্রোপার্টিজ ডেভেলপমেন্ট এর পক্ষে হোটেল জামান সী-হাইটস মালিক ওয়াহিদুজ্জামান বাবুর সাথে হোটেলটি ৫ বছর পরিচালনার জন্য আমার ছেলে কারাবন্দী শাহজাহান আনসারী ভাড়ানামা চুক্তিপত্র সম্পাদন করে। বিগত ২০১৬ সালের ১২ ডিসেম্বর সম্পাদিত এই চুক্তির মেয়াদ শেষ হবে আগামী ২০২১ সালের ৩০ ডিসেম্বর। ফেরত যোগ্য জামানত হিসেবে বাবু নেন ২ (দুই) কোটি টাকা। কিন্তু তিন বছর পর লোভের বশবর্তী হয়ে বাবু হোটেল থেকে ফেরত যোগ্য সেলামী ও উন্নয়ন খরচের টাকা ছাড়াই উচ্ছেদ করতে চাচ্ছে।
শাহ জাহানের স্ত্রী জিগারুন্নেছা জানান-বাবু আদালতের দেয়া স্থিতিবস্তার নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে প্রশাসন ব্যবহার করে আমাদের হুমকি-ধমকি দিচ্ছে। আমার দেবরদের সন্ত্রাসী দিয়ে মারধর করেছে। ১৫ ডিসেম্বর কলিপত আজগুবি ঘটনা দেখিয়ে দেড়মাস পর ৩১ জানুয়ারী কক্সবাজার মডেল থানায় ওয়াহিদুজ্জমান বাবু অহেতুক আমাদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দায়ের করেছে। আসামী করেছে আমিসহ আমার বয়োবৃদ্ধ শ্বশুর, আমার মা, দেবর, ফ্ল্যাট মালিক ও হোটেলটির কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ ১০ জনের নামে। বর্তমানে ক্ষমতাবান বাবু আইন আদালত, চুক্তি কিছুই মানছেন না।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •