সিবিএন ডেস্ক:
৪৭ বছর সদস্য থাকার পর আনুষ্ঠানিকভাবে ইউরোপীয় ইউনিয়ন ছেড়ে বের হয়ে গেছে যুক্তরাজ্য। তিন বছর আগে এক গণভোটে ব্রিটিশ জনগণের দেওয়া রায় অনুযায়ী স্থানীয় সময় শুক্রবার রাত ১১টায় (বাংলাদেশ সময় শনিবার ভোর পাঁচটায়) কার্যকর হয়েছে বহুল আলোচিত ব্রেক্সিট। ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি জানিয়েছে, ঐতিহাসিক এই মুহূর্তটিতে যুক্তরাজ্যে যেমন উৎসব হয়েছে তেমনি এর প্রতিবাদে বিক্ষোভও হয়েছে।

প্রায় ৩ হাজার কোটি ব্রিটিশ পাউন্ড ব্যয়ে চূড়ান্ত হয়েছে ইইউ প্রত্যাহার চুক্তি। স্থানীয় সময় বুধবার (৩০ জানুয়ারি) ইউরোপীয়ান পার্লামেন্টে ৬২১-৪৯ ভোটে আনুষ্ঠানিকভাবে পাস হয় চুক্তিটি। ওই চুক্তি অনুযায়ী শুক্রবার ২৮ সদস্যের অর্থনৈতিক জোটটি থেকে বের হয়ে গেল যুক্তরাজ্য।

ব্রেক্সিট কার্যকরের মুহূর্তে লন্ডনের পার্লামেন্ট স্কয়ারে উৎসবে মেতে ওঠে এর সমর্থকরা। আর ইইউতে থেকে যাওয়ার পক্ষে ভোট দেওয়া স্কটল্যান্ডের বাসিন্দারা ব্রেক্সিটের প্রতিবাদে মোমবাতি মিছিল করেছে।

ব্রেক্সিট কার্যকরের ঘণ্টাখানেক আগে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে এক পোস্টে দেশকে ঐক্যবদ্ধ করে সামনে এগিয়ে নেওয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। তিনি বলেন, ‘বহু মানুষের কাছেই এটি বিস্ময়কর প্রত্যাশার মুহূর্ত, তাদের আশঙ্কা ছিল হয়তো এটি কখনওই আসবে না’। ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বলেন, গত ৫০ বছর ধরে ইইউ তার সব শক্তি এবং প্রশংসনীয় গুণ নিয়ে যে পথে অগ্রসর হচ্ছে তা এখন আর এই দেশের জন্য কার্যকর না। তিনি বলেন, ‘আজ রাতে এটা বলাই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ যে এটা কোনও কিছুর শেষ নয় বরং শুরু’।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •