এম.মনছুর আলম, চকরিয়া:
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সফল নেতৃত্বাধীন বর্তমান আওয়ামীলীগ সরকারের চলমান উন্নয়ন অগ্রগতির সুফল পেতে চলেছে চকরিয়া-পেকুয়া উপজেলার সর্বস্তরের জনসাধারণ। চকরিয়া-পেকুয়া আসনের সংসদ সদস্য ও চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ জাফর আলমের সার্বিক প্রচেষ্ঠায় ইতোমধ্যে দুই উপজেলার প্রতিটি জনপদে এগিয়ে চলছে ছোট-বড় একাধিক উন্নয়ন প্রকল্প। বাস্তবায়নের পথে এগিয়ে চলছে তিনটি মেগাপ্রকল্পের কাজ। তারমধ্যে দ্রুতগতিতে চলছে ছয়লেনে নতুন মাতামুহুরী সেতু নির্মাণ কাজ। আলোর পথে উদিয়মান হচ্ছে রেললাইন নির্মাণ প্রকল্পের অধীন চকরিয়া উপজেলা অংশের কাজ। পুরোদমে শুরু হয়েছে ৫৭ কোটি টাকা বরাদ্দে বরইতলী শান্তিবাজার, জিদ্দাবাজার মানিকপুর ইয়াংছা সড়ক নির্মাণ কাজ। সমাপ্তির পথে রয়েছে ২৫ কোটি টাকা বরাদ্দের বিপরীতে একশত সয্যায় উন্নীত চকরিয়া উপজেলা সরকারি হাসপাতালের নির্মাণ কাজ।

একই সময়ে উন্নয়নের মহাসড়কে এগিয়ে চলছে চকরিয়া পৌরসভার অলিগলি। বিশেষ করে চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক আলমগীর চৌধুরী মেয়র নির্বাচিত হবার পর থেকে পরিকল্পিত উন্নয়নে এগিয়ে যাচ্ছে চকরিয়া পৌরসভার অলিগলি। পৌরসভাটি প্রতিষ্ঠার পর পাঁচ মেয়াদে পৌরপরিষদ পরিবর্তনের ধারাবাহিকতায় আলমগীর চৌধুরী সর্বশেষ প্রেক্ষাপটে সরকারি দলের মেয়র হওয়ার সুবাদে তিনি সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রাণালয়ে সার্বক্ষনিক যোগাযোগ রেখে এলাকার উন্নয়নে চাহিদা মতো অর্থবরাদ্দ নিশ্চিতের মাধ্যমে উন্নয়ন কর্মকাণ্ড বাস্তবায়নে সফলতার পথে এগিয়ে রয়েছেন। নির্বাচিত হবার পর চকরিয়া-পেকুয়া আসনের সংসদ সদস্য ও চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ জাফর আলমের সার্বিক সহযোগিতায় মেয়র আলমগীর চৌধুরী গেল চার বছরে পৌরসভার উৎস কর ছাড়াও বিশ্বব্যাংকের অধীন এলজিএসপি ও এমজিএসপি প্রকল্পের আওতায় অন্তত ৮০ কোটি টাকার বিপরীতে পৌর এলাকায় প্রায় দুই শতাধিক ছোট-বড় উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ বাস্তবায়ন করেছেন। ধারাবাহিক উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের ফলে বর্তমানে চকরিয়া পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডের লক্ষাধিক মানুষ একটু দেরিতে হলেও নাগরিক সেবা পেতে শুরু করেছেন। এই অভিমত স্থানীয় নগর পরিকল্পনাবিদ ও সুধীজনদের।

উন্নয়নের মহাসড়কে এগিয়ে চলছে চকরিয়া পৌরসভা কার্যক্রমের আওতায় সর্বশেষ শুক্রবার (৩১ জানুয়ারী) দুপুরে পৌরসভার মগবাজার থেকে মৌলভীরকুম পর্যন্ত এলাকায় আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করা হয়েছে আরসিসি সড়ক ড্রেন লাইটিং নির্মাণ কাজ। বিশ^ব্যাংকের সহায়তায় ৭৬ কোটি টাকা বরাদ্দে এমজিএসপি প্রকল্পের অধীন ১২ নং প্যাকেজে ২য় গ্রুপের অন্যতম প্রকল্প চকরিয়া পৌরসভা মগবাজার রাস্তার মাথা হতে মৌলভীরকুম রাস্তার মাথা পর্যন্ত ৩ কোটি টাকা ব্যয়ে ১৫৬০ মিটার আরসিসি, ড্রেন, লাইটিং নির্মাণ কাজের উদ্বোধন করেছেন প্রধান অতিথি চকরিয়া-পেকুয়া আসনের সংসদ আলহাজ্ব জাফর আলম।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন চকরিয়া পৌরসভার মেয়র আলমগীর চৌধুরী, দিগরপানখালী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মুজিবুল হক বিএসসি, পৌরসভার সাত নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর জামাল উদ্দিন, নারী কাউন্সিলর আঞ্জুমান আরা বেগম, সমাজ সেবক জামাল উদ্দিন, চকরিয়া পৌরসভা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি আমান উল্লাহ আমান, ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি আনোয়ার হোসেন, সাধারণ সম্পাদক রফিক উদ্দিন, ঠিকাদার সমিতির সভাপতি শফিকুল কাদের ও এলাকার সুধীজন।

চকরিয়া পৌরসভার মেয়র আলমগীর চৌধুরী বলেন, নির্বাচনের সময় পৌরবাসির কাছে আমার প্রতিশ্রুতি ছিল, পরিকল্পিত উন্নয়নের মাধ্যমে চকরিয়া পৌরসভাকে একটি স্বপ্নের মেগাসিটি হিসেবে রূপান্তর করবো। পৌরবাসি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি আস্থা রেখেছেন, নৌকার প্রার্থী হিসেবে আমাকে বিজয়ী করেছেন। আমি জনগনের আস্থার প্রতিদান দিতে শপথ গ্রহণের পরদিন থেকে পৌরবাসির কল্যাণে উন্নয়নের পাশাপাশি সবধরণের সেবা নিশ্চিতে নিরলশভাবে কাজ করে যাচ্ছি।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি এমপি জাফর আলম বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সফল নেতৃত্বাধীন বর্তমান আওয়ামীলীগ সরকারের চলমান উন্নয়ন অগ্রগতির সুফল পেতে চলেছে চকরিয়া-পেকুয়া উপজেলার সর্বস্তরের জনসাধারণ। ইতোমধ্যে দুই উপজেলার প্রতিটি জনপদে এগিয়ে চলছে ছোট-বড় একাধিক উন্নয়ন প্রকল্প। বাস্তবায়নের পথে এগিয়ে চলছে তিনটি মেগাপ্রকল্পের কাজ। তারমধ্যে দ্রুতগতিতে চলছে ছয়লেনে নতুন মাতামুহুরী সেতু নির্মাণ কাজ। আলোর পথে উদিয়মান হচ্ছে রেললাইন নির্মাণ প্রকল্পের অধীন চকরিয়া উপজেলা অংশের কাজ। পুরোদমে শুরু হয়েছে ৫৭ কোটি টাকা বরাদ্দে বরইতলী শান্তিবাজার, জিদ্দাবাজার মানিকপুর ইয়াংছা সড়ক নির্মাণ কাজ। সমাপ্তির পথে রয়েছে ২৫ কোটি টাকা বরাদ্দের বিপরীতে একশত সয্যায় উন্নীত চকরিয়া উপজেলা সরকারি হাসপাতালের নির্মাণ কাজ।

তিনি বলেন, সরকারের উন্নয়ন অগ্রগতির অংশহিসেবে মেয়র আলমগীর চৌধুরীর নেতৃত্বে বর্তমান পৌরপরিষদ চকরিয়া পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডে পরিকল্পিত উন্নয়নে প্রতিটি এলাকাকে সাজাচ্ছেন। ধারাবাহিক উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের ফলে বর্তমানে চকরিয়া পৌরসভার ৯টি ওয়ার্ডের লক্ষাধিক মানুষ নাগরিক সেবা পেতে শুরু করেছেন। আগামীতেও উন্নয়নের মহাসড়কে এগিয়ে যাবে চকরিয়া পৌরসভা।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •