এম.জিয়াবুল হক, চকরিয়া:
চকরিয়া উপজেলার শাহারবিল ইউনিয়নের ঐহিত্যবাহি প্রাচীণ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান আরকে নুরুল আমিন চৌধুরী উচ্চ বিদ্যালয়ে এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠান, বার্ষিক মিলাদ ও দোয়া মাহফিল বিদ্যালয় মাঠে অনুষ্ঠিত হয়।

প্রধান শিক্ষকের সভাপতিত্বে অন্ঠুানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন চকরিয়া-পেকুয়া আসনের সংসদ সদস্য ও চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ জাফর আলম।

বিদায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন চকরিয়া উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান ও মাতামুহুরী উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি মকছুদুল হক ছুট্টো, সাহারবিল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ও মাতামুহুরী উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মহসিন বাবুল, বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা নুরুল আমিন চৌধুরী, মাতামুহুরী উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ-সভাপতি নুরুল ইসলাম, সাহারবিল ইউপির প্যানেল চেয়ারম্যান ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক এনামুল হক এনাম। অনুষ্টানে এ সময় বিদ্যালয়ের সকল শিক্ষক-শিক্ষিকা, শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা উপস্থিত ছিলেন। পরে পরীক্ষার্থীদের জন্য বিশেষ মোনাজাত করা হয়।

অনুষ্ঠানে এমপি জাফর আলম বলেছেন, আওয়ামীলীগ সরকারের সফল প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নতুন প্রজন্মের শিক্ষার্থীদেরকে লেখাপড়ার মাধ্যমে দক্ষমানব সম্পদ গড়ার সবধরণের চেষ্ঠা চালিয়ে যাচ্ছেন। সেইজন্য সরকার লেখাপড়ার মানন্নোয়ন এবং শিক্ষার্থী, শিক্ষক শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের সুযোগ সুবিধা নিশ্চিত করেছেন। একসময় শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ার খরচ চালাতে হতো পরিবারকে। এখন তাদের লেখাপড়ার দায়িত্ব নিয়েছেন শেখ হাসিনা নিজেই। সেই আলোকে সরকার শিক্ষার্থীদের জন্য মেধানির্ভর শিক্ষার সম্ভাবনার দ্বার উম্মোচন করেছে। তাঁর সদিচ্ছার কারনে আজ শিক্ষার্থীরা বিনা বেতনে লেখাপড়া সুযোগ পাচ্ছে। বর্তমানে বছরের প্রথমদিন শিক্ষার্থীরা নতুন পাঠ্যবই পাচ্ছে। লেখাপড়া করতে সব ধরণের উপবৃত্তি সুবিধা পাচ্ছে। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে চালু করা হয়েছে মিড ডে মিল প্রকল্পসহ নানা ধরণের প্রনোদনা প্রকল্প। যাতে শিক্ষার্থীরা এসব সুবিধা নিয়ে সুন্দর পরিবেশে লেখাপড়া করতে পারে।

জাফর আলম এমপি আরও বলেন, শিক্ষার্থীদের লেখাপড়ার মান্নোয়ন নিশ্চিতকল্পে টেকসই উন্নয়নে চকরিয়া-পেকুয়া উপজেলার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলোকে সাজানো হবে। পাশাপাশি লেখাপড়ার মানন্নোয়নে শিক্ষক সমাজ ও অভিভাবকমন্ডলী সবাইকে দায়িত্বশীল ভুমিকা পালন করতে হবে। আশাকরি সুন্দর আগামী গড়ার অভিপ্রায়ে চকরিয়া-পেকুয়ার বিদায়ী প্রতিটি শিক্ষার্থী জীবনের অভিষ্ঠ লক্ষ্য অটুট রাখবে। আগামী দিনগুলোতে আরো এগিয়ে যাবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •