মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

আগামী ৩০ জানুয়ারি বৃহস্পতিবার উদ্বোধন হতে যাচ্ছে, সাগরপথে কক্সবাজার-সেন্টমার্টিন রুটে বিলাসবহুল জাহাজ এমভি কর্ণফুলী। উদ্বোধনের পরদিন থেকে কক্সবাজার থেকে সেন্টমার্টিন যাওয়া যাবে পর্যটকবাহী বিলাসবহুল জাহাজ এমভি কর্ণফুলী এক্সপ্রেসে করে। বিষয়টি জাহাজটির কক্সবাজারের পরিচালক ও ফারহান এক্সপ্রেস ট্যুরিজমের সত্বাধিকারী এম. হোসাইনুল ইসলাম বাহাদুর সিবিএন-কে নিশ্চিত করেছেন।

এম. হোসাইনুল ইসলাম বাহাদুর আরো জানান, উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত থাকবেন নৌ-পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী। বিশেষ অতিথি হিসাবে থাকবেন নৌ পরিবহন মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ আবদুস সামাদ।

জানা যায়, জাহাজটি পরিচালনা করবে কর্ণফুলী শিপ বিল্ডার্স লিমিটেড। সার্বিক সহযোগিতায় থাকবে ফারহান এক্সপ্রেস ট্যুরিজম। এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন, ফারহান এক্সপ্রেস ট্যুরিজমের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এম. হোসাইন ইসলাম বাহাদুর। এটি চট্টগ্রামের কর্ণফুলী শিপইয়ার্ডে বিআইডব্লিওটিসির উপকূলীয় জাহাজ বহরের লিজেন্ডারি নৌযান এমভি আলাউদ্দিন আহমেদ নামে পরিচিত ছিল। যা বর্তমানে এমভি কর্ণফুলী এক্সপ্রেস নামে নতুনভাবে নতুনসাজে রূপান্তরিত হয়েছে।

নৌযানটি আগে চট্টগ্রামের সদরঘাট থেকে হাতিয়ার নলচিরা হয়ে সন্দ্বীপে চলাচল করতো। বর্তমানে জাহাজটির মালিকানা কর্ণফুলী শিপইয়ার্ড অধিগ্রহণ করে। পরে ডিজাইন ফার্ম এসএসটি মেরিন সল্যুশনের মাধ্যমে নকশা পরিবর্তন করে।

এমভি কর্ণফুলী এক্সপ্রেসকে নিজস্ব ডকইয়ার্ডে নতুনভাবে চলাচলের উপযোগী করে তোলা হয়। এখন চলাচলের জন্য পুরোপুরি প্রস্তুত নৌযানটি সার্ভিসে যাওয়ার আগে সী ট্রায়ালের অংশ হিসেবে কর্ণফুলী নদী থেকে পতেঙ্গার সমুদ্র মোহনা পর্যন্ত ট্রায়াল সম্পন্ন করেছে।

প্রায় ৫৫ মিটার দীর্ঘ ও ১১ মিটার প্রশস্ত নৌযানে মেইন প্রাপালেশন ইঞ্জিন হচ্ছে দুটি। আমেরিকার বিখ্যাত কামিন্স ব্র্যান্ডের একেকটির ক্ষমতা প্রায় ৬০০ বিএইচপি করে। জাহাজটি ঘণ্টায় প্রায় ১২ নটিক্যাল মাইল গতিতে ছুটতে পারে। ১৭টি ভিআইপি কেবিন সমৃদ্ধ এ জাহাজটি। আধুনিক নৌযানটিতে ৩ ক্যাটাগরির প্রায় ৫০০ আসন রয়েছে। রয়েছে কনফারেন্স রুম, ডাইনিং স্পেস, সী ভিউ ব্যালকনি।

উদ্বোধনের পরই জাহাজটির ভাড়ার তালিকা ও সময়সূচি প্রকাশ করা হবে আনুষ্ঠানিকভাবে। তাই একটু অপেক্ষা তো করতেই হবে। কেননা পর্যটকদের নিরাপদ ও আরামদায়ক ভ্রমণের সঙ্গী হতে পারে বিলাসবহুল নৌযান কর্ণফুলী এক্সপ্রেস।

ফারহান এক্সপ্রেস ট্যুরিজমের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও অভিজ্ঞ নৌ পর্যটন ব্যবসায়ী এম. হোসাইনুল ইসলাম বাহাদুর সিবিএন-কে জানান, সর্বোচ্চ পর্যটক সেবার মানসিকতা নিয়ে সাগরপথে নতুন রুটে এই বিলাসবহুল নৌযানের ব্যবস্থা করেছি। ভাড়াও ন্যুনতম করার চেষ্টা করছি। আশা করছি, পর্যটকবাহী আধুনিক এ নৌযানটি কক্সবাজারে পর্যটনের অপার সম্ভবানার নতুন দিগন্ত উম্মোচন করবে। নতুন রূপে সজ্জিত এমভি কর্ণফুলী জাহাজ চট্টগ্রামে নিজস্ব ডকইয়ার্ড থেকে রোববার ২৬ জানুয়ারি কক্সবাজার নৌবন্দরে এসে পৌঁছাবে। শহরের উত্তর নুনিয়াছটা বিআইডব্লিউটিএ এর ঘাট থেকে পর্যটকেরা জাহাজটিতে উঠা নামা করবে বলে এম. হোসাইনুল ইসলাম বাহাদুর সিবিএন-কে জানান।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •