আবুল কালাম, চট্টগ্রাম:

চট্টগ্রামের ১১ নং ওয়ার্ড দক্ষিণ কাট্টলী বশির শাহ মাজার সংলগ্ন ছধু চৌধুরী বাড়ি এলাকার স্থায়ী বাসিন্দা মো. আলমগীর তিনি পেশায় এক জন কার চালক। তার তিন ছেলে-মেয়ে। বড় মেয়ে ওরিশা আলম রাত্রী, মেঝ মেয়ে ওয়ারা আলম তানিয়া ও একমাত্র ছেলে ওয়াজেদ আলম বাধন। বড় মেয়ে ওরিশা আলম রাত্রী জন্মলগ্ন থেকে জটিল ব্যধি হাইড্রো সেফালাস রোগে আক্রান্ত হয়। বর্তমানে নগরীর ম্যাক্স হাসপাতালের চিকিৎসক ডা. মইন উদ্দীন ইলিয়াছ এর তত্বাবধানে চিকিৎসাধীন আছে। তার ড্রাইভার বাবা এ পর্যন্ত রাত্রীর চিকিৎসা ব্যয় বহন করতে করতে এখন নিঃস অসহায়। আদুরে মেয়েকে বাঁচাতে হাত বাড়িয়েছেন সমাজের বিত্তবানদের প্রতি। তাদের সহযোগিতা চেয়েছেন।

গত তিন বছর আগে রাত্রীর বয়স যখন ৭ বছর তখন রাত্রীর জটিল একটা অপারেশন হয়। রাত্রী বয়স এখন ১০ বছর। চিকিৎসক এখন আবার তার অপারেশন করার কথা বলছে। রাত্রীর বাবা মেয়ের অপারেশনের টাকা কোথায় পাবে? কে দেবে তাদের অপারেশন এর টাকা? এমতাবস্থায় রাত্রির চিকিৎসার জন্য দেশের বিত্তবানদের নিকট আকুল আবেদন জানিয়েছেন বাবা আলমগীর।

সাহায্য পাঠাবার জন্য রাত্রির বাবার বিকাশ নাম্বার ০১৮৩০-৮১৯-৭৪৭ তে যোগাযোগ করার অনুরোধ জানিয়েছেন আলমগীর।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •