মোঃ নিজাম উদ্দিন, চকরিয়া:
চট্টগ্রাম-কক্সবাজার মহাসড়কের চকরিয়ায় কাভার্ড ভ্যানের সাথে প্রাইভেট নোহার সংঘর্ষে ছৈয়দ হোসেন (৪৮) নামের এক যাত্রী ঘটনাস্থলে নিহত হয়েছে। সে টেকনাফের দক্ষিণ জালিয়া পাড়া এলাকার আব্বাস আলীর পুত্র। আহত হয়েছে অন্তত পাঁচ যাত্রী। তৎমধ্যে দুজনের অবস্থা আশংকাজনক বলেও জানা গেছে।
মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে চকরিয়া উপজেলার খুটাখালী এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে। স্থানীয় লোকজন ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, মঙ্গলবার সকালে কক্সবাজার অভিমুখী একটি কাভার্ড ভ্যান খুটাখালী ইউনিয়নের নয়াপাড়া পূর্বগেইট পর্যন্ত পৌঁছে। এসময় বিপরীত দিক থেকে আসা একটি লেগুনা গাড়ি সংঘর্ষ এড়াতে গিয়ে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে পার্শ্ববর্তী খাদে পড়ে যায়।
অপরদিকে কাভার্ড ভ্যানটির চাকা নষ্ট হয়ে মহাসড়ক কিনারায় অবস্থান করছিল। ওসময় চট্টগ্রাম থেকে ছেড়ে আসা টেকনাফগামী একটি প্রাইভেট নোহা বর্নিত স্থানে পৌঁছলে কাভার্ড ভ্যানটির সাথে সংঘর্ষ হয়। এতে নোহাটি দুমড়েমুচড়ে গিয়ে যাত্রী ছৈয়দ হোসেন নিহত হয়েছে। তিনি সৌদি প্রবাসী স্বজনদের নিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন বলে জানা যায়।
এ দুর্ঘটনায় আহতরা হলেন প্রাইভেট নোহা গাড়ির চালক ইবরাহীম (৫৫), নোহার যাত্রী টেকনাফ গোদারবীল এলাকার আবদুল আমিনের স্ত্রী জুবাইদা বেগম (৪০), আংশিক আহত তাদের পুত্র মোঃ সামির (২৫), অজ্ঞাত ঠিকানার নুরুল আমিন (৩৫), চকরিয়া খুটাখালীর হাজী মনির আহমদের পুত্র মোঃ ফারুক (৪২)।
এ ব্যাপারে মালুমঘাট হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ পুলিশ পরিদর্শক মোর্শেদুল আলম চৌধুরী বলেন, খুটাখালীতে কাভার্ড ভ্যানের সাথে প্রাইভেট নোহার সংঘর্ষে এক যাত্রী নিহত হয়েছে, আহত হয়েছে চারজন। দুর্ঘটনার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ উপস্থিত হয়ে আহতদের উদ্ধার করে হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। দুর্ঘটনা কবলিত গাড়িগুলো ফাঁড়িতে জব্দ রাখা হয়েছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •