মুহাম্মদ জুবাইর, টেকনাফ:
মাদক প্রতিরোধে শুধু মাত্র সরকার একা চেষ্ঠা করলে সফল হবেনা, সাথে আলেম, ওলামা সর্বস্থরকে এগিয়ে আসতে হবে। আজ সমাজের অপরাধের ভয়াবহ করাল গ্রাসের সব মূল হচ্ছে মাদক। যে জাতি যতই শিক্ষায় উন্নতি হোকনা কেন মাদকাসক্ত হলেই সে জাতির পতন ঘটবে। তিনি স্বাধীনতা যুদ্ধসহ সকল ক্ষেত্রে আলেম ওলামারা যেমন ভূমিকা রেখেছে মাদক নির্মুলের জন্য তেমনি সবাইকে ঐক্যবদ্ধ প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে। মাদকের সংশ্লিষ্ট যে যতই বড় হোকনা কেন তাকে কোন ভাবেই ছাড় দেওয়া যাবে না। যদি মাদক নির্মূল করতে চাই তাহলে প্রতিটি পাড়ায়, মহল্লায় চরম প্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে।

টেকনাফে নূরানী বোর্ডের কেন্দ্রীয় সনদ পরীক্ষায় জিপিএ-৫ পাওয়া ৩ শতাধিক মেধাবী ও কৃতিশিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে শায়খুল হাদিস আল্লামা মুামুনুল হক উপরোক্ত কথা গুলো বলেছেন।

সওতুল হেরা সোসাইটি’র সভাপতি হাফেজ মুহাম্মদ উল্লাহ রিয়াদের সভাপতিত্বে ৭ জানুয়ারী সকাল ১০টায় টেকনাফ সদর ইউনিয়ন পরিষদ সংলগ্ন মাঠে অনুষ্ঠিত সভায় তিনি আরো বলেন, নুরানী শিক্ষা জাতিকে জাগ্রত করার একটি হাতিয়ার। সৎ, চরিত্রবান ও আদর্শ নাগরিক গঠন এবং দেশের স্বাধীনতা সার্বভৌমত্ব রক্ষার জন্য দ্বীনি শিক্ষার বিকল্প নেই। যে জাতী তার কৃতি সন্তানদের মূল্যায়ন করতে জানে না সে জাতি কখনো সফল হবে না। প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপজেলা চেয়ারম্যান নুরুল আলম বলেন, কওমী মাদরাসা আছেই বলে আমরা দ্বীনের সঠিক শিক্ষা পাচ্ছি। তিনি নূরানী শিক্ষার্থীদের সার্বিক সফলতা কামনা করেন। এছাড়া মাদক প্রতিরোধ করতে ওয়াজ মাহফিল, ও জুমার খুতবায় মাদকের কূফল সম্পর্কে ধর্মীয় দৃষ্টি কোনে আলোচনা করার আহবান জানান।

বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন সুলতানুল ওয়াজেীন আল্লামা খালেদ সাইফ উল্লাহ আয়ুবী, মাওঃ মুফতি রিজওয়ান রফিকী। টেকনাফ সাংবাদিক ফোরাম’র সাধারন সম্পাদক মুহাম্মদ জুবাইর ও সওতুল হেরা সোসাইটি’র সাধারন সম্পাদক হাফেজ মাওঃ ইব্রাহীম রাহীর যৌথ সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে ৪৪টি শিক্ষা নূরানী প্রতিষ্ঠানের প্রায় ৩ শতাধিক জিপিএ-৫ (এ প্লাস) প্রাপ্ত ছাত্র/ছাত্রীদের সনদ, পুরস্কার ও উপজেলা পরিষদের পক্ষ থেকে ৩ শতাধিক কম্বল বিতরণ করা হয়েছে। ফেরদৌস ফার্নিচার হাউস এর সত্বাধিকারী ফেরদৌস ইসলাম এর সৌজন্যে সংবর্ধনা শেষে সন্ধ্যা হতে মধ্য রাত পর্যন্ত সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা অনুষ্ঠিত হয়। এতে আল মদিনার শিল্পী গোষ্টির প্ররিচালক আসহাব উদ্দিন আল আজাদ, নবজাগরন শিল্পী গোষ্টির পরিচালক আলমগীর বিন কবির ও স্থানীয় শিল্ফীরা সংগিত পরিবেশন করেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •