মুহাম্মদ আবু সিদ্দিক ওসমানী :

কক্সবাজার জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ও জেলা পুলিশের মুখপাত্র মোহাম্মদ ইকবাল হোসাইন, মহেশখালী থানার ওসি প্রভাষ চন্দ্র ধর এবং টেকনাফ মডেল থানার এএসআই সনজিত দত্ত বাংলাদেশ পুলিশের আইজিপি ব্যাজের জন্য চূড়ান্তভাবে মনোনীত হয়েছেন। জাতীয় পুলিশ সপ্তাহ-২০২০ উপলক্ষে আগামী ৭ জানুয়ারি ঢাকাস্থ রাজারবাগ পুলিশ সদর দপ্তরের প্যারেড মাঠে আইজিপি ড. মোহাম্মদ জাবেদ পাটোয়ারী বিপিএম (বার) আনুষ্ঠানিকভাবে তাঁদের এ মূল্যবান ব্যাজ পরিয়ে দেবেন। বাংলাদেশ পুলিশ সদর দপ্তরের বিশ্বস্ত একটি সুত্র সিবিএন-কে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীতে আইজিপি ব্যাজ দ্বিতীয় সর্বোচ্চ মর্যাদাপূর্ণ পুরস্কার হিসাবে গণ্য করা হয়। আইজিপি ব্যাজ প্রাপ্ত, বীর মুক্তিযোদ্ধা শওকত আলী মাষ্টারের সন্তান কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাম্মদ ইকবাল হোসাইন ২০১৮ সালের শেষ সপ্তাহে ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার হতে কক্সবাজার জেলা পুলিশে যোগদান করেন। মাদক দ্রব্য উদ্ধার, মাদক বিরোধী সফল অভিযান, অস্ত্র উদ্ধারের ব্যাপক সফলতার স্বীকৃতিস্বরূপ তাঁকে বাংলাদেশ পুলিশের গুরুত্বপূর্ণ আইজিপি পদকে জন্য মনোনীত করা হয়েছে। ইন্সপেক্টর প্রভাষ চন্দ্র ধর কক্সবাজারের ডিডেক্টিভ ব্রাঞ্চের (ডিবি) ওসি থাকাবস্থায় ২০১৮ সালের অক্টোবর মাসে মহেশখালী থানার ওসি ওসি হিসাবে দায়িত্বপ্রাপ্ত হন। ২০১৯ সালের নভেম্বরের ২৩ তারিখ ৯৬ জন জলদস্যু, শীর্ষ অস্ত্র তৈরীর কারিগরের আত্মসমর্পণ, ১৫৫ টি অবৈধ অস্ত্র উদ্ধার, অস্ত্র তৈরীর সরঞ্জাম ও প্রচুর সংখ্যক গোলাবারুদ উদ্ধারের জন্য তাঁকে আইজিপি পদক দেওয়া হচ্ছে। চট্টগ্রাম জেলার বাঁশখালী উপজেলার বাসিন্দা এএসআই সনজিত দত্ত ২০১৮ সালের অক্টোবর মাসে মহেশখালী থানা থেকে টেকনাফ মডেল থানায় যোগ দেন। তিনি স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের তালিকাভূক্ত ইয়াবাকারবারীদের গ্রেপ্তার ও ইয়াবা উদ্ধারে সাহসী ও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখায় একইভাবে তাঁকেও আইজিপি পদকের জন্য মনোনীত করা হয়েছে। “মুজিব বর্ষের অঙ্গীকার, পুলিশ হবে জনতার” এই প্রতিপাদ্য নিয়ে আগামী ৫-১০ জানুয়ারি পর্যন্ত অনুষ্ঠিতব্য জাতীয় পুলিশ সপ্তাহে কক্সবাজারের উল্লেখিত ৩ জন পুলিশ কর্মকর্তা সহ মোট ৫৯১ জনকে এই আইজিপি পদক প্রদান করা হচ্ছে।

প্রসঙ্গত, কক্সবাজারের পুলিশ সুপার এ.বি.এম মাসুদ হোসেন বিপিএম ২০১৯ সালের মতো ২০২০ সালের জাতীয় পুলিশ সপ্তাহেও বাংলাদেশ পুলিশের সর্বোচ্চ মর্যাদাপূর্ণ পুরস্কার বিপিএম (বাংলাদেশ পুলিশ মেডেল) পদকের জন্য দ্বিতীয়বার মনোনীত হয়েছেন। দেশের ৬৪ জন এসপি’র মধ্যে একমাত্র কক্সবাজারের পুলিশ সুপার এ.বি.এম মাসুদ হোসেন বিপিএম সারাদেশে বিপিএম পদকের জন্য মনোনীত হয়েছেন।

  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •  
  •  
  •