এম.জিয়াবুল হক,চকরিয়া :

চকরিয়া উপজেলার ১৮টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভা এলাকার ৯৯৮২ জন শীর্তাত গরীব মানুষের জন্য চলতিবছর জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে শীতের কম্বল বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে চকরিয়া উপজেলা প্রশাসন এসব কম্বল স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ ও পৌরসভার মাধ্যমে শীর্তাত মানুষের মাঝে বিতরণ শুরু করেছে। উপজেলার লক্ষ্যারচর ইউনিয়নে আনুষ্ঠানিক বিতরণ কার্যক্রম উদ্বোধন করেছেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি চকরিয়া-পেকুয়া (কক্সবাজার-১) আসনের সংসদ সদস্য ও চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি আলহাজ জাফর আলম।

এছাড়া উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়নে শীর্তাত মানুষের মাঝে কম্বল বিতরণ করছেন চকরিয়া উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সহসভাপতি আলহাজ ফজলুল করিম সাঈদী। একই সঙ্গে গরীব মানুষের মাঝে শীতের কম্বল বিতরণ করছেন চকরিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নুরুদ্দিন মুহাম্মদ শিবলী নোমান, চকরিয়া পৌরসভার মেয়র ও উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সম্পাদক আলমগীর চৌধুরী, উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান মকছুদুল হক ছুট্টু, উপজেলা পরিষদের নারী ভাইস চেয়ারম্যান জেসমিন হক জেসি চৌধুরী।

চকরিয়া উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তার কার্যালয়ের সহকারি বাবুল চৌধুরী জানিয়েছেন, চকরিয়া উপজেলার ১৮টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভা এলাকার ৯৯৮২ জন শীর্তাত গরীব মানুষের জন্য চলতিবছর কক্সবাজার জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে শীতের কম্বল বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে চকরিয়া উপজেলা প্রশাসন এসব কম্বল স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ ও পৌরসভার মাধ্যমে শীর্তাত মানুষের মাঝে বিতরণ শুরু করেছে।

লক্ষ্যারচর ইউনিয়নে জনগনের মাঝে শীতের কম্বল বিতরণ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান গোলাম মোস্তাফা কাইছার। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে এমপি জাফর আলম শীর্তাত মানুষের মাঝে কম্বল বিতরণ করেন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন চকরিয়া থানার ওসি মো.হাবিবুর রহমান, চকরিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের প্রচার সম্পাদক আবু মুছা, লক্ষ্যারচর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি রেজাউল করিম সেলিম, সাধারণ সম্পাদক খ ম বুলেট, লক্ষ্যারচর ইউনিয়ন পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান আলহাজ নেছারা বেগম। এছাড়াও বিতরণ অনুষ্ঠানে লক্ষ্যারচর ইউনিয়ন পরিষদের সকল সদস্য, ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ ও সহযোগি সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

লক্ষ্যারচরে কম্বল বিতরণ অনুষ্ঠানে এমপি জাফর আলম বলেছেন, জননেত্রী শেখ হাসনা দেশের প্রতিটি সেক্টরে সমান অগ্রগতি উন্নয়নের পাশাপাশি গরীব মানুষের মুখে হাসি ফুটাতে কাজ করছে। সেইজন্য গরীব মানুষের ভাগ্যউন্নয়নে সবধরণের সহযোগিতা দিচ্ছেন। বর্তমান সরকারের আমলে অভাবগ্রস্থ পরিবার যাতে সুন্দর পরিবেশে জীবন যাপন করতে পারে সেইজন্য ভিজিএফ ভিজিডি কর্মসুচির আওতায় চাউল দিচ্ছেন। বয়স্কদের জন্য ভাতা দিচ্ছেন। পাশাপাশি প্রতিবছর শীত মৌসুমের শুরুতে গরীব মানুষের জন্য শীতের কম্বল দিচ্ছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •