বিদেশ ডেস্ক:
ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে ঈশ্বরের সঙ্গে তুলনা করেছেন বিজেপি নেতা শিবরাজ সিংহ চৌহান। নতুন নাগরিকত্ব আইনের মাধ্যমে পাকিস্তানে ধর্মীয় নিপীড়নের শিকার মানুষদের ভারতীয় নাগরিকত্ব অর্জনের সুযোগ দেওয়ায় এমন তুলনা করেন তিনি। এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম দ্য টাইমস অব ইন্ডিয়া।

২৩ ডিসেম্বর সোমবার মধ্যপ্রদেশের ইন্দোর শহরে ভারতের মুসলিমবিদ্বেষী নাগরিকত্ব আইন নিয়ে এক আলোচনা সভায় অংশ নেন শিবরাজ সিংহ চৌহান। সেখানে দেওয়া বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘পাকিস্তানে ধর্মীয় নিপীড়নের শিকার মানুষদের ভারতীয় নাগরিকত্বের সুযোগ করে দিয়েছেন নরেন্দ্র মোদি, আপনি ঈশ্বরের চেয়ে কোনও অংশে কম নন।’

মধ্যপ্রদেশের সাবেক মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ বলেন, ‘ঈশ্বর আপনাদের জীবন দিয়েছেন, মা জন্ম দিয়েছেন। তবে নরেন্দ্র মোদি আপনাদের নতুন জীবন দান করেছেন। মান-সম্মান এবং মর্যাদা দিয়েছেন। তাই ঈশ্বরের চেয়ে কোনও অংশে কম যান না তিনি।’

পাকিস্তানে সংখ্যালঘু হিন্দুরা ব্যাপকমাত্রায় নিপীড়নের শিকার বলেও দাবি করেন এ বিজেপি নেতা। তার দাবি, পাকিস্তানে হিন্দুদের মন্দিরে যাওয়ার অধিকার ছিল না। তারা ধর্ষণের শিকার হতো, জোর করে বিয়ে দেওয়া হতো। তাই মুখ্যমন্ত্রী থাকাকালীন ভিসার মেয়াদ পেরিয়ে যাওয়ার পরও কখনও সেখান থেকে পালিয়ে আসা মানুষদের বিরুদ্ধে কোনও ব্যবস্থা নিতে দেননি তিনি।

শিবরাজ বলেন, এতো কিছুর পর আর নতুন নাগরিকত্ব আইনের বিরোধিতা করা উচিত নয়। বরং সবার উচিত নরেন্দ্র মোদি ও অমিত শাহকে অভিবাদন জানানো।

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালের ১২ ডিসেম্বর থেকে ভারতে কার্যকর হয়েছে নাগরিকত্ব সংশোধন আইন (সিএএ)। এতে বাংলাদেশ, আফগানিস্তান ও পাকিস্তান ভারতে গিয়ে বসবাসরত অমুসলিমদের নাগরিকত্ব দেওয়ার বিধান রাখা হয়েছে। তবে মোদি সরকারের নতুন এ আইনকে মুসলিমদের বিরুদ্ধে বৈষম্যমূলক হিসেবে আখ্যা দিয়েছে যুক্তরাজ্যভিত্তিক মানবাধিকার সংস্থা অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনাল। মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ বলেছেন, ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্র বলে দাবি করা ভারত এখন কিছু মুসলিমদের নাগরিকত্ব বঞ্চিত করতে পদক্ষেপ নিচ্ছে। এমন আইন যদি আমরা মালয়েশিয়ায় বাস্তবায়ন করি তাহলে কী ঘটবে আমি জানি না! এমন পরিস্থিতিতে বিশৃঙ্খলা ও অস্থিরতা তৈরি হবে। সবাই ভোগান্তির শিকার হবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •