নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের  ঘটনাস্থল পরিদর্শন

শেফাইল উদ্দিন সদর।

ককসবাজার সদর উপজেলার ইসলামাবাদ ইউনিয়নের আউলিয়াবাদ ঢালার দোয়ার কবরস্থান রক্ষার্থে মানব বন্ধন করেছে এলাকাবাসী।১৫ ডিসেম্বর বিকাল ৪ টার দিকে উক্ত কবর স্থানের পাশে এ মানব বন্ধন অনুষ্টিত হয়।
এদিকে খবর পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন নির্বাহী ম্যজিষ্টেট সদর এসিল্যন্ড শাহরিয়ার মোকতার। এ সময় এলাকার সর্বস্থরের জনগন উপস্থিত ছিলেন।
জানাযায়,বর্নিত কবরস্থানের মাটি নিতে মরিয়া হয়ে উঠছে একটি প্রভাবশালী চক্র। বাধা প্রদানকারীদের প্রশাসনের নাম ভাঙ্গিয়ে মিথ্যা মামলাসহ প্রান নাশের হুমকি দিচ্ছে ।একাবাসী এ ঘটনায় প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।অন্যথায় বড় ধরনের রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের অাশংকা করছে স্থানীয়রা।
।১৩ ডিসেম্বর গভীর রাতে কবরস্থানের সীমানা প্রাচীর ভেঙ্গে এসকেবেটর ও ডাম্পার দিয়ে কবরস্থানের পাহাড় কাটার চেষ্টা করলে বিক্ষুব্ধ এলাকাবাসী এগিয়ে আসলে এরা কৌশলে রাতের আধারে পালিয়ে যায়।
উল্লেখ্য ,ইসলামাবাদ ইউনিয়নের আউলিয়াবাদ ঢালার দোয়ার কররস্হানটি শত বছরের ঐতিহ্যবাহী একটি প্রাচীন কবরস্হান। ইসলামাদ ইউনিয়নের খোদাইবাড়ী,ওয়াহেদর পাড়া,ঢালার দোয়ার, করাচি পাহাড়,পশ্চিম গজালিয়া ও ফকিরাবাজার এলাকাসহ পাশ্ববর্তী এলাকার লোকজন এই কবরস্হানেই সমাধিস্থ হয়।২০০১ সালে স্থানীয় বাবুল কোম্পানী ও দিদার কোম্পানী এই কবরস্থান থেকে ব্রীকফিল্ডের জন্য মাটি নিতে চাইলে স্থানীয় লোকজন সামাজিকভাবে প্রতিরোধ করে এবং প্রকাশ্যে বাধা দিয়ে জানিয়ে দেয় এ কবরস্থান থেকে মাটি নেওয়া যাবে না।এরা নিবৃত হয়ে গেলে আর একটি প্রভাবশালীচক্র এই কবর স্থানের পাহাড় কেটে মাটি নেওয়ার পায়তারা করে আসছে।এরা ডাম্পার এবং স্কেবেটার দিয়ে অনেক বার মাটি নেওয়ার চেষ্টা করছে বলে ও জানান স্থানীয়রা।এই চক্রটি গভীর রাতে সীমানা প্রাচীর ভেঙ্গে মাটি নেওয়ার নেয়ার চেষ্টা ও স্থানীয়দের প্রকাশ্যে হুমকি ধমকি দিচ্ছে বলে জানান এলাকার লোকজন।স্থানীয় মেম্বার আবু বক্কর ছিদ্দিক বান্ডি সীমানা প্রাচীর ভাঙ্গার সত্যতা স্বীকার করে বলেন গভীর রাতে কে বা কারা কবরস্থানের সীমানা প্রাচীর ভেঙ্গে ফেলে। কে বা কারা এ কাজ কাজ করছে খবর নিচ্ছি।এলাকাবাসী জড়িতদের বিরিদ্ধে তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নিতে প্রশাসনের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।নির্বাহী ম্যজিষ্টেট শাহরিয়ার মোকতারের সাথে কথা হলে তিনি ঘটনাস্থলের পরিদর্শনের কথা বলে জানান উক্ত সড়ক জনচলাচলের জন্য উন্মুক্ত থাকলে ও ডাম্পার বা মাটি কাটার গাড়ি চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।কবরস্থানের সীমানা প্রাচীর ভাংচুরের বিষয়টি দেখা হবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •