শাহেদ মিজান, সিবিএন:

মহেশখালী উপজেলা আলোচিত ইউনিয়ন শাপলাপুরের ভোট আজ বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত হবে। সকাল ৮ থেকে বিকাল ৪টার পর্যন্ত ভোটগ্রহণ করা হবে। শতভাগ সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোটগ্রহণ করতে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদারসহ সামগ্রিক প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে। একজন জুডিসিয়াল ম্যাজেস্ট্রিট ও প্রতিকেন্দ্রে একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে র‌্যাব, পুলিশ ও আমর্ড পুলিশের বিপুল সংখ্যক সদস্য নির্বাচনে দায়িত্ব পালন করবেন। সেই সাথে নির্বাচন কমিশনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা সার্বিক ব্যবস্থাপনায় থাকবেন।

জানা গেছে, আইনী জটিলতার কারণে ২০০১ সালের সামগ্রিক ইউপি নির্বাচনে শাপলাপুরে ইউপিতে নির্বাচন হয়নি। পরে জটিলতা কাটিয়ে ২০১৪ সালের শেষে দিকে বিচ্ছিন্নভাবে সর্বশেষ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয় এই ইউনিয়নে। সে মতে এবারও বিচ্ছিন্নভাবে সেখানে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে। স্বাভাবিকভাবে শাপলাপুরের এবারের এই নির্বাচনও বেশ আলোচিত। কারণ এবার চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্ব›িদ্বতা করছেন ১৬জন প্রার্থী! তার মধ্যে রয়েছে হেভিওয়েট কয়েকজন প্রার্থী। তবে প্রার্থী ১৬জন হলেও লড়াই হবে তিনজনের মধ্যে।

মহেশখালী উপজেলা নির্বাচন কার্যালয় সূত্রে জানা গেছে, আজকে অনুষ্ঠিতব্য শাপলাপুর ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্ব›িদ্বতা করছেন ১৬জন প্রার্থী। তবে মূল প্রতিদ্ব›িদ্বতায় রয়েছেন মাত্র তিনজন প্রার্থী। তারা হলেন, সাবেক তিনবারের চেয়ারম্যান ও দীর্ঘদিন শাপলাপুরের মাঠে থাকা আবদুল খালেক চৌধুরী, সাবেক চেয়ারম্যান নূরুল আমিন হেলালীর পুত্র, দেশের নামকরা তরুণ সাংবাদিক সালাহ উদ্দীন হেলালী কমল এবং দিদারুল করিম। এর মধ্যে আবদুল খালেক চৌধুরী সরকারি দল আওয়ামী লীগের মনোনিত প্রার্থী এবং অন্য দুইজন স্বতন্ত্র প্রার্থী। তবে সালাহ উদ্দীন কমল আওয়ামী পরিবার ও মুক্তিযোদ্ধার সন্তান। সব মিলে অন্য প্রার্থীদের কথা ভুলে ভোটাররা এখন এই তিন প্রার্থীকে ঘিরেই জল্পনা-কল্পনা করছেন। অন্যান্য প্রার্থীরা হচ্ছেন, মহেশখালী উপজেলা আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী সাইদুল হক ( অটোরিক্সা), এড. রফিকুল ইসলাম (মোটর সাইকেল), নুরুল হক বর্তমান চেয়ারম্যান ( ব্যাটারি), একে এম ইলিয়াস (টাইপ রাইটার) নুরুল হুদা ফরাজী (রজনী গন্ধা) ।

অপরদিকে সাধারণ মেম্বার পদে ৫৬ জন ও সংরক্ষিত মহিলা মেম্বার পদে ১৪ জন প্রার্থী প্রতিদ্ব›িদ্বতা করছেন। ৯টি কেন্দ্রে মোট ভোটার সংখ্যা ১৯৫১৯ জন। এতে পুরুষ ভোটার ৯৮৫৭ জন ও মহিলা ভোটার ৯৬৬২ জন।

তথ্য মতে, ক্ত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন সুষ্ঠু ভাবে সম্পন্ন করতে ৯টি ভোট কেন্দ্রে ৯ জন ম্যাজিষ্ট্রেট, ১ জন জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট, এক প্লাটুন বিজিবি, ১টি র‌্যাবের টিম , পুলিশ, আনসার ব্যাটালিয়ন, এপিবিএন মোবাইল টিম ৩টি, বাংলাদেশ নির্বাচন কমিশন কার্যালয়ের ৩ জন কর্মকর্তা দায়িত্বে থাকবেন। এ নির্বাচনে রিটার্নিং অফিসারের দায়িত্বে রয়েছেন উপজেলা নির্বাচন অফিসার মোঃ জুলকার নাঈম। এছাড়া সার্বিক দায়িত্বে থাকবেন মহেশখালী উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ জামিরুল ইসলাম।
মহেশখালী উপজেলা নির্বাচন অফিসার ও শাপলাপুর ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের রিটার্ণিং অফিসার মোঃ জুলকার নাঈম বলেন, প্রত্যাক কেন্দ্রে একজন করে ম্যাজিষ্ট্রেট থাকবে, এছাড়া পুলিশ, র‌্যাব, বিজিবি, পর্যবেকক্ষণ করবেন।

মহেশখালী উপজেলা নিবার্হী অফিসার মোঃ জামিরুল ইসলাম জানিয়েছেন, অবাধ সুষ্ঠ নির্বাচন অনুষ্ঠের লক্ষে প্রশাসনের পক্ষ থেকে সব প্রস্তুতি নেওয়া হয়েছে। আর কেউ যদি ভোট কেন্দ্রে গোলযোগের সৃষ্টি করতে চাইলে তাদেরকে কঠোর হস্তে দমন করা হবে

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •