সিবিএন , ঢাকা :

উনিশশত বাহাত্তর সালে প্রতিষ্ঠিত কক্সবাজার সমিতি, ঢাকা’র জরুরী বৈঠক ছিল গতকাল (সাত ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় স্থানীয় এক রেস্টুরেন্টে। বৈঠোকি এই আলোচনা সভা হয়ে উঠল ঢাকাস্থ কক্সবাজারবাসীদের মিলনমেলায়।

সমিতির সভাপতি ডঃ আনসারুল করিমের সভাপতিত্বে এই সভায় শতাধিক কক্সবাজারবাসী উপস্থিত ছিলেন। দীর্ঘদিন পর একে-অপরের পারস্পরিক কুশলাদি, আড্ডা, খুনসুটিতে জমজমাট হয়ে উঠে হেমন্তের শীতল সন্ধ্যা।

পবিত্র কোরআন হতে তেলাওয়াতের পর শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন ডঃ আনসারুল করিম। তিনি কক্সবাজার সমিতির লক্ষ্য, উদ্দেশ্য তুলে ধরেন ও দীর্ঘদিন পর সমিতিকে পুনরায় জাগরিত করার জন্য সবাইকে অনুরোধ জানান।

তার বক্তব্যের পর কক্সবাজার সমিতি, ঢাকার সদস্য সংগ্রহ কার্যক্রম আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্ভোবন করা হয়। শিক্ষা মন্ত্রনালয়ের নায়িমের পরিচালক ডঃ মোস্তফা কামালকে সদস্য হিসেবে নিবন্ধিত করার মাধ্যমে সদস্য সংগ্রহ অভিযান আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা শুরু হয়। তরুণ প্রজন্মের প্রতিনিধি হিসেবে দ্বিতীয় সদস্য হিসেবে নিবন্ধিত হন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী ও ডাকসুর নির্বাচিত সদস্য সানজিদা শারমিন।

সভায় উল্লেখ করা হয়, সদস্য সংগ্রহ কার্যক্রম সমিতির কলাবাগানস্থ অস্থায়ী কার্যালয়ে চলমান থাকবে অথবা আট উপজেলার প্রতিনিধির মাধ্যমে সদস্য হওয়া যাবে। অথবা কক্সবাজার সমিতির ওয়েবসাইট লিংকে ( coxsbazarsamiti.com/register ) এ গিয়ে সদস্য হওয়া যাবে।

আনুমানিক দেড় শতাধিক কক্সবাজারবাসীর এই মিলনমেলায় বক্তব্য রাখেন কক্সবাজার উন্নয়ন কতৃপক্ষের চেয়ারম্যান লেঃ কর্ণেল ফোরকান আহমদ, কক্সবাজার সমিতির সাধারণ সম্পাদক সন্তোষ শর্মা, সাবেক আইন মন্ত্রনালয়ের যুগ্ম সচিব ও সমিতির সাবেক সাধারণ সম্পাদক মোহাম্মদ হোছেন, মেঘনা গ্রুপের এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর খুরশেদ আলম, কাস্টমসের সাবেক উর্দ্ধতন কর্মকর্তা আবুল কাশেম, সাবেক ব্যাংক কর্মকর্তা আবু ইউসুফ, রামু সমিতির সভাপতি নুর মোহাম্মদ, আইনজীবী মোহাম্মদ মোস্তাকিম, ইয়াছিন হুদা, মোহাম্মদ উল্লাহ, ইয়াছিন হুদা, সুজন শর্মা, আনিস উল মাওলা, এডভোকেট হোসাইন আহমদ, মিজানুর রহমান প্রমুখ।

জরুরী সভাতে ঢাকায় বসবাসরত কক্সবাজারের বিভিন্ন পেশার লোকজন উপস্থিত ছিলেন। দীর্ঘদিন পর কক্সবাজার সমিতির পুনঃজাগরণে সবার মধ্যেই এক ধরণের উচ্ছ্বাস লক্ষ্য করা যায়। বক্তাগণ সমিতির জন্য স্থায়ী ঠিকানা, ঢাকাতে কক্সবাজারবাসীদের বিপদ-আপদে পাশে থাকা, উৎসব ও মিলনমেলার আয়োজন করা, শিক্ষাবৃত্তি, চাকুরীর সংযোগ স্থাপন সহ বিভিন্ন প্রসঙ্গে আলাপ করা হয়। সমিতির গঠনতন্ত্র অনুযায়ী আজীবন সদস্য হবার অনুরোধ করা হয়েছে সংশ্লিষ্টদের।

অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন আজিজুল ইসলাম ও মোহিব্বুল মোক্তাদীর তানিম। সার্বিক সহযোগিতা করেন মোহাম্মদ ইলিয়াছ, এডভোকেট জসিমুদ্দিন, ছৈয়দ আহমেদ, আবু সাদাত মোহাম্মদ সাইম, হেদায়েত আজিজ, সাজেদুল আলম মুরাদ প্রমুখ।

বর্তমানে কক্সবাজার সমিতির যে কোন প্রয়োজনে অস্থায়ী কার্যালয় (ইকোম্যাক, ১৬১/বি (৩য় তলা),কলাবাগান লেক সার্কাস রোড, ঢাকা) তে যোগাযোগ করা যাবে। সমিতির ওয়েব সাইট (www.coxsbazarsamiti.com) ও ফেসবুক পেইজ (facebook.com/coxsbazarsamiti) তে যে কোন হালনাগাদ তথ্য পাওয়া যাবে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •