আন্তর্জাতিক ডেস্ক:
জলবায়ু পরিবর্তন এবং দূষণের ফলে মহাসাগরের অক্সিজেন দ্রুত ফুরিয়ে যাচ্ছে, বাড়ছে তাপমাত্রা। এর ফলে মহাসাগরের অনেক প্রজাতির মাছ ও জলজ প্রাণী অস্তিত্ব সংকটের মুখে পড়ছে। আন্তর্জাতিক পরিবেশ সংরক্ষণবিষয়ক সংস্থা আইইউসিএনের দীর্ঘ গবেষণা প্রতিবেদনের বরাত দিয়ে এ তথ্য জানিয়েছে বিবিসি।

কয়েক দশক ধরে মহাসাগরে পুষ্টির পরিমাণ উল্লেখ্যযোগ্যহারে কমে আসছে বলে জানানো হলেও এবার গবেষকরা বলছেন, জলবায়ু পরিবর্তন মহাসাগরে অক্সিজেনের সংকটকে আরও গুরুতর করে তুলছে।

আইইউসিএনের গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ১৯৬০ সালে বিশ্বের বিভিন্ন মহাসাগরের ৪৫টি স্থানে অক্সিজেনের স্বল্পতা পরিলক্ষিত হয়েছিল। কিন্তু বর্তমানে এই সংকট বিভিন্ন মহাসাগরের প্রায় ৭০০টি স্থানে পাওয়া গেছে।

গবেষকরা বলছেন, মহাসাগরে অক্সিজেনের এই স্বল্পতা টুনা মাছ, মারলিন এবং হাঙ্গরসহ বিভিন্ন প্রজাতির জলজ প্রাণীর জন্য হুমকি তৈরি করেছে।

খামার ও শিল্প-প্রতিষ্ঠানের নাইট্রোজেন এবং ফসফরাস জাতীয় রাসায়নিক পদার্থের প্রবাহ সমুদ্রে দীর্ঘদিন ধরে হুমকি সৃষ্টি করছে। সমুদ্রের পানিতে অক্সিজেনের মাত্রা হ্রাসের জন্য প্রাথমিকভাবে এসব রাসায়নিক পদার্থ দায়ী; বিশেষ করে উপকূলীয় এলাকায়। তবে সাম্প্রতিক বছরগুলোতে জলবায়ু পরিবর্তনের হুমকি অতীতের তুলনায় বেড়েছে।

কার্বনডাই অক্সাইড নিঃসরণের পরিমাণ বৃদ্ধি পাওয়ায় গ্রিনহাউসের প্রভাব বাড়ছে। ফলে তাপ শোষণ করছে মহাসাগর। বিপরীতে এই উষ্ণ পানিতে অক্সিজেনের পরিমাণ কমছে। ১৯৬০ থেকে ২০১০ সালের মাঝে মহাসাগরে দ্রবীভূত গ্যাসের পরিমাণ ২ শতাংশ কমেছে। তবে মহাসাগরে গ্যাসের পরিমাণ কমে যাওয়ার এই রেকর্ড বৈশ্বিক গড় নয়। গ্রীষ্মমণ্ডলীয় কিছু অঞ্চলে ৪০ শতাংশ পর্যন্তও কমেছে।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •