বিশেষ প্রতিবেদক:

গত ২৭ অক্টোবর হাইকোর্ট থেকে মানবপাচার মামলায় জামিন নেয়া শিশু প্রকৃত আলাউদ্দিন নয়। কোর্টে হাজির হওয়া শিশুটির নাম রফিকুল ইসলাম প্রকাশ জয়নাল উদ্দিন। সে কক্সবাজার বায়তুশ শরফ জব্বারিয়া এতিম খানার প্রাক্তন ছাত্র। তার বড় ভাই মানবপাচারকারী আলাউদ্দিন সেজে হাজির হয়ে কোর্টকে বোকা বানিয়ে জামিন নিয়েছে সে। বিষয়টি মিডিয়ায় ফলাও করে প্রকাশিত হওয়ার পর থেকে আদালত পাড়ায় হৈচৈ পড়ে গেছে। কক্সবাজারের রামু উপজেলার চাকমারকুল ইউনিয়নের শাহামদেরপাড়ায় রফিকুল ইসলামের সহপাঠী ও স্থানীয় ব্যক্তিদের মাঝে খবরটি পৌঁছার পর আলোড়ন সৃষ্টি হয়েছে।
ভূক্তভোগীরা জানান, মানবপাচার মামলার প্রকৃত আসামী হচ্ছে কক্সবাজারের রামু উপজেলার চাকমারকুল ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের শাহামদেরপাড়া এলাকার মৃত মো: ইলিয়াছের পুত্র আলাউদ্দিন। সে বহুল আলোচিত মানবপাচার গডফাদার আব্দুল কাদেরে সেকেন্ড-ইন-কমান্ড। তার বিরুদ্ধে মানবপাচারসহ বিভিন্ন অভিযোগে মামলা রয়েছে। কিন্তু আলাউদ্দিনের কম বয়সী ছোট ভাই রফিকুল ইসলাম প্রকাশ জয়নাল উদ্দিনকে আদালতে আলাউদ্দিন হিসেবে হাজির করে আদালতকে বোকা বানিয়েছে তারা। একটি ছোট শিশুর বিরুদ্ধে উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে মিথ্যা মামলা দায়ের করা হয়েছে বলে আদালতকে ভুল বুঝিয়ে জামিন নিয়ে নেয়া হয়। কিন্তু প্রকৃত মামলার আসামী মানবপাচারকারী আলাউদ্দিন আদালতে উপস্থিত হলে শিশুর বিরুদ্ধে উদ্দেশ্যপ্রণোদিত মামলা হিসেবে হাইকোর্টের সহানুভূতি পেতোনা এই দুর্ধষ আদামপাচারকারী।
জামিনের পর মায়ের সাথে ছবিসহ সংবাদ প্রকাশিত হলে বেরিয়ে আসে প্রকৃত ঘটনা। এরপর থেকে গা ঢাকা দিয়েছে মানবপাচারীর পরিবার
স্থানীয় চেয়ারম্যান কর্তৃক প্রদানকৃত ওয়ারিশ সনদ, রামু ভূমি অফিস কর্তৃক প্রদানকৃত নামজারী খতিয়ান, কক্সবাজার বাইতুশ শরফ জাব্বারিয়া এতিম খানায় ভর্তি কাগজপত্র ও স্থানীয় ইউপি সদস্য এবং মসজিদের ইমামের দেওয়া প্রত্যায়ন ও এলাকারবাসির দেওয়া তথ্য অনুযায়ী প্রমাণ হয় হাইকোর্টে উপস্থিত হওয়া শিশুটি রফিকুল ইসলাম প্রকাশ জয়নাল উদ্দিন।
স্থানীয় সাবেক মেম্বার শফি উল্লাহ বলেন, প্রতারণা করতে এ রফিক কখনো তার নাম জয়নাল হিসেবে ব্যবহার করে। বহু অপকর্মের হুতার আলাউদ্দিন ও তার প্রক্সি দাতা রফিকুল ইসলামকে খুজে বের করে আইনের আওতায় আনার দাবী জানান সচেতন মহল।
উল্লেখ্য, গত বছরের ২৯ অক্টোবর বিজ্ঞ নারী ও শিশু নিযার্তন দমন ট্রাইব্যুনাল নং-২, চট্টগ্রাম আদালতে মানবপাচারের অভিযোগে মামলা দায়ের করেন নুরুল ইসলাম। যার পিটিশন মামলা নং- ১৮/২০১৮ইং। উক্ত মামলায় মানবপাচারকারী গডফাদার আব্দুল কাদেরকে প্রধান আসামী করে তার সহযোগী আলাউদ্দিনসহ ৬জনের বিরুদ্ধে এ মামলা দায়ের করেন লোহাগড়ার উজারভিটা এলাকার মৃত আব্দুল গণির পুত্র নুরুল ইসলাম।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •