সোয়েব সাঈদ, রামু:

সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমলের সাথে রামুর ঐতিহাসিক কানারাজার গুহা (আধাঁর মানিক) পরিদর্শন করছেন প্রতœতত্ত¡ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. হান্নান মিয়া। শনিবার (৭ ডিসেম্বর) বিকালে তাঁরা গুহাটি পরিদর্শনে যান।

পরিদর্শনকালে কক্সবাজার-৩ আসনের সংসদ সদস্য সাইমুম সরওয়ার কমল বলেন, রামু উপজেলা প্রতœতাত্তি¡ক সম্পদে ভরপুর জনপদ। কানারাজার গুহা যার অন্যতম। প্রত্নতত্ত অধিদপ্তর এ গুহায় অনুসন্ধান ও জরীপ কাজ করায় রামুবাসী আশান্বিত ও আনন্দিত। এ জরিপ ও অনুসন্ধানে বেরিয়ে আসবে এ গুহার রহস্য ও প্রকৃত ইতিহাস। তিনি কাঁনা রাজার গুহায় যাতায়াতের সড়ক পাকাকরণ করার আশ^াস দেন এবং পর্যটকদের কানা রাজার গুহা পরিদর্শনের আমন্ত্রণ জানান।

মহাপরিচালক মো. হান্না মিয়া জানান, বাংলাদেশে মাটির গুহা আর নেই বললেই চলে। তাই রামুর এ গুহাটি ব্যতিক্রমী এবং অনন্য প্রতœতাত্তি¡ক নিদর্শন। এ গুহাটি যেমন দৃষ্টিনন্দন, তেমনি এর আশপাশের পরিবেশও চমৎকার। আগামী শুস্ক মৌসুমে এ গুহাটি খনন করা হবে। তিনি আরো বলেন, রামু প্রতœতাত্তি¡ক নিদর্শন, ইতিহাস-ঐতিহ্যে ভরপুর। এখানে একটি প্রতœতাত্তি¡ক যাদুঘর করারও পরিকল্পনা রয়েছে।

এরআগে সকাল ৯ টায় প্রতœতত্ত¡ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. হান্নান মিয়া, রামুর অফিসেরচর গ্রামে ক্যাপ্টেন হিরাম কক্সের বাংলো, লামার পাড়া বৌদ্ধবিহার, কাউয়ারখোপ ইউনিয়নের উখিয়ারঘোনা এলাকায় পাহাড় চূড়ায় স্থাপিত প্রাচীন লাউয়ে জাদি, রাজারকুল রাংকোট বনাশ্রম বৌদ্ধ বিহার এবং উত্তর মিঠাছড়ি প্রজ্ঞামিত্র বন বিহারের ধাতু চৈত্য জাদি পরিদর্শন করেন।

পরিদর্শনকালে প্রতœতত্ত¡ অধিদপ্তর চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের আঞ্চলিক পরিচালক ড. মো. আতাউর রহমান, রামু উপজেলা নির্বাহী অফিসার প্রণয় চাকমা, উপজেলা স্বাস্থ্য ও প.প কর্মকর্তা ডা. মেজবাহ উদ্দিন, কাউয়ারখোপ ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোস্তাক আহমদ, পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ ছাদেকুর রহমান, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা ফরহাদ হোসেন, কবি এম সুলতান আহমদ মনিরী, রামু প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি খালেদ শহীদ, রামু উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক সাংবাদিক নীতিশ বড়–য়া, সাংবাদিক কামাল হোসেন, সোয়েব সাঈদ, আল মাহমুদ ভূট্টো, মো. নাছির উদ্দিন, রাশেদ খান, উখিয়ারঘোনা সাইমুম সরওয়ার কমল উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আতিকুর রহমান, জাগো নারী উন্নয়ন সংস্থার নির্বাহী পরিচালক শিউলী শর্মা, মহিলা ইউপি সদস্য নেবু রানী শর্মা ও আনার কলি, ইউপি সদস্য রফিকুল আলম, হাবিব উল্লাহ ও মেহের আলী, সমাজসেবক নুরুল ইসলাম, সাইফুল ইসলাম, সমাজসেবক মো. আবদুল্লাহ, সুমথ বড়–য়া, স্বেচ্ছাসেবকলীগ নেতা নুরুল ইসলাম নাহিদ, মনজুর আলম সোহেল, যুবলীগ নেতা ওসমান গনি, নুরুল আজিম, ফেরদৌস গোলাপ, ছাত্রলীগ নেতা ছানা উল্লাহ বাবুল, নুরুল হাকিম হিমেল, শিক্ষক মিজানুর রহমান, গিয়াস উদ্দিন রুবেল, কপিল উদ্দিন প্রমূখ উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য দুই দিনের সরকারি সফরে শুক্রবার (৬ ডিসেম্বর) কক্সবাজার আসেন প্রতœতত্ত¡ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. হান্নান মিয়া। কক্সবাজার জেলার প্রতœতাত্তি¡ক জরিপ ও অনুসন্ধান কাজের অগ্রগতি দেখতেই মুলত মহাপরিচালকের কক্সবাজারে এ সফর। গত ১৬ নভেম্বর (শনিবার) থেকে কক্সবাজার জেলাতে শুরু হয়েছে মাস ব্যাপি প্রতœতাত্তি¡ক জরিপ ও অনুসন্ধানের কাজ।প্রাথমিক পর্যায়ে কক্সবাজার সদর,রামু,মহেশখালি, উখিয়া সহ আপাতত ৪টি উপজেলাতেই জরিপ ও অনুসন্ধান কাজ পরিচলনা করা হচ্ছে।

এসময় প্রতœতত্ত¡ জরিপ ও অনুসন্ধান দলের ফিল্ড অফিসার মো. শাহীন আলম, সহকারি কাষ্টোডিয়ান হাফিজুর রহমান, সার্ভেয়ার চাইথোয়াই মারমা, গবেষণা সহকারি কাজী মো. ওমর ফারুক রুবেল, পটারী রেকর্ডার ওমর ফারুক, অফিস সহকারি লক্ষণ সেন উপস্থিত ছিলেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •