বিশেষ সংবাদদাতা:
পীর সাহেব বায়তুশ শরফ বাহারুল উলুম আল্লামা কুতুবউদ্দিন ( ম. জি. আ) বলেছেন, বড়পীর আব্দুল কাদের জিলানী রহ. ছিলেন বড় আশেকে রসুল ও আল্লাহর অলী। হযরতের দ্বীনি খেদমত ও মানব সেবার পথ অনুসরণ করে বায়তুশ শরফ তাজকিয়া, দ্বীনি খেদমত ও মানব সেবার বহুমুখী কার্যক্রম নিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে। শিরক বেদায়ত মুক্ত এই অঙ্গনে আল্লাহর হাজার হাজার বান্দা ও আশেকে রসুলেরা তাজকিয়ায়ে নফসের পাশাপাশি বিভিন্ন দ্বীনি সেবা গ্রহণের সুযোগ পাচ্ছেন।

পীর সাহেব (হুজুর) আরো বলেন, প্রতি বছরের মত এবারো আগামী কাল ও পরশু (৮-৯ ডিসেম্বর) ফাতেহায়ে ইয়াজ দাহুম উপলক্ষে ইছালে ছওয়াব মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে। এখানে এসে আল্লাহর হাজার হাজার বান্দারা জিকির, ওয়াজ মাহফিল ও দোয়া মাহফিলে শরীক হবেন। তাদের খেদমতের জন্য বায়তুশ শরফ ব্যবস্থা করেছে।

শনিবার (৭ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় কক্সবাজার বায়তুশ শরফ কমপ্লেক্স মসজিদে দুই দিন ব্যাপী মাহফিলে ইছালে ছওয়াব এর প্রস্তুতি সভায় পীর সাহেব বায়তু শরফ আল্লামা কুতুবউদ্দিন একথা বলেন।

উল্লেখ্য প্রতিবছরের ন্যায় বায়তুশ শরফ আঞ্জুমানে ইত্তেহাদ বাংলাদেশের অধীনে কক্সবাজার বায়তুশ শরফ কমপ্লেক্সে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ফাতেহায়ে ইয়াজদাহুম উলক্ষ্যে ‘পবিত্র মাহফিলে ইছালে ছওয়াব’। বড়পীর হযরত আব্দুল কাদের জিলানী রহ. এর ইছালে ছওয়াব উপলক্ষে এই ফাতেহায়ে ইয়াজদাহুম ও ইছালে ছওয়াব মাহফিলের আয়োজন করা হয়। মাহফিলের সার্বিক প্রস্তুতি দেখে পীর সাহেব হুজুর সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন।

প্রস্তুতি বক্তব্য রাখেন, কক্সবাজার বায়তুশ শরফ কমপ্লেক্সের মহাপরিচালক শিক্ষাবিদ এম এম সিরাজুল ইসলাম। তিনি বলেন, বায়তুশ শরফ কমপ্লেক্স ত্রীরত্ম পীর আওলিয়াদের রূহানী ফয়াজের ফসল। এটি সম্পুর্ণ শিরিক বেদায়াতমুক্ত দ্বীনি খেদমত ও মানব সেবামুলক প্রতিষ্ঠান।
বায়তুশ শরফ এর প্রাণ পুরুষ বর্তমান পীর সাহেব বাহারুল উলুম আল্লামা কুতুব উদ্দিন ( ম. জি. আ.) এখন বায়তুশ শরফ এর হাল ধরেছেন।

এখানে রয়েছে, বায়তুশ শরফ জব্বারিয়া একাডেমি, শাহ কুতুব উদ্দিন আদর্শ মাদরাসা, মসজিদ, হেফজ খানা, এতিম খানা ও অনেক বড় পরিসরে চক্ষু হাসপাতাল। এক কথায় বায়তুশ শরফ কমপ্লেক্স বহুমুখী মানব সেবার একটি প্রতিষ্ঠান। তিনি পীর সাহেব হুজুরের সুস্থতা ও মাহফিলের সফলতার জন্য সকলের দোয়া কামনা করেন।

এসময় আরো উপস্তিত ছিলেন, বায়তুশ শরফ হাসপাতালের যুগ্ম আহবায়ক মুক্তিযোদ্ধা এস এম কামাল উদ্দিন, মাস্টার ফরিদ আহমদ পরিচালক বায়তুশ শরফ, একাডেমীর প্রধান মাষ্টার সৈয়দ করিম, টেকনাফ উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান মাওলানা ফেরদাওস আহমদ জমিরীসহ বিভিন্ন ওলামায়ে কেরাম। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন
বায়তুশ শরফ মসজিদের সেক্রেটারী মাওলানা ওমর ফারুক।

৮ ও ৯ ডিসেম্বর (রবিবার ও সোমবার) অনুষ্ঠিতব্য দুই দিনব্যাপী ইছালে ছওয়াব মাহফিলে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বায়তুশ শরফ আঞ্জুমানে ইত্তেহাদ বাংলাদেশের প্রধান পৃষ্টপোষক ও সভাপতি বাহারুল উলুম, শাহ সূফী পীর সাহেব বায়তুশ শরফ আলহাজ্ব হযরত মাওলানা আল্লামা কুতুবউদ্দিন (ম. জি. আ)।

৮ ডিসেম্বর সকাল দশটা থেকে শুরু হয়ে ৯ ডিসেম্বর সোমবার সকাল ৮ টায় শেষ হবে দুই দিন ব্যাপী এই মাহফিল। মাহফিলের কর্মসূচির মধ্যে রয়েছে পীর সাহেব বায়তুশ শরফ আল্লামা কুতুবউদ্দিন (ম. জি. আ) এর মূল্যবান বয়ান, বিশিষ্ট ওলামায়ে কেরামের বয়ান, সালাতে তাহাজ্জুদ ও জিকির মাহফিল। এছাড়াও কর্মসূচীর মধ্যে রয়েছে, খতমে কোরআন, খতমে বোখারী, খতমে সুরা আন আম, খতমে খাজেগান, খতমে তাহলিল, দস্তার বন্দী, মিলাদ, তওবা ইসতিগফার, বায়াত ও আখেরী মোনাজাত।

জনাব সিরাজুল ইসলাম এই দ্বীনি ঈমানী ও রূহানী মাহফিলে শরীক হয়ে দুনিয়া ও আখিরাতের কামিয়বী হাসিল করার জন্য সকলের প্রতি আহবান জানান।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •