রামু’র কানারাজার সুড়ঙ্গের প্রতি কৌতুহল

কামাল হোসেন,রামু :
দুই দিনের সরকারী সফরে প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো: হান্নান মিয়া কক্সবাজার আসছেন কাল। রামুর ঐতিহাসিক রহস্যময় কানারাজার সুড়ঙ্গ সহ কক্সবাজারের বেশকিছু গুরুত্বপূর্ণ প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শন পরিদর্শন করবেন তিঁনি।বিষয়টি প্রতিবেদকের কাছে নিশ্চিত করেছেন প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তর চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের আঞ্চলিক পরিচালক ড.মোঃ আতাউর রহমান।
কক্সবাজার জেলার প্রত্নতাত্ত্বিক জরিপ ও অনুসন্ধান কাজের অগ্রগতি দেখতেই মুলত মহাপরিচালকের কক্সবাজারে এই সফর।
গত ১৬ নভেম্বর(শনিবার)থেকে কক্সবাজার জেলাতে শুরু হয়েছে মাস ব্যাপি প্রত্নতাত্ত্বিক জরিপ ও অনুসন্ধানের কাজ।প্রাথমিক পর্যায়ে কক্সবাজার সদর,রামু,মহেশখালি, উখিয়া সহ আপাতত ৪টি উপজেলাতেই জরিপ ও অনুসন্ধান কাজ পরিচলনা করা হচ্ছে ।
প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তর চট্টগ্রাম বিভাগের সুত্রমতে, প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো: হান্নান মিয়া কাল ৬ ডিসেম্বর (শুক্রবার) বিমান যোগে সকালে কক্সবাজার আসবেন।একই দিনে তিঁনি মহেশখালী আদিনাথ মন্দির পরিদর্শনে যাবেন।সন্ধ্যায় সুশিল সমাজের সাথে মতবিনিময় করে তিঁনি রামুর রাবার বাগান ডাক বাংলোতে রাত্রিযাপন করবেন।পরদিন ৭ডিসেম্বর (শনিবার) রামুর ঐতিহাসিক কানারাজার সুড়ঙ্গ, রামুর সীমা বিহার,রামুর রাংকোট, এবং কেপ্টেন হিরাম কক্সের বাংলো,লামার পাড়া বৌদ্ধবিহার পরিদর্শনের কথা রয়েছে।পরিদর্শন কাজ শেষ করে মধ্যাহ্নভোজ শেষে তিঁনি বিকালে বিমান যোগে ঢাকা ফিরে যাবেন বলে যানা গেছে।
এদিকে মহাপরিচালক আগমনের খবরে পরিদর্শনভোক্ত এলাকাগুলোতে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দিপনা বিরাজ করছে।প্রত্নতাত্ত্বিক অনুসন্ধান ও জরিপ দলও রামু তথা কক্সবাজার অঞ্চলের প্রত্নতাত্ত্বিক নিদর্শনের দ্রুত ডকুমেন্টাশনের কাজে খুবই ব্যস্ত সময় পর করছেন।প্রত্নতত্ত্ব জরিপ ও অনুসন্ধান দলে আছেন বিভাগের আঞ্চলিক পরিচালক ড.মোঃ আতাউর রহমান,ফিল্ড অফিসার মোঃশাহিন আলম,সহকারী কাষ্টোডিয়ান হাফিজুর রহমান,সার্ভেয়ার চাইথোয়াই মারমা,গবেষণা সহকারী কাজী মোঃ ওমর ফারুক রুবেল,পটারী রেকর্ডার ওমর ফারুক,অফিস সহকারী লক্ষণ সেন প্রমুখ।দলটি বর্তমানে রামুর অফিসেরচর কক্সের বাংলোতে অবস্থান করছেন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •