নিজস্ব প্রতিবেদক:
কক্সবাজার সদরের ইসলামপুরের খানঘোনা বৈদ্যপাড়ায় চাঞ্চল্যকর আবুল কাসেম প্রকাশ বাহাদু হত্যা মামলাকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে নিজের ঘরে আগুন দিয়েছে আসামীপক্ষ। শুধু তাতে শেষ নয়, উল্টো ভিকটিমের ছেলে, কলেজপড়ুয়া মেয়েসহ ৭ জনের বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। এ মামলায় অজ্ঞাতনামা আসামী রয়েছে আরো ৪ জন। কক্সবাজার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত নং-৪ এ মামলাটি দায়ের করেন হত্যা মামলায় গ্রেফতার আমজাদ হোসেন সাগরের মা ছেনু আরা বেগম।
এ মামলায় আসামী করা হয়েছে নিহত আবুল কাসেম প্রকাশ বাহাদুর ছেলে মো. ইসমাঈল প্রকাশ শাহীন (২৫), দেলোয়ার হোসেন আপ্পি (২৩), কলেজ পড়ুয়া মেয়ে রোকসানা আকতার (১৯), ভাই আবদুর রহিম (৩০), আবদুর রহিমের স্ত্রী ডেজিনা আকতার (২৪), ঈদগাঁও ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মাহবুব আলম (৩২) ও ইউনিয়নের ৪ নং ওয়ার্ডের মেহরঘোনার বাসিন্দা মোতাহের আহমদের ছেলে আমান উল্লাহ। ঘটনার সুষ্টু ও নিরপেক্ষ তদন্ত করতে আসল রহস্য বেরিয়ে আসবে বলে জানিয়েছে স্থানীয়রা।
এলাকাবাসীর অভিমত, একটি স্পষ্ট হত্যাকান্ডের ঘটনাকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করতে পরিকল্পিত ঘটনা ঘটিয়ে মামলাটি করা হয়েছে। খুনের ঘটনায় যারা সাক্ষি দিয়েছে তাদেরকেও ঘরপোড়ানো মামলায় আসামী বানানো হয়েছে। রাত ১০ টার সাজানো ঘটনায় দায়েরকৃত মামলা থেকে বাদ যায়নি ঘটনাস্থল থেকে অন্তত ৩০ কিলোমিটার দূরে ঈদগাঁও মেহেরঘোনা এলাকার বাসিন্দা ও ইউনিয়ন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মাহবুব আলম এবং একই এলাকার আমান উল্লাহ। ঘটনার নিরপেক্ষ তদন্ত চেয়েছেন নিহত আবুল কাসেম প্রকাশ বাহাদুর মেয়ে কলেজছাত্রী রোকসানা আকতার। সেই সাথে তিনি পিতার খুনীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবী করেন।
এ প্রসঙ্গে কক্সবাজার সদর মডেল থানার ওসি (তদন্ত) মো, খাইরুজ্জামান জানান, হত্যাকা-ের বিষয়ে দায়েরকৃত মামলাটি যথেষ্ট গুরুত্বের সাথে তদন্ত করা হচ্ছে। মূল ঘটনাকে আড়াল করার কোন অপচেষ্টা সফল হবেনা। সঠিক তদন্তমতে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।
উল্লেখ্য, গত ২৫ নভেম্বর রাতে ইসলামপুরের খানঘোনা বৈদ্যপাড়ায় আবুল কাসেম প্রকাশ বাহাদু নামের এক ব্যক্তিকে বসতঘরে ঢুকে হত্যা করা হয়। পরের দিন এ ঘটনায় নিহতের ছেলে মো. ইসমাঈল প্রকাশ শাহীন বাদি হয়ে কক্সবাজার সদর মডেল থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। যার থানা মামলা নং-৯৪/১৯। এতে ৬ জনকে এজাহারনামীয় আসামী করা হয়েছে। সেখান থেকে আমজাদ হোসেন সাগর (২৩) ও আবদুল করিম আসকরি (২৮) নামের দুইজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। পলাতক রয়েছে শাহেদা আকতার (৩২), আবদুল করিম ভুট্টু (৩৮), মো. ছিদ্দিক (৪৫) ও মো. রায়হান (২৩)।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •