শীতের শুরুতে ঠান্ডাজনিত রোগের কবলে বৃদ্ধ ও শিশুরা

মোহাম্মদ ফারুক:

শীতের শুরুতে জেলার বিভিন্ন স্থানে ঠান্ডাজনিত বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা বাড়ছে। ইতিমধ্যে জেলাসহ উপজেলার বিভিন্ন হাসপাতালে রোগীর ভিড় বেড়েছে। আক্রান্তদের মধ্যে শিশু ও বৃদ্ধই বেশি।

শীতকালীন সময়ে সব বয়সী মানুষের মাঝে বিভিন্ন ধরনের রোগব্যাধি দেখা দেয়। এর মধ্যে সর্দি-কাশি,নিউমোনিয়া, ডায়রিয়া, হাঁপানি, টনসিলাটাইসিস, সাইনোসাইটিস অন্যতম। তবে শিশু ও বৃদ্ধদের ক্ষেত্রে এ রোগের প্রবণতা দেখা দেয় বেশি, আর ঝুঁকিও রয়েছে তাদের।

কোনো শিশু আবার আক্রান্ত হচ্ছে ডায়রিয়ায়। মৌসুমি এসব রোগ শিশু আর বৃদ্ধদের বেশি হয়। শীতের শুরুতেই ঠান্ডাসহ বিভিন্ন ধরনের ভাইরাসের কারণেই বেড়েছে ঠান্ডাজনিত রোগের প্রকোপ।

কক্সবাজার সদর হাসপাতালের বিভিন্ন ওয়ার্ডে ঘুরে এবং অভিভাবক ও চিকিৎসকের সাথে কথা বলে জানা যায়, বর্তমানে জ¦র, হাঁপানি, ডাুয়রিয়া ও নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হয়ে ১৫ দিন বয়সের শিশু থেকে শুরু করে প্রায় বৃদ্ধসহ শত শত রোগি চিকিৎসারত আছেন।

কর্তব্যরত নার্সরা জানান, শীতের শুরু থেকে প্রতিদিন বিভিন্ন ঠান্ডাজনিত রোগে আক্রান্ত হয়ে ২০-২৫ জন করে শুধু শিশু ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নিচ্ছে। এছাড়াও হাসপাতাল ছাড়াও শহরের বেসরকারী ক্লিনিকগুলোতে ভর্তি করানো হচ্ছে।

সদর হাসপাতালের ৩য় তলায় শিশু ওয়ার্ড ঘুরে দেখা গেছে, সদর হাসপাতালের শিশু ওয়ার্ডে নির্দিষ্ট সীটের তুলনায় অধিক রোগী বৃদ্ধি রয়েছে। রোগীদের সীট দিতে না পারায় একটি সীটে ২জন করে রোগী রেখেছেন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষরা। এতে শিশু ওয়ার্ডে ৪১ জন শিশুই ছিল ঠান্ডা ও নিউমোনিয়া জনিত রোগে আক্রান্ত। ডায়েরিয়া ওয়ার্ডে গিয়ে দেখা যায় ৪৫ জন শিশু ওই ওয়ার্ডে ভর্তি আছে। বৃদ্ধ রোগী আছে ৭ জন,

সদর হাসপাতালে শিশুকন্যাকে নিয়ে ভর্তি আছেন ঝিলংজা থেকে আসা হাসিনা। তিনি জানান, তিন মাস বয়সী তারঁ শিশুকন্যার ৪ দিন আগে প্রচন্ড শ^াসকষ্ট বেড়ে যাওয়ার কারণে সদর হাসপাতালে তিনি শিশুটিকে নিয়ে আসেন। এখন মোটামুটি সুস্থ।

কক্সবাজারের শিশু রোগ বিশেষজ্ঞ ডা. আশীষ কুমার দে জানান, শীতকালীন সময়ে ঠান্ডাজনিত সর্দি-কাশি, নিউমোনিয়া, ডায়েরিয়া, এলার্জির প্রকোপ বাড়ে। শীতের কারণে বিভিন্ন রোগ দেখা দিতে পারে। তার মধ্যে শ্বাসকষ্টও চামড়ার রোগও বেড়ে যায়। বিশেষ করে বাচ্চাদের মধ্যে ডায়রিয়া দেখা দেয়। ডায়রিয়া হয় ভাইরাসের কারণে।

তিনি আরো বলেন, এই সময়ে খুব বেশি পরিস্কার পরিচন্ন থাকা দরকার। বিশেষ করে শিশু এবং মায়েদের হাত পরিস্কার রাখতে হবে।

এই ব্যাপারে কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও প্রশাসন) ডা. নোবেল কুমার বড়–য়া জানান, শীতের শুরুতে আবহাওয়া পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে শিশু ও নবজাতকরা ঠান্ডাজনিত রোগে আক্রান্ত হয়। এ সময়ে শিশুর সর্দি-জ্বরের সঙ্গে কাশি , ডায়রিয়া,ধুলা বালির কারণে এজমা, নিউমোনিয়ার কারণে শ্বাসকষ্ট হয়। শিশুদের শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বড়দের তুলনায় কম। তিনি আরো বলেন, প্রতিদিন শিশুসহ অনেক রোগি ভর্তি হয়ে নিচ্ছেন আমরা সাধ্যমত চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছি রোগিদের দ্রুত চিকিৎসা দিতে।

সর্বশেষ সংবাদ

চট্টগ্রামের পাহাড়তলীতে নগদ টাকাসহ প্রতারক গ্রেপ্তার

পটিয়ায় মর্মান্তিক সড়ক দূর্ঘটনায় চকরিয়ার স্বামী-স্ত্রী নিহত

কেজি স্কুলের নৈরাজ্য-৫ : কক্সবাজারের কেজি স্কুল গুলো ৩ কোটি টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে

মাদকমুক্ত সমাজ গড়ার প্রচারণায় বান্দরবা‌নে ব্যান্ড ফেস্ট

জাপায় সাদ এরশাদের পদ কী?

টেকনাফে ‘তানযিমুল আফনান’ মাদরাসা উদ্বোধন

পর্যটন শহরের বিশুদ্ধ পানি ও বাতাস নির্মল রাখতে হবে

জেলা আওয়ামী লীগের কর্মি সমাবেশ ২১ জানুয়ারী

খুটাখালী দারুল হুফ্ফাজ এতিমখানার মাহফিল ২২-২৩ জানুয়ারী

ঈদগাহ রিপোর্টার্স সোসাইটির প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী ও নতুন কমিটি গঠন

ছেপটখালীতে প্রাথমিক শিক্ষক মুহিবুল্লাহ আটক

মহেশখালীতে সংগীত বিষয়ক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত

কক্সবাজারে বঙ্গবন্ধু জাতীয় চ্যাম্পিয়নশীপের উদ্বোধন 

জনগণের ভোটাধিকার কেড়ে নেওয়ার খেসারত আওয়ামী লীগকে দিতেই হবে

বন সম্পদ রক্ষার্থে হাটহাজারী ইউএনও’র চেক পোস্ট

হোয়ানকে কথা কাটাকাটি নিয়ে নারীসহ ৭ জনকে কুপিয়ে জখম

২৬ জানুয়ারী জেলা জাসদের সম্মেলন, যুবজোটের প্রস্তুতি সভা

বঙ্গবন্ধুর জন্ম শতবার্ষিকী ও ৫ম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উৎযাপন করেছে সায়মন বীচ রিসোর্ট

নাইক্ষ্যংছড়ি এসএ সরকারি উচ্চবিদ্যালয়ের সুবর্ণ জয়ন্তীর রেজিষ্ট্রেশন শুরু

জামেয়া দারুল মাআরিফের দস্তারবন্দি সফল করতে কক্সবাজারে মতবিনিময়