২৭ নভেম্বর দৈনিক কক্সবাজার পত্রিকায় প্রকাশিত ‘জেলা কিন্ডারগার্টেন বৃত্তির নামে রমরমা বাণিজ্য’ শীর্ষক সংবাদটি। আমাদের দৃষ্টিগোচর হয়েছে। সংবাদে যে সমস্ত তথ্য উল্লেখ করা হয়েছে তার সাথে বাস্তবতার কোনো মিল নেই। আমরা দৃঢ়তার সাথে বলছি, কিন্ডার গার্টেন বৃত্তি কোনো লাভজনক বিষয় নয়। সেখান থেকে লাভ তো দূরের বরং সংগঠন থেকে প্রয়োজন মাফিক ভর্তুকিও দেয়া হয়।
জেলা কিন্ডার গার্টেন এসোসিয়েশন কোনো জেলা ভিত্তিক সংগঠন নয়। এটি দেশব্যাপী বলবৎ রয়েছে। এই সংগঠনের নেতৃত্বে সবাই প্রতিষ্ঠিত ও স্বনামধন্য শিক্ষক। কক্সবাজার জেলা গার্টেন এসোসিয়েশন জেলা ভিত্তিক শাখা। মূলত শিক্ষাক্ষেত্রে বাংলাদেশকে এগিয়ে নিতে সরকারের পাশাপাশি এসডিসিফোর বাস্তবায়নে শিক্ষা বিস্তার ও আমূল পরিবর্তনে কাজ করছে কক্সবাজার জেলা কিন্ডারগার্টেন স্কুল এসোসিয়েশন। বেসরকারি শিক্ষাকে মানসম্মত করতে নিষ্ঠার সাথে কাজ করছে এই সংগঠনটি। এই সংগঠনটি আর্থিকভাবে লাভজনক কোনো কাজ করছে না। শিক্ষা বাণিজ্যের কোন প্রশ্ননই আসেনা। শিক্ষার উন্নয়ন এবং ছাত্রদের মেধার মান উন্নয়ন ঘটাতে প্রতি বছর জেলা ব্যাপী বৃত্তি পরীক্ষার আয়োজন করে আসছে এ এসোসিয়েশন। এই বৃত্তি পরীক্ষা বেশ প্রতিযোগিতামূলক।
পরিশেষে বলতে চাই, মনগড়া তথ্যে প্রকাশিত এই সংবাদটি প্রকাশে আমরা খুব মর্মাহত। এই সংবাদ নিয়ে সংশ্লিষ্ট মহলসহ কাউকে বিভ্রান্ত না হওয়ার অনুরোধ করছি।

বিবৃতিদাতা
সভাপতি
মোহাম্মদ রফিকুল ইসলাম
মহা-সচিব
আবুল হাসেম সেলিম
কক্সবাজার জেলা কিন্ডারগার্টেন স্কুল এসোসিয়েশন।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •