ইমরান আল মাহমুদ,উখিয়াঃ
কক্সবাজার-টেকনাফ দীর্ঘ ৭৯কিলোমিটার আরাকান সড়ক।বর্তমানে সড়কটির নামকরণ করা হয়েছে শহিদ এটিএম জাফর আলম আরাকান সড়ক।
২০১৭ সালে বলপূর্বক বাস্তুচ্যুত মিয়ানমারের রোহিঙ্গা বাংলাদেশের কক্সবাজারের উখিয়া ও টেকনাফের বিভিন্ন ক্যাম্পে আশ্রয় নেয়।এসব বিশাল সংখ্যক রোহিঙ্গাদের খাদ্য সরবরাহ থেকে শুরু করে বাসস্থান নির্মাণ সহ নিত্যপ্রয়োজনীয় সব পণ্যবাহী বিভিন্ন ভারি যানবাহন চলাচল করে এই সড়ক দিয়ে।
যার কারণে আরাকান সড়কটিতে খানা খন্দকের সৃ্ষ্টি হয়।ফলে উক্ত সড়ক দিয়ে যাতায়াতে নানা দুর্ভোগ ভোগান্তি পোহাতে হয়।
তাই সড়কটি সংস্কারের জন্য বর্তমানে পুরোদমে কাজ চলমান রয়েছে।সড়কটির সংস্কার কাজ চলাকালীন সৃ্ষ্টি হচ্ছে প্রচন্ড ধুলোবালি।যা পরিবেশকে দূষিত করে ফেলছে।উখিয়ার বিভিন্ন স্থানে প্রতিনিয়ত এই ধুলোবালির কারণে ভোগান্তিতে রয়েছে শিক্ষার্থী সহ সাধারণ জনতা।যা মানুষের স্বাস্থের জন্য খুবই ক্ষতিকর।
তাই সড়ক সংস্কার কাজ চলাকালীন ধুলাবালির সৃ্ষ্টিরোধে পানির ব্যবস্থা করলে হয়তো কিছুটা দুর্ভোগ শেষ হবে বলে মনে করেন প্রত্যক্ষদর্শীরা।

  •  
  •  
  •  
  •  
  •   
  •  
  •